আজ: শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ইং, ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১০ মে ২০২৩, বুধবার |

kidarkar

বহুজাতিক কোম্পানির ব্যবসায় মন্দা

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : দেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায় মন্দা দেখা দিয়েছে। এর প্রভাব দেখা গেছে লভ্যাংশ বন্টনে। দেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১২টি বহুজাতিক কোম্পানি ২০২২ সালে ছয় হাজার কোটি টাকার বেশি কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের মধ্যে বণ্টন করা হবে পাঁচ হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ বিনিয়োগকারীদের মুনাফার ভাগ কমে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর আর্থিক প্রতিবেদন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বহুজাতিক কোম্পানি লিন্ডে বিডি, সিঙ্গার বাংলাদেশ, মারিকো বাংলাদেশ, রেকিট বেনকিজার, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ, ইউনিলিভার কনজ্যুমার কেয়ার, হাইডেলবার্গ সিমেন্ট, লাফার্জ-হোলসিম সিমেন্ট, আরএকে সিরামিক, বাটা সু, গ্রামীণফোন ও রবি বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আছে।

এসব কোম্পানি এবার তাদের বিনিয়োগকারীদের মুনাফার অংশ প্রদানের ক্ষেত্রে কাটছাঁট করছে। ২০২১ সালে তারা শেয়ারহোল্ডারদের ছয় হাজার কোটি টাকার বেশি লভ্যাংশ দিয়েছিল। এ বছর ৫০০ থেকে ৬০০ কোটি টাকা কম দেবে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনার পর ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের প্রভাব বাংলাদেশের অর্থনীতিতেও পড়েছে। ফলে ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর ব্যবসা কমেছে। ব্যবসা কমায় কোম্পানিগুলোর মুনাফাতে ভাটা পড়েছে।

করোনার পর ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের প্রভাব বাংলাদেশের অর্থনীতিতেও পড়েছে। ফলে ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর ব্যবসা কমেছে। ব্যবসা কমায় কোম্পানিগুলোর মুনাফাতে ভাটা পড়েছে
কোম্পানিগুলোর বক্তব্য হলো, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে মুদ্রাবাজারে অস্থিরতা বিরাজ করছে। ডলার সংকটের কারণে কাঁচামাল আমদানিতে সমস্যা হয়েছে। আবার গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বেড়েছে। এতে গ্যাস ও বিদ্যুতের সংকট তৈরি হয়েছে। এ কারণে একদিকে উৎপাদন খরচ বেড়েছে, অন্যদিকে পণ্য উৎপাদন কমেছে। পাশাপাশি বিক্রিও কম হয়েছে। ফলে সবার প্রকৃত মুনাফা কমেছে।

আর্থিক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০২২ সালে কোম্পানিগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জন করেছে মোবাইল অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোন লিমিটেড। যোগাযোগ খাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির ২০২২ সালে মুনাফা হয়েছে তিন হাজার নয় কোটি ৮১ লাখ ৮৭ হাজার ৪৯০ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারপ্রতি ২২ টাকা করে মোট দুই হাজার ৯৭০ কোটি ৬৬ লাখ ৪৮৪ টাকা শেয়ারহোল্ডারদের মুনাফা দেবে তারা।

এর আগের বছর প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা হয়েছিল তিন হাজার ৪১৩ কোটি ৫৫ লাখ ৮৪ হাজার ৫৫৬টাকা। শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ দিয়েছিল তিন হাজার ৩৭৫ কোটি ৭৫ লাখ ৫৫০ টাকা। মুনাফা অর্জন ও প্রদানের দিক থেকে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর মধ্যে গ্রামীণফোনই শীর্ষে।

এরপর মুনাফা অর্জন ও প্রদানে এগিয়ে রয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটি ২০২২ সালে শেয়ারপ্রতি ৩৩ টাকা ১০ পয়সা করে মোট এক হাজার ৭৮৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা মুনাফা করেছে। সেখান থেকে ২০ টাকা করে এক হাজার ৮০ কোটি টাকা মুনাফা দেবে শেয়ারহোল্ডারদের।

এর আগের বছর ২০২১ সালে ২৭ টাকা ৭২ পয়সা করে প্রতিষ্ঠানটির মোট আয় হয়েছিল এক হাজার ৪৯৬ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ২৭ টাকা ৫০ পয়সা করে এক হাজার ৪৮৫ কোটি টাকা মুনাফা দিয়েছিল।

মোবাইল অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ২০২২ সালে মোট মুনাফা হয়েছে ১৮৩ কোটি ৩২ লাখ ৭৬ হাজার ৫১৩ টাকা। তবে, প্রতিষ্ঠানটি শেয়ারপ্রতি ৭৫ পয়সা করে মোট ৩৬৬ কোটি ৬৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬ টাকা মুনাফা দেবে।

কোম্পানিগুলোর বক্তব্য হলো, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে মুদ্রাবাজারে অস্থিরতা বিরাজ করছে। ডলার সংকটের কারণে কাঁচামাল আমদানিতে সমস্যা হয়েছে। আবার গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বেড়েছে। এতে গ্যাস ও বিদ্যুতের সংকট তৈরি হয়েছে। এ কারণে একদিকে উৎপাদন খরচ বেড়েছে, অন্যদিকে পণ্য উৎপাদন কমেছে। পাশাপাশি বিক্রিও কম হয়েছে। ফলে সবার প্রকৃত মুনাফা কমেছে এর আগের বছর ২০২১ মুনাফা হয়েছিল ১৭৮ কোটি আট লাখ ৯৭ হাজার ১৮৪ টাকা। সে বছর ৫০ পয়সা করে শেয়ারহোল্ডারদের ২৬১ কোটি ৮৯ লাখ ৬৬ হাজার ৪৪৭ টাকা মুনাফা দিয়েছিল রবি আজিয়াটা।

ইউনিলিভার কনজ্যুমার কেয়ার লিমিটেডের ২০২২ সালে মুনাফা হয়েছে ৭৩ কোটি চার লাখ ৯৬ হাজার ৬৬৭ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ২৪ টাকা করে মুনাফা দেবে ২৮ কোটি ৯১ লাখ ১৪ হাজার ৭৭৬ টাকা। ২০২১ সালে প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা হয়েছিল ৫২ কোটি ৭৬ লাখ ৩৪ হাজার ৪৬৬ টাকা। ওই বছর শেয়ারহোল্ডারদের ৪৪ টাকা করে লভ্যাংশ দিয়েছিল ৫৩কোটি ৪৩ হাজার ৭৫৬ টাকা।

বিদায়ী বছরে লিন্ডে বিডির ৮৮ কোটি ৩২ লাখ ৭০ হাজার ১৩২ টাকার মুনাফা হয়েছে। এর মধ্যে শেয়ারহোল্ডারদের ৪২ টাকা করে ৬৩ কোটি ৯১ লাখ ৬৮ হাজার ৬০০ টাকার মুনাফা ঘোষণা দিয়েছে। ২০২১ সালে প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা হয়েছিল ১২২ কোটি ৫৮ লাখ ৩৪ হাজার ৬৫ টাকা। সেখান থেকে ৫৫ টাকা করে মোট ৮৩ কোটি ৭০ লাখ ছয় হাজার ৫০০ টাকা মুনাফা দিয়েছিল।

চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত ম্যারিকো বাংলাদেশের মুনাফা হয়েছে ৩৮৭ কোটি ২২ লাখ ৯৫ হাজার টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ৭৫ টাকা করে ২৩৬ কোটি ২৫ লাখ টাকা মুনাফা দেবে। এর আগের বছর ২০২১ সালে মুনাফা হয়েছিল ৩৫৫ কোটি ৩৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা। সেখান থেকে ৮০ টাকা করে ২৫২ কোটি টাকা দিয়েছিল।

বাটা সু ২০২২ সালে ২৯ দশমিক ৯৮ পয়সা করে মোট মুনাফা করেছে ৪১ কোটি এক লাখ ২৬ হাজার ৪০০ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ৪৯ কোটি ৯৩ লাখ ২০ হাজার টাকা মুনাফা দেবে। ২০২১ সালে ৫ দশমিক ১ শতাংশ লোকসান হয়েছে তাদের। লোকসানের বছরও ১০ কোটি ২৬ লাখ টাকা মুনাফা দিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি।

একইভাবে সিঙ্গার বাংলাদেশের ৭৩ পয়সা করে ২০২২ সালে মোট সাত কোটি ২৭ লাখ ৮৩ হাজার ৭১ টাকা মুনাফা হয়েছে। সেখান থেকে লভ্যাংশ দেবে নয় কোটি ৯৭ লাখ দুই হাজার ৮৩৮ টাকা। ২০২১ সালে মুনাফা ছিল ৫৯ কোটি ৮২ লাখ ১৭ হাজার ২৮ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ দিয়েছিল ৫১ কোটি ৮৪ লাখ ৫৪ হাজার ৭৫৭ টাকা।

২০২২ সালে কোম্পানিগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জন করেছে মোবাইল অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোন লিমিটেড। যোগাযোগ খাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির ২০২২ সালে মুনাফা হয়েছে তিন হাজার নয় কোটি ৮১ লাখ ৮৭ হাজার ৪৯০ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারপ্রতি ২২ টাকা করে মোট দুই হাজার ৯৭০ কোটি ৬৬ লাখ ৪৮৪ টাকা মুনাফা দেবে।

রেকিট বেনকিজারের মুনাফা হয়েছে ৬৫ কোটি ৯১ লাখ ৩৭ হাজার ৫০০ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ৯৮ পয়সা করে মোট ৪৬ কোটি ৩০ লাখ ৫০ হাজার টাকা দেবে। এর আগের বছর অর্থাৎ ২০২১ সালে ১৭১ টাকা তিন পয়সা করে মুনাফা হয়েছিল ৮০ কোটি ৮১ লাখ ১৬ হাজার ৭৫০ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ৭৭ কোটি ৯৬ লাখ ২৫ হাজার টাকা দিয়েছিল।

হাইডেলবার্গ সিমেন্ট ২০২২ সালে লোকসান করেছে ২৩ কোটি ৩৩ লাখ ৫৯ হাজার ৮২৬ টাকা। লোকসান হলেও প্রতিষ্ঠানটির রিজার্ভ থেকে শেয়ারহোল্ডারদের পাঁচ কোটি ৬৫ লাখ তিন হাজার ৫৯০ টাকা মুনাফা দেবে। ২০২১ সালে প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা হয়েছিল ৪৭ কোটি ৫১ লাখ ৯৫ হাজার ১৯১ টাকা। সেখান থেকে দুই টাকা ৬০ পয়সা করে ১৪ কোটি ৬৯ লাখ নয় হাজার ৩৩৪ টাকা মুনাফা দিয়েছিল শেয়ারহোল্ডারদের।

লাফার্জ-হোলসিম সিমেন্টের মুনাফা হয়েছে ৪৪৪ কোটি ৮০ লাখ ৬০ হাজার ৫০৫ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ৫৫৭ কোটি ৪৬ লাখ মুনাফা দেবে। এর আগের বছর অর্থাৎ ২০২১ সালে মুনাফা হয়েছিল ৩৮৭ কোটি ৮৯ লাখ ৮৭ হাজার ৪৯০ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের মুনাফা দিয়েছিল দুই টাকা ৫০ পয়সা করে ২৯০ কোটি ৩৪ লাখ ৩৩ হাজার ৭৫০ টাকা।

এছাড়া আরএকে সিরামিকের ২০২২ সালে মুনাফা হয়েছে ৬৭ কোটি ১৯ লাখ ১০ হাজার ৮৬০ টাকা। সেখান থেকে শেয়ারহোল্ডারদের এক টাকা করে মোট ৪২ কোটি ৭৯ লাখ ৬৮ হাজার ৭০১ টাকা দেবে প্রতিষ্ঠানটি। ২০২১ সালে তাদের মুনাফা হয়েছিল ৯০ কোটি ৭২ লাখ ৯৩ হাজার ৬৪৬ টাকা। এক টাকা ২৫ পয়সা করে মোট ৫৩ কোটি ৪৯ লাখ ৬০ হাজার ৮৭৬ টাকা মুনাফা দিয়েছে তারা।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.