আজ: শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪ইং, ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০১ অক্টোবর ২০২২, শনিবার |

kidarkar

নারী উদ্যোক্তা তৈরিতে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির তত্ত্বাবধানে ব্র্যাক ব্যাংক-এর একটি বিশেষ উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারী উদ্যোক্তাদের জন্য পরিচালিত এন্ট্রাপ্রেনিউর ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম – ‘উদ্যোক্তা ১০১’-এর অনলাইন রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে।

ব্যাঙ্কের নারী ব্যাঙ্কিং সেগমেন্ট ‘তারা’-এর উদ্যোগে ‘উদ্যোক্তা ১০১’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মসূচিটি দেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ এন্ট্রাপ্রেনিউর অ্যাক্সিলারেটর প্রোগ্রাম।

ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি ও ব্র্যাক বিজনেস স্কুল প্রশিক্ষণটির নলেজ ও ট্রেইনিং পার্টনার। এই প্রোগ্রামটি নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবসায়িক ব্যবস্থাপনা জ্ঞান ও উদ্যোক্তা দক্ষতাকে শানিত করবে এবং তাদের ব্যবসাকে টিকিয়ে রাখতে ও সম্প্রসারিত করতে সহায়তা করবে। এই অ্যাক্সিলারেটর প্রোগ্রামটি নারী উদ্যোক্তাদেরকে তাদের ব্যবসায় সফল হতে সহায়তা করবে।

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ থেকে শুরু করে, উদ্যোক্তারা ১৫ অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত https://www.bracbank.com/uddokta_101/   এ অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। বাছাই প্রক্রিয়া শেষে, ১৩-সপ্তাহের প্রশিক্ষণটি ৫ নভেম্বর ২০২২ থেকে শুরু হবে। ক্লাসটি প্রতি শনিবার তিন ঘণ্টার জন্য ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাস ঢাকার মহাখালীতে অনুষ্ঠিত হবে। কোর্সটি শ্রেণীকক্ষে ও আউটডোর সেটিংসে পরিচালিত হবে, যাতে সম্ভাবনাময় এই উদ্যোক্তারা ব্যবসা গড়ে তোলা, টিকিয়ে রাখা ও সম্প্রসারিত করার জন্য ব্যবহারিক জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেন।

তিন মাসব্যাপী প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী উদ্যোক্তারা বিজনেস প্ল্যান, রেকর্ড কিপিং, অ্যাকাউন্টিং, ট্যাক্সেশন, কমপ্লায়েন্স, এইচআর ম্যানেজমেন্ট, অপারেশনস ও সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট, ই-বিজনেস, রপ্তানি-আমদানি ব্যবস্থাপনা এবং ব্যবসা ব্যবস্থাপনার আরও গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলো সম্পর্কে বিস্থারিত ধারণা পাবেন। ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির অভিজ্ঞ শিক্ষক ও ব্র্যাক ব্যাংক-এর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ প্রশিক্ষণ পরিচালনা করবেন।

‘উদ্যোক্তা ১০১’ এর আওতায় ব্র্যাক ব্যাংক এবং ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি এক বছরে চারটি ব্যাচ পরিচালনা করবে, যার প্রতিটিতে ৩০ জন করে নারী উদ্যোক্তা থাকবেন। ব্র্যাক ব্যাংক মোট কোর্স ফি এর ৮০% বহন করবে এবং ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি রিসোর্স পার্সন, মডিউল, রিসার্চ এবং লজিস্টিক সহায়তা প্রদান করবে।

প্রোগ্রামের শেষে, প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীকে বিচারকদের একটি প্যানেলের সামনে বিজনেস কেস উপস্থাপন এবং ফান্ডিংয়ের জন্য প্রস্তাব পেশ করতে হবে। এর মধ্য থেকে তিনজন বিজয়ীকে বিশেষ পুরস্কার দেওয়া হবে। তারা বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে তিন দিনব্যাপী মেলায় পণ্য প্রদর্শনের সুযোগ পাবেন, যা তাদের পণ্যের পরিচিতি বাড়াতে এবং পণ্য ও সেবার বাজারজাত করতে সহায়ক হবে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.