আজ: রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪ইং, ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৩ জুলাই ২০২৩, রবিবার |

kidarkar

আজ ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে ভারত-পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক : দীর্ঘদিন ধরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ না থাকায় বড় টুর্নামেন্ট বাদে দেখা হয় না চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দেশ ভারত-পাকিস্তানের। চলতি বছর ক্রিকেটভক্তদের সেই উপলক্ষ্য বারবার এনে দেওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। ইমার্জিং এশিয়া কাপে ইতোমধ্যে একবার মুখোমুখি হয়েছে দেশ দুটির ‘এ’ দল। এবার শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে টুর্নামেন্টটির ফাইনালে উভয়দল ফের লড়াইয়ে নামবে। ম্যাচটি শুরু হবে আজ (২৩ জুলাই) দুপুর আড়াইটায়।

চলমান ইমার্জিং এশিয়া কাপের শুরু থেকেই বেশ উড়ন্ত পারফর্ম করছে ভারত। এখন পর্যন্ত অপরাজিত দেশটি গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচ ও সেমিফাইনালে দাপটের সঙ্গে জয় তুলে নিয়েছে। এর মধ্যে আছে পাকিস্তানকে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারানোর স্মৃতিও। অন্যদিকে পাকিস্তানও ভারত বাদে বাকি প্রতিপক্ষ দলগুলোর বিপক্ষে জয় পেয়েছিল।

এর আগে সেমিফাইনালে ভারতের সঙ্গে বেশ লড়াই জমিয়ে তুলেছিল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। বোলারদের তোপে ভারতকে অল্প রানেই গুটিয়ে দেওয়ার সুযোগ ছিল। যদিও পরে দলটির অধিনায়ক ইয়াশ ধুলের চেষ্টায় তা সম্ভব হয়নি। এরপর যদিও ২১২ রানের সহজ লক্ষ্যে টাইগারদের শুরুটা দুর্দান্ত ছিল। কিন্তু পরবর্তী ব্যাটারদের ব্যর্থতায় ৫১ রানে পরাজিত হয় সাইফ হাসানের দল।

অপরদিকে পাকিস্তানি ব্যাটাররা শ্রীলঙ্কার সঙ্গে সেমির লড়াইয়ে ছিলেন দারুণ। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে অধিনায়ক মোহাম্মদ হারিস ৫২ রান এবং ওমাইর ইউসুফ ৮৮ রান করে ৩২২ রানের বড় টার্গেট দেয়। রান তাড়া করতে নেমে শ্রীলঙ্কার আভিস্কা ফার্নান্দো এবং সাহান আরাচিগে ৯৭ রান করে আউট হয়ে যান। আরশাদ ইকবালের ৫ উইকেটের সুবাদে পাকিস্তান ‘এ’ ৬০ রানে জয় লাভ করে।

এরপর ইমার্জিং এশিয়া কাপের ৫ম আসরের ফাইনাল ফের মুখোমুখি করে দিচ্ছে রাজনৈতিক কারণে বৈরিতাপূর্ণ দুই দেশকে। বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত আগের আসরের ফাইনালে স্বাগতিকদের হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পাকিস্তান। ২০১৭ ও ২০১৮ সালে পরপর শিরোপা জেতা শ্রীলঙ্কা টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সফল দল। ২০১৩ সালে টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী আসরে ভারত জিতেছিল। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের পূর্ণ সদস্য দেশ ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের ‘এ’ দলের সঙ্গে এসিসি পুরুষ প্রিমিয়ার কাপের তিনটি দল সংযুক্ত আরব আমিরাত ‘এ’, ওমান ‘এ’ এবং নেপালের জাতীয় দল এই টুর্নামেন্টে অংশ নেয়।

এমার্জিং এশিয়া কাপের মহারণ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে কলম্বোর প্রেমদাসা স্টেডিয়ামে। এর আগে গ্রুপপর্বের ম্যাচে ৪৮ ওভারে ২০৫ রানে অল-আউট হয়ে যায় পাকিস্তান। ম্যাচটিতে ব্যাটার কাসিম আকরাম সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন। ভারতের হয়ে ৫ উইকেট নেন রাজবর্ধন হাঙ্গারেকার। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৩৬.৪ ওভারে ২ উইকেটের বিনিময়েই ২১০ রান নিয়ে ম্যাচ জিতে যায়। সাই সুদর্শন অপরাজিত ১০৪ এবং নিকিন জস করেন ৫৩ রান।

চলমান এই টুর্নামেন্টে ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ১৯৫ রান সংগ্রহ করেছেন অধিনায়ক ইয়াশ ধুল। সাই সুদর্শন করেছেন ১৯১ রান। ১৪৮ রান নিয়ে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ রানসংগ্রাহক ওমাইর ইউসুফ। এরপর ১৩০ রান নিয়ে আছেন অধিনায়ক মোহাম্মদ হারিস। উইকেট পাওয়ার দিকে থেকেও ভারতের চেয়ে পাকিস্তান। ১০ উইকেট নিয়ে ভারতের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী বোলার নিশান্ত সিন্ধু, মানব সুথার নিয়েছেন ৯টি উইকেট। পাকিস্তানের কাসিম আকরাম ৬টি এবং আরশাদ ইকবাল ৫ উইকেট নিয়েছেন। তবে কাসিম-আরশাদরা সব ম্যাচ খেলেননি।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.