আজ: বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪ইং, ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৯ মে ২০২৩, মঙ্গলবার |

kidarkar

অগমেডিক্স আয়োজিত বিশেষ সেমিনার অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: অগমেডিক্স বাংলাদেশ-এর আয়োজনে ‘ইউজিং এআই টু জেনারেট দ্য নেক্সট-জেনারেশন মেডিকেল ডকুমেন্ট’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্প্রতি রাজধানীর বনানীতে বুয়েট গ্র্যাজুয়েটস ক্লাবে আয়োজিত হয় এই সেমিনার, যার লক্ষ্য ছিল মেডিকেল ডকুমেন্টেশনের জন্য কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই)-ভিত্তিক সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিতের গুরুত্ব তুলে সম্পর্কে আলোচনা করা।

সেমিনারটি পরিচালনা করেন অগমেডিক্স বাংলাদেশ-এর চীফ টেকনোলজি অফিসার সৌরভ চ্যাটার্জি, পিএইচডি। দেশের চিকিৎসা খাতের পেশাদার, গবেষকবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তী প্রজন্মের মেডিকেল ডকুমেন্ট তৈরিতে কীভাবে দক্ষতার সাথে এআই ব্যবহার করা সম্ভব সে বিষয়ে সেমিনারে আলোচনা করা হয়।

মূল বক্তব্যে, স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে এআই প্রযুক্তি ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন সৌরভ চ্যাটার্জি, পিএইচডি। তিনি দক্ষতা বৃদ্ধি, নির্ভুলতা ও স্বচ্ছতা, এবং মেডিকেল ডকুমেন্টেশনের অ্যাক্সেসযোগ্যতা ইত্যাদির মতো এআই-এর সম্ভাব্য সুবিধাগুলো আলোচনায় তুলে ধরেন।

সেমিনারে অগমেডিক্স বাংলাদেশ-এর কান্ট্রি ডিরেক্টির রাশেদ নোমান বলেন, “এই সেমিনারে কীভাবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) ব্যবহার রোগীদের সাথে চিকিৎসকদের যোগাযোগ আরও সহজ ও উন্নত করতে পারে, সে বিষয়ে আমরা আলোচনা করেছি এবং এমন একটি অনুষ্ঠান আয়োজন করতে পেরে আমরা আনন্দিত। যেহেতু স্বাস্থ্যসেবা খাতে প্রতিনিয়তই নতুন ও গেইম-চেঞ্জিং এআই উন্মোচিত হচ্ছে, সবার মনেই প্রশ্ন জাগছে প্রযুক্তি দ্বারা কীভাবে স্বাস্থ্যসেবার ভবিষ্যত পরিবর্তন হতে পারে! আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসা খাতে এআই-এর সুবিধাগুলি সরাসরি দেখতে পাচ্ছি, এবং ভবিষ্যতে বাংলাদেশেও তেমনটি দেখতে চাই।”

সেমিনারে অটোমেটেড মেডিকেল ডকুমেন্টেশন, ক্লিনিক্যাল ডিসিশন সাপোর্ট, ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং, ইলেকট্রনিক হেলথ রেকর্ড অপ্টিমাইজেশন, এবং প্রেডিক্টিভ অ্যানালিস্টিকস বিষয়ক বেশকিছু তথ্যপূর্ণ পর্ব আলোচনা করা হয়। সেমিনারটি একটি প্যানেল আলোচনার মাধ্যমে সমাপ্ত হয়, যেখানে অংশগ্রহণকারীদের মত বিনিময় এবং পরবর্তী প্রজন্মের মেডিকেল ডকুমেন্ট তৈরিতে এআই ব্যবহারের চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করা হয়। এআই ব্যবহারে স্বাস্থ্য খাতকে রূপান্তরিত করা সম্ভব বলে প্যানেলিস্টরা একমত হন। একইসাথে রোগীদের সেরা যত্ন ও চিকিৎসা অভিজ্ঞতা নিশ্চিতে এই প্রযুক্তিগুলো ব্যবহারের আহ্বান জানানো হয়।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.