আজ: বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪ইং, ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১১ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১০ মে ২০১৫, রবিবার |

kidarkar

বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৩১ জনকে নিয়োগের নির্দেশ

high courtশেয়ারবাজার ডেস্ক: বেসরকারি রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আরও ২৩১ প্রার্থীকে নিয়োগ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও নিয়োগ থেকে বঞ্চিত হয় তারা। এ বিষয়ে জারি করা রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে আজ ১০ মে, রোববার বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

জানা যায়, এর আগে বৃহস্পতিবার এ রকম আরও ১০ জনকে নিয়োগ দিতে হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

২০১০ সালের ১১ এপ্রিল রেজিস্ট্রার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয় প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞপ্তির ৩ নম্বর শর্তে উপজেলা ভিত্তিক নিয়োগের কথা বলা হয়। পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ শেষে  ২০১২ সালের ৯ এপ্রিল উত্তীণ ৪২ হাজার ৬১১ জনের তালিকা প্রকাশ করা হয়। তবে এর কয়েকদিন আগে ২০১২ সালের ২১ মার্চ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদফতর এক পরিপত্রে উপজেলা ভিত্তিক নয়, ইউনিয়ন ভিত্তিক নিয়োগের কথা জানায়। এরপর বিভিন্ন সময়ে প্রায় ১৪ হাজার জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

কিন্তু যারা নিয়োগ বঞ্চিত হয়েছেন, তাদের মধ্যে নওগাঁ জেলার ১০ জন ইউনিয়ন ভিক্তিক নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে এবং তাদেরকে নিয়োগের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করে। এ আবেদনের চূড়ান্ত শুনানি শেষে ২০১৪ সালের বছরের ১৮ জুন তাদের নিয়োগ দিতে নির্দেশ দিয়ে ইউনিয়ন ভিত্তিক নিয়োগের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্টর এ আদেশের বিরুদ্ধে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ অন্যরা আপিল করলে বৃহস্পতিবার তা খারিজ করেন আপিল বিভাগ।

এদিকে এ ১০ জন ছাড়াও পৃথকভাবে ২৩১ জন রিট করেছেন। রোববার এ রিটের রায় আসে। যাতে ওই ১০ জনের মতো ২৩১ জনকে নিয়োগের নির্দেশ দেওয়া হয়। ২৩১ জন প্রার্থীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সৈয়দ মামুন মাহবুব।

২০১৪ সালের ৮ ডিসেম্বর এ ২৩১ জন হাইকোর্টে রিট করেন। যাদের বাড়ি রাজশাহী, নওগাঁ, নাটোর, বগুড়া, চাঁপাইনব্বগঞ্জ, জয়পুরহাট, যশোর, টাঙ্গাইল ও ঝিনাইদহ জেলায়।

দুই ধাপে এরা ছাড়াও হাইকোর্ট আরও ২৬৮ জনকে গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছিল।

শেয়ারবাজারনউজ/মু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.