আজ: সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ইং, ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৩ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০২ অগাস্ট ২০২২, মঙ্গলবার |


kidarkar

শেয়ারবাজারে তারল্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিএমবিএ’র সাথে বিএসইসির বৈঠক


নিজস্ব প্রতিবেদক : শেয়ারবাজারকে গতিশীল করতে বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের সাথে বৈঠক করেছে বাংলাদেশ সিকিউকিরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) বিকেলে বিএসইসি’র কমিশনার ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে বিএমবিএ’র প্রতিনিধিবৃন্দের সাথে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএসইসি’র নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম এবং এমএসআই বিভাগের ঊর্ধ্বতন কমকর্তাসহ বিএমবিএ’র সভাপতি সায়েদুর রাহমান ও অন্যান্য প্রতিনিধিরা।

সভায় বর্তমান বাজার পরিস্থিতি ও বাজার মধ্যস্থতাকারীদের ভূমিকার উপর আলোচনা করা হয়। এসময় শেয়ারবাজারে তারল্য বৃদ্ধি, বিনিয়োগকারীদের আস্থা তৈরিসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করা হয়। এসময় বিএমবিএ’র পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানসহ বেশ কিছু সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে রয়েছে-

১. বিগত সময়ে শেয়ার বিক্রির ফলে অনেক বিনিয়োগকারীর হিসাব (Account)-এ অলস তহবিল পড়ে আছে, যারা বর্তমানে নিষ্ক্রিয় (Inactive) অবস্থায় রয়েছে। এসব বিনিয়োগকারীদের উদ্বুদ্ধকরনের মাধ্যমে শেয়ারবাজারে পুনরায় বিনিয়োগের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা। যা বাজারে চাহিদা ও তারল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে শেয়ারবাজারকে গতিশীল করতে সহায়ক হবে।

২. মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর ক্লায়েন্ট সাইজ অনেক বড়। তাদের মধ্যে অনেক ইন-অ্যাকটিভ অ্যাকউন্ট আছে যাদের সঙ্গে কার্যকর যোগাযোগসহ উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে শেয়ারবাজারে নতুন বিনিয়োগের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রে মার্চেন্ট ব্যাংক ও পোর্টফোলিও ম্যানেজারের কর্মকর্তাগণ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। যা বাজারে চাহিদা ও তারল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে শেয়ারবাজারকে গতিশীল করতে সহায়ক হবে।

৩. বিগত সময়ে কিছু সংখ্যক মার্চেন্ট ব্যাংক ও পোর্টফোলিও ম্যানেজার নিজস্ব পোর্টফোলিও হিসাব থেকে কিছুটা বিক্রয় চাপ ছিল। ফলে তাদের হিসাবে বর্তমানে কিছুটা বিনিয়োগ যোগ্য তহবিল রয়েছে তা থেকে প্রত্যেক মার্চেন্ট ব্যাংকারদের নিজস্ব পোর্টফোলিওতে অন্ততপক্ষে ১০% নতুন বিনিয়োগ শেয়ারবাজারে আনতে হবে মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। যা বাজারে চাহিদা ও তারল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে শেয়ারবাজারকে গতিশীল করতে সহায়ক হবে।

৪. দেশের শেয়ারবাজারে সাধারণ বিনিয়োগকারীর তুলনায় প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর সংখ্যা অনেক কম। এ সংখ্যা বৃদ্ধির মাধ্যমে শেয়ারবাজারে স্থিতিশীলতা আনয়নে মার্চেন্ট ব্যাংক ও পোর্টফোলিও ম্যানেজারগণ প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করবে মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণকে দায়িত্ব প্রদান করতে হবে এবং বিনিয়োগকারীকে বিনিয়োগে উদ্বুদ্ধ করে বাজারে আনতে হবে, যা বাজারের বিনিয়োগ বাড়াতে এবং একইসাথে বাজারের স্থিতিশীলতা আনয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.