আজ: শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪ইং, ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২রা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, রবিবার |

kidarkar

নবাগত শিক্ষার্থীদের বরণ করল গ্রিন ইউনিভার্সিটি

নিজের প্রতিবেদক: গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে স্প্রিং সেমিস্টার-২০২৪ সালে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের নবীবরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্বাচল আমেরিকান সিটিস্থ ক্যাম্পাসে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. খাজা ইফতেখার উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সাংবাদিক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা প্রধান অতিথি ও বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাইফুল আজাদ, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. শহীদুল্লাহ্, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ তারিক আজিজ, রেজিস্ট্রার ক্যাপ্টেন (নেভি) শেখ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন, এলপিআর প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা বলেন, জীবনব্যাপী চলমান প্রক্রিয়ার নাম শিক্ষা। শিক্ষা মানুষকে উন্নত করে, বিবেকবান বানায়। তবে যে শিক্ষা এটা করতে পারে না, সেটা মূল্যহীন। স্বামী বিবেকানন্দকে উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, মানুষ জন্মালেই মানুষ হয় না, তাকে মানুষ হয়ে উঠতে হয়। যেখানে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করে শিক্ষা। এ তিনি সময় পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ^বিদ্যালয়ের তুলনামূলক পর্যালোচনার পাশাপাশি এর নানা দিক তুলে ধরেন।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. খাজা ইফতেখার উদ্দিন আহমেদ বলেন, কিছু বিষয় চিরন্তন। এর একটি হলো সময়। সময় কখনও পেছনের দিকে যাত্রা করে না। কেউ চাইলেই নিজেকে দুই বছর-পাঁচ বছর আগে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে পারবে না। তাই নবীন প্রত্যেক শিক্ষার্থীর উচিতÑ আগামী চার বছরকে সঠিকভাবে কাজে লাগানো।

তিনি বলেন, পৃথিবীর সবকিছুর মত শিক্ষারও একটি প্রক্রিয়া আছে। সেটি নিয়ম ও সময়মত সম্পন্ন না করলে পিছিয়ে পড়তে হবে। ড. খাজা ইফতেখার বলেন, মানুষের ভুল হতেই পারে। কিন্তু কেউ যদি সময় মত না শোধরায়; তবে চাইলেও পরবর্তীতে তা শোধরাতে পারবে না। তাই সফলতা পেতে যেমন সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে, তেমনি সঠিক সিদ্ধান্তও নিতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির একুশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আধুনিক ও যুগোপযোগী জ্ঞান-দক্ষতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সেই সঙ্গে মানবিক মূল্যবোধ ও নৈতিকতাসম্পন্ন গুণাবলীও অর্জন করার তাগিদও দেন তিনি।

অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা-কৌশলসহ বিভিন্ন বিষয়ের সঙ্গে নবীন শিক্ষার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন রেজিস্ট্রার ক্যাপ্টেন (নেভি) শেখ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন, এলপিআর।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.