আজ: বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৬ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৪ মার্চ ২০২৩, মঙ্গলবার |

kidarkar

২২ হাজার বিক্ষোভকারীকে ক্ষমা করল আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ২২ হাজার বিক্ষোভকারীকে ক্ষমা করে দিয়েছে ইরান। ক্ষমাপ্রাপ্ত এসব বিক্ষোভকারী সরকারবিরোধী প্রতিবাদ-বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলেন। ইরানের বিচার বিভাগের প্রধান এই তথ্য জানিয়েছেন বলে মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) দেশটির সরকারি বার্তাসংস্থা আইআরএনএ’র বরাতে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সরকারবিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ২২ হাজার মানুষকে ইরানের বিচার বিভাগীয় কর্তৃপক্ষ ক্ষমা করেছে বলে সোমবার জানিয়েছেন দেশটির বিচার বিভাগের প্রধান গোলাম হোসেইন মোহসেনি ইজেই।

এর আগে পশ্চিম এশিয়ার এই দেশটির রাষ্ট্রীয় মিডিয়া গত মাসের প্রথম দিকে জানিয়েছিল, ভিন্নমতের বিরুদ্ধে মারাত্মক দমন-পীড়নের সময় বিক্ষোভ থেকে গ্রেপ্তার হওয়া কয়েকজন-সহ ‘হাজার হাজার’ বন্দিকে ক্ষমা করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি।

গোলাম হোসেইন মোহসেনি ইজেই বলেছেন, ‘(বিক্ষোভে) অংশ নিয়ে গ্রেপ্তার হওয়া ২২ হাজার জনসহ এখন পর্যন্ত ৮২ হাজার মানুষকে ক্ষমা করা হয়েছে।’

অবশ্য এসব ব্যক্তিদের কোন মেয়াদে ক্ষমা মঞ্জুর করা হয়েছে বা কখন এই লোকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছিল সেটি তিনি উল্লেখ করেননি।

উল্লেখ্য, গত সেপ্টেম্বরে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে থাকাকালীন মাহসা আমিনি নামের এক তরুণীর মৃত্যুর পর দেশটিতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। দেশটিতে হিজাব পরার কঠোর বিধান লঙ্ঘনের দায়ে ওই সময় নৈতিকতা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছিল।

মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর ইরানে শুরু হওয়া বিক্ষোভ এখনও চলছে। চলমান এই বিক্ষোভ বিদেশিদের ইন্ধনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে ইরানের কর্তৃপক্ষ। বিক্ষোভ মোকাবিলায় ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী প্রাণঘাতী শক্তি ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা।

মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলেছে, নিরাপত্তা বাহিনীর অতিরিক্ত বলপ্রয়োগের কারণে চলমান বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত ৫ শতাধিক বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭০ জন শিশুও রয়েছে। এছাড়া বিক্ষোভ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে আরও প্রায় ২০ হাজার মানুষকে।

তবে হিজাববিরোধী বিক্ষোভে সহিংসতা চালানোর অভিযোগে এক বিক্ষোভকারীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পর পশ্চিম এশিয়ার এই দেশটিতে বিক্ষোভের গতি কিছুটা ধীর হয়েছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.