আজ: বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২ইং, ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৩ ডিসেম্বর ২০১৭, শনিবার |


kidarkar

বীমার অনিয়ম রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে- অর্থমন্ত্রী


শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড যত বাড়বে বীমা খাত ততই প্রসারিত হবে। বর্তমানে বীমা খাতের যেভাবে প্রসার ঘটেছে তাতে দেশের অর্থনীতির সার্বিক উন্নতির চিত্রই পরিলক্ষিত হয়। তবে বীমা খাতে অনেক অনিয়ম হয়। আর এ অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গতকাল দুপুরে সিলেটের কবি নজরুল অডিটরিয়ামে দু’দিনব্যাপি বীমা মেলা’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি সম্মানিত অতিথি এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মানিক চন্দ্র দে বিশেষ অতিথি ছিলেন।
বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান পাটোয়ারী ‘বীমা মেলা-২০১৭’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।
বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের সদস্য ও মেলা আয়োজক কমিটির সভাপতি গকুল চাঁদ দাস অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন।
এর আগে সকাল ৯টায় নগরীর কোর্ট পয়েন্ট থেকে বর্ণাঢ্য একটি র‌্যালি বের হয়। বিভিন্ন বীমা কোম্পানীর প্রতিনিধিবৃন্দ ও গ্রাহকগণ এতে অংশ গ্রহণ করেন। দেশে বীমা সংক্রান্ত এটি ২য় মেলা । ২০১৬ সালে রাজধানি ঢাকায় ১ম বীমা মেলা অনুষ্ঠিত হয়। বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের সদস্য ও মেলা আয়োজক কমিটির সভাপতি গকুল চাঁদ দাস।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বীমা এখন আমাদের বিভিন্ন উপজেলা পর্যন্ত পৌঁছে গেছে। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শাখা অফিস আছে। যার সংখ্যা ৩ হাজারের বেশি। এটা আমাদের কৃতিত্বের বিষয়, প্রগতির জন্যও ভাল একটা দিক।

তিনি বলেন, বীমার দু’টি দিক, একটি সাধারণ বীমা এবং অপরটি জীবন বীমা। দেশে উভয় ক্ষেত্রেই বীমার উল্লেখযোগ্য প্রসার ঘটেছে। ‘লাইফ ইনস্যুরেন্স’ এখন তৃণমুল পর্যায়েও সাড়া জাগিয়েছে। দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড যত বাড়বে সাধারণ বীমা করার প্রবণতাও তত বাড়বে।
অর্থমন্ত্রী বলেন, এখন মৌখিক লেনদেন নেই, সব আনুষ্ঠানিক লেনদেন। যার ফলে বীমার দায়িত্ব অনেক বেড়ে গেছে। তাছাড়া সাধারণ বীমা আনুষ্ঠানিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ঝুঁকি রোধ করে দেয়।

উদ্বোধন শেষে অর্থমন্ত্রী বিভিন্ন বীমা কোম্পানির বীমা দাবির চেক গ্রাহকদের কাছে হস্তান্তর করেন। প্রায় ৬ কোটি টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়।
দু’দিনের মেলায় সর্বমোট ১৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর করার কথা রয়েছে।
দেশের দু’টি সরকারি বীমা প্রতিষ্ঠান জীবন বীমা কর্পোরেশন এবং সাধারণ বীমা কর্পোরেশন ছাড়াও ৩০টি বেসরকারি বীমা কোম্পানীর স্টল রয়েছে এ মেলায়। এরমধ্যে ১৬টি লাইফ ইনস্যুরেন্স ও ১৪টি নন-লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী রয়েছে। আগামীকাল শনিবার বিকেল পর্যন্ত এ মেলা চলবে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.