আজ: মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪ইং, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, সোমবার |

kidarkar

ডিএসই’র ফিক্স সার্টিফিকেশন পেল ৩ প্রতিষ্ঠান

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিটি ব্রোকারেজ লিমিটেড, ফাস্ট ক্যাপিটাল সিকিউরিটিজ লিমিটেড এবং শান্তা সিকিউরিটিজ লিমিটেড-কে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিঃ ফিক্স সার্টিফিকেশন প্রদান করা হয়েছে।

সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম সাইফুর রহমান মজুমদার, এফসিএ, এফসিএমএ ডিএসই’র ট্রেনিং একাডেমি, লেভেল-১৩, নিকুঞ্ছ, ঢাকায় উপস্থিত থেকে তিনটি প্রতিষ্ঠানকে ফিক্স সার্টিফিকেশন প্রদান করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিটি ব্রোকারেজ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মিসবাহ উদ্দিন আফফান ইউসুফ, ফার্স্ট ক্যাপিটাল সিকিউরিটিজ-এর সিইও মুহাম্মদ কাউসার আল মামুন এবং শান্তা সিকিউরিটিজ এর সিইও কাজী আসাদুজ্জামান সহ প্রতিষ্ঠানসমূহের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ৷ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন প্রোডাক্ট এন্ড মার্কেট ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্টের উপ-মহাব্যবস্থাপক সাইয়ি্যদ সাইয়িদ মাহমুদ জুবায়ের।

এই প্রক্রিয়ায় সিটি ব্রোকারেজ লিমিটেড এবং শান্তা সিকিউরিটিজ লিমিটেড-এর ওএমএস ভেন্ডর ছিল ডিরেক্টএফএন (DirectFN) এবং ফার্স্ট ক্যাপিটাল সিকিউরিটিজ লিমিটেড এর ছিল ইকোসফট বিডি (Ecosoft BD)। ভেন্ডর প্রতিনিধি ডিরেক্টএফএন এশিয়া জোন-এর হেড অব বিজনেস এন্ড স্ট্রাটেজি আমির শামস, ইকোসফটবিডি আইটি লিমিটেড এর চীফ পরিচালন কর্মকর্তা সোহেল রানা এবং সিটি ব্রোকারেজ লিমিটেড এবং শান্তা সিকিউরিটিজ লিমিটেড-এর পরামর্শক হাইমদলার এন্ড কোং-এর কনসালটেন্ট নিজাম উদ্দিন আহমেদ।

নিজস্ব অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম গ্রহণের ধারাবাহিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে তিনটি প্রতিষ্ঠান ইউজার এক্সেস্টটেন্স টেস্টিং (User Acceptance Testing) কার্যক্রম সফলতার সাথে সম্পন্ন করে৷ প্রতিষ্ঠানগুলোর নিজস্ব অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (ওএমএস) চালুর পূর্ববর্তী ধাপ হলো-ফিক্স সার্টিফিকেশনের (Fix Certification)৷ ওএমএস Go Live-এ যাওয়ার জন্য ডিএসই’র ম্যাচিং ইঞ্জিন ও ব্রোকার হোসে্টড অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের (ওএমএস) এর System Compatibility যাচাইয়ের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হলো ফিক্স সার্টিফিকেশন৷ সিটি ব্রোকারেজ লিমিটেড, ফাস্ট ক্যাপিটাল সিকিউরিটিজ লিমিটেড এবং শান্তা সিকিউরিটিজ লিমিটেড ফিক্স সার্টিফিকেশনের জন্য টেস্ট কেসের কার্যক্রম ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে সফলতার সাথে সম্পন্ন করে৷

ফিক্স সার্টিফিকেশন প্রদান অনুষ্ঠানে ডিএসই’র ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম. সাইফুর রহমান, এফসিএ, এফসিএমএ বলেন, আজ ডিএসই’র জন্য স্মরণীয় একটি দিন। প্রযুক্তিগত উন্নয়নের সাথে সাথে পুঁজিবাজারেরও উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে। আট-দশ বছর আগে ডিএসই শুধুমাত্র একটি সেন্ট্রাল অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সম্বলিত ম্যাচিং ইঞ্জিন কিনেছিল। কার্যত তখন একইসময় অনেক ওএমএস সংযোগ দেওয়া যেতে পারে তা বিবেচনা বা চিন্তা করা হয়নি। এখন ডিএসই’র ট্রেকহোল্ডারদের ভিন্ন ভিন্ন ওএমএস সিস্টেম ব্যবহারের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এই ওএমএস এ‍র অন্তর্ভূক্তির নতুন প্রক্রিয়া পরিচালনার ক্ষেত্রে আমি সকলকে সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য আহবান জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, ডিএসই ইতোমধ্যে ফিক্স সার্টিফিকেশন দেওয়ার সক্ষমতা অর্জন করেছে। এখন ডিএসই, প্রযুক্তি প্রদানকারী ও ব্রোকারেজ হাউজগুলো একসাথে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। ডিএসই প্রতিনিয়ত নতুন নতুন প্রযুক্তির অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে পুঁজিবাজার উন্নয়নের জন্য কাজ করছে। আমি আশা করি ডিএসই অচিরেই আধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত আন্তর্জাতিকমানের এক্সচেঞ্জে পরিণত হবে।

এর আগে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও মহাব্যবস্থাপক মোঃ তারিকুল ইসলাম স্বাগত বক্তব্যে বলেন, এপিআই ইউএটি এর অনেক সুবিধা রয়েছে। এখানে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা ফিক্স করে দেয়া হয়েছে। নিজস্ব ওএমএস চালু করার জন্য একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া পাড়ি দিতে হয়। এ ক্ষেত্রে ডিএসই সীমিত লোকবল নিয়ে আপনাদের সব্বোর্চ সেবা দেয়ার চেষ্টা করেছে। ট্রেকহোল্ডারদের নিজস্ব ওএমএস চালু ও ব্যবহারের ক্ষেত্রে ডিএসই’র আইটি বিভাগ সব সময় আপনাদের সমর্থন করবে।

সিটি ব্রোকারেজ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মিসবাহ উদ্দিন আফফান ইউসুফ বলেন, ফিক্সড সার্টিফিকেট গ্রহন আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। আমরা ২০২১ সালে সার্টিফিকেট গ্রহন করি। আমরা সে সময় সার্টিফিকেটটি ফিক্সনক্স এর কাছ থেকে নিয়েছিলাম, এর কিছুদিনের মধ্যে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এই সার্টিফিকেট প্রদানের সক্ষমতা অর্জন করে। যা ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের জন্য একটি বড় অর্জন। এর মাধ্যমে আমরা আমাদের বিনিয়োগকারীদের আরও উন্নত সেবা প্রদান করতে পারবো।

ফার্স্ট ক্যাপিটাল সিকিউরিটিজ লিমিটেড-এর সিইও কাওসার মুহাম্মদ কাউসার আল মামুন বলেন, বাংলাদেশের পুঁজিবাজারকে বিশ্বের সাথে তাল মিলানোর জন্য যে প্রক্রিয়া সেটি আজকে আমরা সম্পন্ন করতে পেরেছি। সারা বিশ্বে আজ আধুনিক পদ্ধতিতে লেনদেন করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে আমরা অনেক পিছিয়ে ছিলাম। কিন্তু বর্তমানে আমরা আমাদের লেনদেন প্রক্রিয়াকে আর্ন্তজাতিকমানে উন্নিত করতে পেরেছি। এখন শুধু বাকী রয়েছে রোবটিক ট্রেডিং। আশাকরি এটি আমরা অল্প সময়ে মধ্যে করতে পারবো। আর পুঁজিবাজারে বিভিন্ন সেবা চালুর মাধ্যমে আমাদের পুঁজিবাজার বিশ্বমানের পুঁজিবাজারে পরিণত হবে।

শান্তা সিকিউরিটিজ এর সিইও কাজী আসাদুজ্জামান বলেন, শান্তা সিকিউরিটিজ তার সূচনালগ্ন থেকেই বিনিয়োগকারীদের উন্নত সেবা প্রদানের জন্য সচেষ্ট। ডিএসই যখন নিজস্ব অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে লেনদেন সুবিধা চালু করে শান্তা সিকিউরিটিস দ্রুত এ সুবিধা গ্রহণের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করে। এটি অত্যন্ত দীর্ঘ প্রক্রিয়া হবার কারনে এর সাথে যারা জড়িত ছিলেন আমি সকলকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা সব সময় বিনিয়োগকারীদের সুবিধা দেয়ার জন্য উন্নত প্রযুক্তি গ্রহণে প্রস্তুত রয়েছি। এক্ষেএে আমরা ডিএসই’র সহযোগিতা চাই।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.