আজ: রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৭ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার |

kidarkar

ফারইস্টের সাবেক চেয়ারম্যানের দুর্নীতি তদন্তে গঠিত কমিটির বিষয়ে আপত্তি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের সাবেক চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতি তদন্তে গত ৪ অক্টোবর বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) যে কমিটি গঠন করেছে তা নিয়ে আপত্তি তুলেছেন কোম্পানিটির উদ্যোক্তা ও সাবেক পরিচালক মো. ফখরুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) তিনি এ সংক্রান্ত একটি আপত্তিপত্র কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বরাবর পাঠিয়েছেন। আপত্তি পত্রে তিনি একাধিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের লিংক সংযুক্ত করেছেন।

জানা গেছে, অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চিঠি এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বীমা আইন, ২০১০ এর ৮ ধারা অনুযায়ী গত ৪ অক্টোবর ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির সাবেক চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলামের দুর্নীতি তদন্তে কমিটি গঠন করে আইডিআরএ। আইডিআরএ’র (উপ-সচিব) লাইফ মো. শাহ্ আলম, পরিচালক (উপ-সচিব) আইন মোহাম্মদ শফিউদ্দীন, অফিসার মো. আবু মাহমুদ এবং জুনিয়র অফিসার মুহাম্মদ শামছুল আলমকে কমিটিতে রাখা হয়।

কমিটিকে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স চেয়ারম্যান কর্তৃক অবৈধ মানি লন্ডারিং এবং প্রশাসনে দুর্নীতি হয়েছে কি-না তা যাচাই বাছাই করতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান কর্তৃক ভূমি ক্রয়-বিক্রয়ে প্রতারণামূলকভাবে বিনিয়োগ দেখিয়ে অবৈধভাবে অর্থ আত্মসাৎ, কোম্পানির ফিক্সড ডিপোজিট থেকে অর্থ আত্মসাৎ, জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে বিনিয়োগ করে কোম্পানির অর্থ আত্মসাৎ করে থাকলে তা চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করতে বলা হয়েছে তদন্ত কমিটিকে। তদন্ত করে কমিটিকে ১০ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

আপত্তি পত্রে মো. ফখরুল ইসলাম বলেন,২০২০ সালে তদন্তে দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়ার পরও দুর্নীতিগ্রস্তদের দায়মুক্তি দিয়ে বিতর্কিত হওয়া কমিটি কীভাবে একটি নিরপেক্ষ, প্রভাবমুক্ত ও ফলপ্রসূ তদন্ত করতে পারে তা কিছুতেই আমার বোধগম্য নয়।

তিনি বলেন, এমতাবস্থায় ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের লাখো গ্রাহক ও শেয়ারহোল্ডারদের আমানত তসরুপ করে বিদেশে সাম্রাজ্য গড়ে তোলা দুর্নীতিবাজ প্রাক্তন চেয়ারম্যান ও পরিচালকদের শাস্তি নিশ্চিত করার কল্পে একটি নিরপেক্ষ, অবিতর্কিত, প্রভাবমুক্ত ও স্বচ্ছ তদন্ত কমিটি গঠন করার জন্য কোম্পানির একজন উদ্যোক্তা, সাবেক পরিচালক ও শেয়ারহোল্ডার হিসেবে জোর দাবি জানাচ্ছি।

এতে আরও বলা হয়েছে, আশা করি অনতিবিলম্বে একটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও অবিতর্কিত কমিটি গঠন করে সকল অপরাধীর শাস্তি সুনিশ্চিত করা হবে। অন্যথায় ন্যায়বিচার ভূলুণ্ঠিত হওয়ার পাশাপাশি নিম্নস্বাক্ষরকারীসহ (ফখরুল ইসলাম) কোম্পানির লাখো গ্রাহক ও শেয়ারহোল্ডাররা অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখীন হবে। যার দায় দায়িত্ব নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে আইডিআরএ কোনোভাবেই এড়াতে পারে না।

ফখরুল ইসলাম চিঠিতে যেসব সংবাদের লিংক সংযুক্ত করেছেন তাতে ২০২০ সালে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের বিরুদ্ধে কোটি কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগের কথা উঠে আসে। আবু হেনা মোস্তফা কামাল নামের এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ-আইডিআরএ। তদন্তে ফারইস্ট ইসলামী লাইফের বিরুদ্ধে অনিয়মের প্রমাণও মেলে।

কিন্তু রহস্যজনকভাবে কোম্পানি এবং ফারইস্ট লাইফের সে সময়ের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ না করে উল্টো অভিযোগকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে আইডিআরএ তদন্ত কমিটি।

আইডিআরএ’র ওই তদন্ত কমিটিতে পরিচালক মো. শাহ্ আলম এবং জুনিয়র অফিসার মুহাম্মদ শামছুল আলমকে রাখা হয়। নতুন করে নজরুল ইসলামের দুর্নীতি তদন্তের জন্য গঠিত চার সদস্যের কমিটিতেও এই দুই কর্মকর্তাকে রাখা হয়েছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.