আজ: শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪ইং, ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৮ জানুয়ারী ২০২৩, শনিবার |

kidarkar

সাসটেইনেবল অ্যাপারেল ফোরাম আয়োজনে অংশীদার এসএসি ও বিএই

নিজস্ব প্রতিবেদক সাসটেইনেবল অ্যাপারেল ফোরাম আয়োজনে অংশীদার এসএসি ও বিএই
চতুর্থ সাসটেইনেবল অ্যাপারেল ফোরাম আয়োজন করতে সাসটেইনেবল অ্যাপারেল কোয়ালিশন (এসএসি), বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জ (বিএই) এর কৌশলগত অংশীদার হয়েছে।
সাসটেইনেবল অ্যাপারেল কোয়ালিশন (এসএসি), একটি স্বাধীন এবং প্রভাব সৃষ্টিকারী সংস্থা, যা পোশাক শিল্পের প্রায় অর্ধেককে একত্রিত করে সামাজিক ও পরিবেশগত ইতিবাচক প্রভাব বিস্তারে সক্ষম।
এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, টেক্সটাইল এবং পোশাক শিল্পের মধ্যে কীভাবে টেকসইতাকে এগিয়ে নেওয়া যায় সে সম্পর্কে আলোচনা এবং স্টেকহোল্ডারদের ধারণা বিনিময় এ ইভেন্টের উদ্দেশ্য।
চলতি বছরে ১৫ ও ১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া চতুর্থ সাসটেইনেবল অ্যাপারেল ফোরাম পোশাক এবং টেক্সটাইল খাতের জন্য পাঁচটি মূল বিষয়ের উপর ফোকাস করবে: সার্কুলার অর্থনীতি, জলবায়ু প্রভাব এবং কর্ম, নবায়নযোগ্য শক্তি এবং সবুজ তহবিল, দক্ষতা উন্নয়ন এবং সবুজ কাজের সম্ভাবনা এবং চ্যালেঞ্জগুলো।
এ আয়োজনে প্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্থিত থাকবেন পোশাক উৎপাদকারীরা, ব্র্যান্ড এবং খুচরা বিক্রেতা, উন্নয়ন সহযোগী, বাংলাদেশে বিদেশী মিশন এবং দূতাবাস প্রতিনিধিরা, প্রভাব সৃষ্টিকারী সংস্থা, পোশাক ও বস্ত্র সমিতি, শিল্প নেতা, সরকারি কর্মকর্তা, সচিব এবং মন্ত্রীরা।
ইভেন্টের প্রথমদিনে গোলটেবিল আলোচনা এবং কর্মশালার সেশন রাখা হয়েছে। আর দ্বিতীয় দিন সরকারি কর্মকর্তা এবং শিল্প নেতাদের কৌশলগত নির্দেশিকাসহ প্যানেল আলোচনা, উপস্থাপনা এবং মূল বক্তব্য থাকবে।
এসএসি এর প্রতিনিধিত্ব করবেন বোর্ডের পরিচালক বিধুরা রাপানাওয়ে, মেম্বারশিপ এবং স্টেকহোল্ডার এনগেজমেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রু মার্টিন, কালেক্টিভ অ্যাকশন প্রোগ্রামের ডিরেক্টর জয়েস সোই এবং অন্যান্য দলের সদস্যরা।
এতে উৎপাদনকারীদের জন্য বিশেষ কর্মশালা আয়োজন করা হবে। এছাড়া এতে আরও অংশগ্রহণ করবেন স্টেকহোল্ডারা।
অ্যান্ড্রু মার্টিন বলেছেন, “শিল্পকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জকে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা সম্মানিত। অংশীদারিত্বসহ একটি সংস্থা হিসাবে এবং টেকসইতার জন্য একটি ভিশনের দিকে শিল্পকে পরিচালনা করতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি অংশীদারিত্ব হল নতুন নেতৃত্ব। সাসটেইনেবল অ্যাপারেল ফোরাম বিশ্বের দক্ষিণে আমাদের সহযোগিতাকে আরও গভীরভাবে উপস্থাপন করবে। এটি নিশ্চিত চূড়ান্তভাবে রূপান্তরিত করার জন্য প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।
বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও মোস্তাফিজ উদ্দিন বলেছেন, “পোশাক শিল্পের প্রচারের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জ। এর অন্যতম উদ্দেশ্য হল তার বহুমুখী এবং অর্থপূর্ণ উদ্যোগের মাধ্যমে শিল্পের টেকসই বৃদ্ধি নিশ্চিত করা। বেশ কয়েক বছর ধরে আমাদের দীর্ঘমেয়াদী অংশীদার এসএসি। বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জ বিশ্বাস করে টেকসইতা, প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবন পোশাক শিল্পের অগ্রগতির চাবিকাঠি। এসএসি এর সাথে একত্রে কাজ করার মধ্য দিয়ে সোর্সিং বৃদ্ধি করতে সক্ষমতা বাড়বে এবং শিল্পের স্থায়িত্ব, উদ্ভাবন, প্রযুক্তি এবং স্বচ্ছতার প্রচারের মাধ্যমে পোশাক শিল্পের অগ্রগতি হবে।”
এর আগে ২০১৯ সালে দ্বিতীয় সাসটেইনেবল অ্যাপারেল ফোরাম আয়োজন করা হয়েছিল। তখনও বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জের সাথে অংশীদারি ছিল এসএসি। একটি কৌশলগত অংশীদার হিসাবে এসএসি নতুন নতুন ক্ষেত্র খুঁজে বের করতে সহযোগিতা করবে। কারণ এটি একটি বৈশ্বিক পণ্য শিল্প হিসেবে কাজ করে।
কীভাবে শিল্পকে রূপান্তর করে অগ্রগতি ও ত্বরান্বিত করা যায় সেজন্য ইভেন্টটিতে আগ্রহী অংশগ্রহণকারীদের নিবন্ধন করতে এবং অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের সাথে আলোচনা এবং নেটওয়ার্কিং সেশনে যোগদানের জন্য উন্মুক্ত।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.