আজ: বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪ইং, ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১১ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২০ জুলাই ২০২৩, বৃহস্পতিবার |

kidarkar

র‍্যাংগস মোটরস নিয়ে এলো আইশার নতুন স্কাইলাইন বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক: র‍্যাংগস মোটরসের হাত ধরে বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করলো আইশার স্কাইলাইন ২০.১৫। বৃহস্পতিবার (২০ জুলাই) বাসটির উদ্বোধন করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন র‍্যাংগস মোটরস লিমিটেডের সিইও আহমেদ শাহরিয়ার আনোয়ার, র‍্যাংগস মোটরসের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সোহানা রউফ চৌধুরী; ভিইসিভির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট অব ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস এস এস গিলসহ অন্যান্যরা। অনুষ্ঠানে নতুন এই বাস-এর আধুনিক ফিচারস, সুবিধাসহ আনুষাঙ্গিক বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্রায় ৫০ জন যাত্রী ধারণক্ষম আইশার স্কাইলাইন ২০.১৫ বাসটি বর্তমান সময়ের সবচেয়ে শক্তিশালী ইনলাইন ইঞ্জিনে চালিত হবে, যা দেশের আন্তঃনগর বাস সেগমেন্টে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা, আরাম এবং নির্ভরযোগ্যতা নিশ্চিতকারী বৈশিষ্ট্যের সাথে বাজারে আনা হয়েছে। এতে আছে ইন-লাইন ফুয়েল ইনজেকশন সিস্টেমসহ শক্তিশালী ১৮০ হর্সপাওয়ার ইঞ্জিন, যার ফলে এই দ্রুতগতির বাস বছরব্যাপি বাস মালিকদের বাড়তি ট্রিপ নিশ্চিতে সাহয্য করবে। এর শক্তিশালী ডোমেক্স চ্যাসিস, ৭১০ এনএম টর, ইটি ৭০ ট্রান্সমিশন, ৩৯৫ মিমি ড্রাইভ হেড এবং লাইফ প্রোপেলার শ্যাষ্ট ফিচারস এর নির্ভরযোগ্যতা কয়েকগুণ বৃদ্ধি করবে।

এতে আরও আছে ওয়েভেলার সাসপেনশন এবং এয়ার সাসপেনশন ফিচার, যা দীর্ঘ দূরত্ব ভ্রমণের ক্ষেত্রে যাত্রীদের আরাম ও স্বাচ্ছন্দ্য প্রদান করবে। এছাড়া, চালকদের ক্লান্তি কমাতে ও স্বাচ্ছন্দ্য নিশ্চিতে টিল্ট ও টেলিস্কোপিক স্টিয়ারিং, দ্রুত কুস্টার সমৃদ্ধ ক্লাচ সিস্টেম এবং সহজবোধ্য কম্বিনেশন মিটারের মতো ফিচারসও যুক্ত রয়েছে।

তারা আরও জানায়, বাংলাদেশে দক্ষিণ এশিয়ার দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির একটি দেশ হিসেবে বৃহৎ এবং ক্রমবর্ধমান বাণিজ্যিক যানবাহন শিল্প রয়েছে। দেশের অবকাঠামো, পরিবহন ব্যবস্থা, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন ইত্যাদি উন্নয়ন আন্তঃনগর বাসের যাতায়াত বৃদ্ধিতে সরকারের মনোযোগ বৃদ্ধি করছে। এরফলে ২০২৩ অর্থবছরে দেশে হেভি-ডিউটি বাসের চাহিদা বেড়েছে এবং ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। আন্তঃনগর বাস সেগমেন্ট উন্নত করতে আইশার স্কাইলাইন ২০.১৫ ভূমিকা রাখবে। এছাড়া দীর্ঘ ভ্রমণে যাত্রীরা আরও নিরাপদ, নির্ভরযোগ্য এবং আরামদায়ক অভিজ্ঞতা পাবে।

এবিষয়ে র‍্যাংগস মোটরস লিমিটেডের সিইও আহমেদ শাহরিয়ার আনোয়ার বলেন, “আজ আমরা এক নতুন যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছি, যেখানে রাস্তায় গতি ও স্বাছন্দ্য দুটোই উপভোগ করা যাবে। সকলের মাঝে আমাদের লেটেস্ট মাস্টারপিস আইশার স্কাইলাইন ২০.১৫ মডেলটি উপস্থাপন করতে পেরে আমরা গর্বিত। যা এই নতুন যুগের ভ্রমণ অভিজ্ঞতাকে আরও উপভোগ্য করে তুলতে ডিজাইন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, “আমাদের দেশের উর্ধ্বমূখী অর্থনীতির ফলে সাম্প্রতিক বছরগুলোয় দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নে লক্ষণীয় বিপ্লব ঘটেছে, যা বাণিজ্যিক যানবাহন শিল্পের অগ্রগতিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে বলে আমার বিশ্বাস। অগ্রগতি, অভিযোজন, প্রত্যাশা পূরণের প্রতিশ্রুতির সাথে স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে, জনগণের জন্য পরিবহন খাত আরও উন্নত করতে এবং যাত্রীদের সেরামানের অভিজ্ঞতা প্রদানে আমরা আশাবাদী।”

ভিই কমার্শিয়াল ভেহিকেলস লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ ভাইস-প্রেসিডেন্ট অব ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস এসএস গিল বলেন, “বাংলাদেশের সমৃদ্ধিতে অংশীদার হিসেবে ব্র্যান্ডের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী আমরা নতুন আইশার স্কাইলাইন ২০.১৫ আন্তঃনগর বাস উদ্বোধন করতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত। এই বাসগুলো বাড়তি নিরাপত্তা, অধিক আরাম এবং নির্ভরযোগ্যতার নিশ্চিতের লক্ষ্যে ডিজাইন করা হয়েছে, যা দেশের ক্রমবর্ধমান আন্তঃনগর ভ্রমণকে আরও উন্নত করবে। আইশার স্কাইলাইন ২০.১৫ সেরা ক্লাস এক্সেলারেশন ও টক, দীর্ঘ আপটাইম এবং যাত্রী ও চালকের স্বাচ্ছন্দ্য নিশ্চিত করবে। যা আরও বেশি ট্রিপ দিতে সাহায্য করবে, ফলস্বরূপ বাস মালিকরা লাভবান হবেন।

আইশার স্কাইলাইন ২০.১৫ বাসটি রেয়ার ওয়েভেলার সাসপেনশন, এয়ার সাসপেনশনসহ বিস্তর আসনক্ষমতা দিয়ে সজ্জিত। পরবর্তী প্রজন্মের আইশার ট্রাক ও বাসগুলোর উদ্দেশ্য; আধুনিকীকরণের মাধ্যমে উন্নয়নশীল বাজারগুলোতে পরিবহন দক্ষতা ক্রমাগত উন্নত করা এবং এর দ্বারা লজিস্টিক খরচ কমানো, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করা। নতুন মডেলটি উদ্বোধনের মাধ্যমে আইশার ট্রাক ও বাস দেশের বাণিজ্যিক যানবাহন খাতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.