আজ: বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১০ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, বৃহস্পতিবার |

kidarkar

লোকসানে ডুবছে ২০ মিউচ্যুয়াল ফান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩৭টি মিউচ্যুয়াল ফান্ড রয়েছে। এর মধ্যে ৩৪টি প্রতিষ্ঠান জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩ প্রান্তিকের অনিরিক্ষীত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। যার মধ্যে লোকসানে রয়েছে ২০টি এবং মুনাফায় ১৪টি প্রতিষ্ঠান। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

লোকসানে থাকা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- ফার্স্ট জনতা ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড, প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, এবি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, এআইবিএল ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ড, সিএপিএম আইবিবিএল ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ইবিএল এনআরবি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, গ্রিনডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল ফার্স্ট অগ্রণী ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল দ্বিতীয় মিউচ্যুয়াল ফান্ড, আইএফআইএল ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড, এমবিএল ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, এনসিসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, পিএইচপি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, পপুলার লাইফ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালান্স ফান্ড এবং ট্রাস্ট ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

ফার্স্ট জনতা ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ১ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২৩ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ২২ পয়সা।

প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ১১ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২১ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ১০ পয়সা।

এবি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৪ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১৬ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ১২ পয়সা।

এআইবিএল ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :দ্বিতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ১২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৪ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান বেড়েছে ৮ পয়সা।

এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ৫ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান অপরিবর্তিত রয়েছে।

সিএপিএম আইবিবিএল ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ১ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ১০ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ১১ পয়সা।

ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৮ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ৩ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ১১ পয়সা।

ইবিএল এনআরবি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২৩ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ২১ পয়সা।

এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২১ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ১৯ পয়সা।

গ্রিনডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৮ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ০০৬ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ৮ পয়সা।

আইসিবি এএমসিএল ফার্স্ট অগ্রণী ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ০০৪ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ১০ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ১০ পয়সা।

আইসিবি এএমসিএল দ্বিতীয় মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৬ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ৯ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ৩ পয়সা।

আইএফআইএল ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ৬ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ২ পয়সা।

এমবিএল ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :দ্বিতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৯ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ৮ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ৯ পয়সা।

এনসিসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৩ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ৮ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ৮ পয়সা।

পিএইচপি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ২ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২২ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ২০ পয়সা।

পপুলার লাইফ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ১ পয়সা। গত বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল ২১ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে ২০ পয়সা।

প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ড :তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ১ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ১২ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ১৩ পয়সা।

ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালান্স ফান্ড :তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ৫ পয়সা। গত বছর একই সময় যার ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) ছিল ১ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে কোম্পানিটির লোকসান ৫ পয়সা।

ট্রাস্ট ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড :প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) হয়েছে ০ পয়সা। গত বছর একই সময় যার লোকসান ছিল ২৪ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে ফান্ডটির ইউনিট প্রতি লোকসান ৭ পয়সা।

 

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.