আজ: রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৪ মার্চ ২০২৩, মঙ্গলবার |

kidarkar

বাংলাদেশের জন্য আর্থিক সহায়তা বাড়াতে প্রস্তুত এডিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশের মূল উন্নয়নের জন্য আর্থিক সহায়তা বাড়াতে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি) প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির প্রেসিডেন্ট মাসাতসুগু আসাকাওয়া।

মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) রাজধানীর হোটেল কন্টিনেন্টালে ‘বাংলাদেশ ও এডিবির ৫০ বছর পূর্তি উদ্‌যাপন’ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন এডিবি প্রধান।

এডিবি বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারিত্ব প্রসারিত করবে জানিয়ে আসাকাওয়া বলেন, ২০৩১ সালের মধ্যে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করবে এডিবি।

সংস্থাটির প্রধান বলেন, বাংলাদেশের মূল উন্নয়ন অগ্রাধিকারের জন্য আর্থিক সহায়তা বাড়াতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ আমরা। গত দেড় দশক ধরে বেসরকারি খাতের সম্পৃক্ততার মাধ্যমে স্থির ও অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হয়েছে বাংলাদেশের। দেশটির এই রূপান্তরিত হওয়া আমি প্রত্যক্ষ করেছি। বাংলাদেশের কাছে এডিবি আরও সমৃদ্ধ, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই উন্নয়ন প্রত্যাশা করে।

টেকসই উন্নয়নে বাংলাদেশকে আরও বড় আকারে সহায়তা করার কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করে আসাকাওয়া বলেন, বিশেষ করে গত দেড় দশকে ২০১৩ থেকে ২০২২ সালের মধ্যে বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদন গড়ে প্রায় ৬ দশমিক ৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছিল। ২০১৯ সালে কোভিড মহামারির ঠিক আগে ৭ দশমিক ৯ শতাংশে পৌঁছে জিডিপি প্রবৃদ্ধি। ২০১৫ সালে বাংলাদেশ নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশের মর্যাদা পায়। মাথাপিছু মোট জাতীয় আয় ১ হাজার ২১০ ডলারে পৌঁছেছিল। এটি ২০২২ সালের মধ্যে ২ হাজার ৭৯৩ ডলারে উন্নীত হয়। ২০২৬ সালের মধ্যে স্বল্পোন্নত দেশের মর্যাদা থেকে গ্রাজুয়েশন হওয়ার পথে রয়েছে বাংলাদেশ।

এডিবি জানায়, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেলওয়ে প্রকল্পের অধীনে একটি রেল স্টেশন এবং এডিবি জরুরি সহায়তা প্রকল্পের অধীনে আশ্রয়প্রাপ্ত লোকদের জন্য কক্সবাজার ক্যাম্পে একটি পানি সরবরাহ সুবিধাসহ এডিবি অর্থে বাস্তবায়িত নানা প্রকল্প পরিদর্শন করবেন মাসাতসুগু আসাকাওয়া। এছাড়াও তিনি একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি এবং স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের অধীনে একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র পরিদর্শন করবেন।

বাংলাদেশ ও এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এডিবি) অংশীদারিত্বের ৫০ বছর উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে ঢাকা সফরে রয়েছেন এডিবির প্রেসিডেন্ট। গত ১২ মার্চ বাংলাদেশ পৌঁছান তিনি। ১৬ মার্চ পর্যন্ত তার ঢাকায় অবস্থানের কথা রয়েছে। আসাকাওয়া তার ৫ দিনের সফরের অংশ হিসেবে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এবং অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ১৯৭৩ সালে এডিবিতে যোগ দেয়। ১৯৮১ সালে একটি মাঠ অফিস হোস্ট করার জন্য প্রথম এডিবি সদস্য হয়। সংস্থাটি প্রায় ৫০ বিলিয়ন ডলার ঋণ, অনুদান এবং সহ-অর্থায়নসহ প্রযুক্তিগত সহায়তা সংগ্রহ করেছে। এডিবি চরম দারিদ্র্যতা দূরীকরণের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখে একটি সমৃদ্ধ, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ১৯৬৬ সালে এডিবি প্রতিষ্ঠিত হয়, সংস্থাটির সদস্যভুক্ত দেশ ৬৮টি।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.