আজ: বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২ইং, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৪ অগাস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

এক দশক পর পরিবারকে কাছে পেয়ে বাকরুদ্ধ ক্রিকেটার!

স্পোট ডেস্ক:সেই কিশোর বেলায় ঘর ছেড়েছিলেন কুমার কার্তিকেয়া সিং। স্বপ্নপূরণের লক্ষ্যে শান্তির নীড় ছেড়ে অনিশ্চিত যাত্রা করেছিলেন তিনি। কিছু অর্জনের তাগিদ থেকে পরিবার-পরিজন ছেড়ে নিজের ধ্যান-জ্ঞান করেছিলেন ক্রিকেটকে। অবশেষে সাফল্য ধরা দিয়েছে, তার দল মধ্যপ্রদেশ ভারতের সম্মানজনক ঘরোয়া টুর্নামেন্ট রঞ্জি ট্রফির ২০২১-২২ সংস্করণ জয় করেছে। বিজয় কেতন উড়িয়ে শেষ পর্যন্ত ঘরের ছেলে ঘরে ফিরেছেন, মাঝখানে পেরিয়ে গেছে ৯ বছর ৩ মাস!

প্রায় এক দশক পর পরিবারের কাছে ফিরেছেন কুমার কার্তিকেয়া। দীর্ঘ সময় পর মায়ের দেখা পেয়ে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন তিনি। সামাজিক মাধ্যমে মায়ের সঙ্গে একটি ছবি শেয়ার করে কার্তিকেয়া লিখেছেন, ‘৯ বছর ৩ মাস পর আমার পরিবার আর মায়ের সঙ্গে দেখা হলো। এই অনুভূতি প্রকাশের ভাষা নেই আমার কাছে।’

মধ্যপ্রদেশের ২০২১-২২ রঞ্জি ট্রফির শিরোপা জয়ে সামনে থেকে অবদান রেখেছেন কার্তিকেয়া। আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী ১১ ইনিংসে ৩২ উইকেট নিয়েছেন, যার মাঝে ইনিংসে পাঁচ উইকেট পেয়েছেন ৩ বার। ‘ভার্সেটাইল’ স্পিনার হিসেবে ভারতীয় ক্রিকেটে এরই মধ্যে সুনাম কুড়িয়েছেন ২৪ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার। তার তূণে আছে লেগ ব্রেক, গুগলি, ফিঙ্গার স্পিন এবং ক্যারম বলের মতো অস্ত্র।

ক্রিকেট.কমের সঙ্গে আলাপচারিতায় এত বছর ধরে পরিবারের কাছে না যাওয়ার কারণ জানিয়ে কার্তিকেয়া বলেন, ‘বাড়িতে যাওয়ার মতো সময় আমার ছিল। তবে শেষবার যখন বাবার সঙ্গে কথা বলি, তিনি আমাকে বলেছিলেন, যেহেতু তুমি চলেই গেছ, কিছু অর্জন করে তবেই ফিরে এসো। প্রত্যুত্তরে আমি শুধু একটা শব্দই বলেছিলাম, ‘জি’। আর যেহেতু আমি ‘জি’ বলেছিলাম, তাই আমি বাড়ি যাইনি। শুধু কিছু অর্জন করতে পারলেই বাড়ি যাব।’

শুধু বাড়িতে যাওয়াই নয়, গৃহত্যাগের কিছু সময় পর ভিডিও কলেও পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করেন দেন কার্তিকেয়া। ভিডিও কলে যোগাযোগ বিচ্ছিন্নের কারণ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভিডিও কল করা বন্ধ করা দিয়েছিলাম কারণ মা কাঁদত।আমি কল করলেই মা আবেগি হয়ে পড়ত। তাই আমি শুধু ভয়েস কল করতাম। রঞ্জি ট্রফি জয়ের পর ভিডিও কল করেছিলাম, আইপিএলে দল পাওয়ার পরও ভিডিও কলে কথা হয়েছিল। এর আগে ২০১৮ সালে রঞ্জিতে সুযোগ পাওয়ার পর কল করেছিলাম।’

আইপিএলের গেল মৌসুমে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে অভিষেক হয়েছে কার্তিকেয়ার। আরশাদ খান চোটে পড়ার পর দলে সুযোগ পান তিনি। অভিষেক ম্যাচের প্রথম ওভারেই রাজস্থান রয়্যালস অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসনকে সাজঘরের পথ চেনান এই উদীয়মান স্পিনার।

১৯৯৭ সালের ২৬ ডিসেম্বর উত্তর প্রদেশের কুয়াসিতে জন্ম হয় কার্তিকেয়ার। ২০১৮-১৯  বিজয় হাজারে ট্রফিতে মধ্যপ্রদেশের হয়ে লিস্ট-এ অভিষেক হয় তার। একই বছর রঞ্জি ট্রফিতেও প্রথমবার মাঠে নামেন তিনি। ২০১৯ সালে সৈয়দ মুশতাক ট্রফি দিয়ে ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম ফরম্যাট টি-টোয়েন্টিতে অভিষিক্ত হন তিনি।

 

শেয়ারবাজার নিউজ/খা.হা.

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.