আজ: শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১ইং, ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৮ অগাস্ট ২০১৭, সোমবার |



kidarkar

সাকিব-মিরাজে দাপট নাকি পিচ কন্ডিশন: ২১৭ রানে অলআউট অষ্ট্রেলিয়া

40_Sakib_Miraj_Ullash_221016শেয়ারবাজার ডেস্ক: সাকিব মিরাজের দাপুটে বোলিং তোপে অসহায় হয়ে মাত্র ২১৭ রানেই গুটিয়ে গেছে অষ্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস। তবে এ দুই বোলের আট উইকেট (সাকিব ৫টি,মিরাজ ৩টি) নেয়ার পেছনে পিচ কন্ডিশনকে অনেকটা দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ একবার বোল লো হয়ে যাচ্ছে আবার বাউন্স হচ্ছে। এতে তাল মেলাতে পারছেন না ব্যাটসম্যানরা। কারণ অজিদের আগে বাংলাদেশেরও একই অবস্থা তৈরি হয়েছিল।

এদিকে মাটি কামড়ে পড়ে থাকা অ্যাশটন অ্যাগারের ব্যাটে দুইশ ছাড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ। ৩১তম ওভারে তিন অঙ্ক ছুঁয়েছিল অতিথিদের স্কোর। দুইশ রান এসেছে ৭১তম ওভারে।

তৃতীয় সেশনের দ্বিতীয় ওভারে আঘাত হেনেছেন সাকিব আল হাসান। ড্রাইভ করতে গিয়ে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হয়েছেন প্যাট কামিন্স।

২৫ রান করা কামিন্স সাকিবের চতুর্থ শিকার।

কামিন্সের বিদায়ে ভেঙেছে ৪৯ রানের নবম উইকেট জুটি। তার বিদায়ের সময়ের দলের স্কোর ১৯৩/৯।

অ্যাশটন অ্যাগারের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান জশ হেইজেলউড।

কামিন্স-অ্যাগারের ব্যাটে অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরোধ

দ্বিতীয় সেশনের শুরুটা দারুণ ছিল বাংলাদেশের। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও ম্যাথু ওয়েডকে ফিরিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে চা-বিরতির আগেই গুটিয়ে দেওয়ার আশা জাগিয়েছিল মুশফিকুর রহিমের দল। তাদের দারুণভাবে হতাশ করেছেন প্যাট কামিন্স ও অ্যাশটন অ্যাগার।

চা-বিরতিতে যাওয়ার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ১৯৩/৮। কামিন্স ২৫ ও অ্যাগার ২২ রানে অপরাজিত।

নবম উইকেটে এরই মধ্যে দুই জনে ১৪৩ বলে গড়েছেন ৪৯ রানের জুটি।

চা-বিরতির জন্য দুই দল মাঠ ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই নেমেছে বৃষ্টি। ঢেকে দেওয়া হয়েছে শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আউট ফিল্ড।

সহজ ক্যাচ ছাড়লেন শফিউল

দ্বিতীয় সেশনের পানি বিরতির আগে শেষ বলে প্যাট কামিন্সকে ফেরানোর সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেছে বাংলাদেশ। সাকিব আল হাসানের বলে আকাশে উঠে যাওয়া সহজ ক্যাচ তালগোল পাকিয়ে হাতছাড়া করেছেন শফিউল ইসলাম।

৫৪ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৬৭ রান। নবম উইকেটে অ্যাশটন অ্যাগারের সঙ্গে এরই মধ্যে ২৩ রানের জুটি গড়েছেন কামিন্স।

গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে এগিয়ে আসতে দেখতে ঝুলিয়ে দিলেন সাকিব আল হাসান। একটু টেনে করা বল পেলেন না অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার। স্টাম্পিংয়ের সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেননি মুশফিকুর রহিম।

২৩ রান করে ম্যাক্সওয়েলের বিদায়ের সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ১৪৪/৮। অ্যাশটন অ্যাগারের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন প্যাট কামিন্স।

লাঞ্চের পরপরই ওয়েডের উইকেট

লাঞ্চের পর প্রথম ওভারেই আঘাত হেনেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। প্রান্ত বদল করে বোলিং আক্রমণে ফেরা অফ স্পিনার এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেছেন ম্যাথু ওয়েডকে। রিভিউ নিলে বেঁচে যেতেন অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক। হকআই অনুযায়ী বল স্টাম্প মিস করতো।

৫ রান করে ওয়েড ফিরে যাওয়ার সময় অস্ট্রেলিয়ার স্কোর ১২৪/৭।

গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন অ্যাশটন অ্যাগার।

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

 

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.