আজ: শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪ইং, ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২রা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, বুধবার |

kidarkar

নতুন জটিলতায় আর্জেন্টিনার ম্যাচ বাতিল, বদলেছে প্রতিপক্ষ

সে্পোর্টস ডেস্ক : একের পর এক জটিলতার মুখোমুখি বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। প্রথমে লিওনেল মেসির প্রতি ক্ষোভের কারণে চীনে নির্ধারিত দুটি প্রীতি ম্যাচ বাতিল করা হয়। এরপর নতুন সূচিতে ভেন্যুর পাশাপাশি একটি প্রতিপক্ষও বদলে যায় আলবিসেলেস্তেদের। সেখানেও এবার নতুন জটিলতা, যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পেতে ঝামেলার মুখোমুখি নাইজেরিয়া। সে কারণে তাদের বদলে কোস্টারিকার বিপক্ষে খেলবে লিওনেল স্কালোনির দল।

এক বিবৃতিতে গতকাল (মঙ্গলবার) এই তথ্য নিশ্চিত করেছে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ)। যদিও এর আগে থেকেই নাইজেরিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচটি হওয়া নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। যার বিষয়ে আনুষ্ঠানিক এই বিবৃতি দিলো এএফএ। একইসঙ্গে তারা নতুন প্রতিপক্ষ হিসেবে কোস্টারিকাকে বেছে নেওয়ার কথাও জানিয়েছে। আগে থেকে নির্ধারিত আরেক প্রতিপক্ষ এল সালভাদরের বিপক্ষে ম্যাচটি তো থাকছেই।

আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টস বলছে, আফ্রিকান দেশ নাইজেরিয়ার ভিসা জটিলতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবে না। সে কারণে তাদের সঙ্গে ম্যাচটি বাতিল করা হয়েছে। এমন অবস্থায় কোস্টারিকার সঙ্গে আগামী ২৬ মার্চ দ্বিতীয় প্রীতি ম্যাচে খেলবে আর্জেন্টিনা। ম্যাচটির ভেন্যু লস অ্যাঞ্জলসের কলিসিয়াম স্টেডিয়াম। এর আগে ২২ মার্চ স্কালোনির শিষ্যরা লিঙ্কন ফাইনান্সিয়াল ফিল্ড স্টেডিয়ামে এল সালভাদরের মোকাবিলা করবে। যদিও আনুষ্ঠানিকভাবে ম্যাচের সময়সূচি ঘোষণা করেনি এএফএ।

আগামী জুনে যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে বসবে কোপা আমেরিকার আসর। আর্জেন্টিনা মহাদেশীয় এই প্রতিযোগিতারও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। যার প্রস্তুতি হিসেবে ইউরোপের শক্তিশালী দুটি দেশের বিপক্ষে খেলতে চেয়েছিলেন মেসি-স্কালোনি। যদিও আসন্ন ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের ব্যস্ততায় সে মহাদেশের প্রতিপক্ষ পায়নি আর্জেন্টিনা। এরপর শুরুতে আগামী মাসে চীনে নাইজেরিয়া ও কোত দি ভোয়ার বিপক্ষে তারা দুটি প্রীতি ম্যাচ ঠিক করে। কিন্তু ঝামেলা শুরু হয় ফেব্রুয়ারির শুরুতে আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মেসির ক্লাব ইন্টার মায়ামির এশিয়া সফরে।

মায়ামির হয়ে হংকং একাদশের বিপক্ষে বহুল আলোচিত প্রীতি ম্যাচে খেলার কথা ছিল মেসির। কিন্তু চোটের কারণে তাকে সেখানে খেলানো হয়নি। এতে ম্যাচ চলাকালীনই ক্ষোভ প্রকাশ করে দর্শকরা। যা পরবর্তীতে ছড়িয়ে পড়ে গোটা হংকংয়ে। সেই আগুনে ঘি পড়ে ওই ম্যাচের তিনদিন পরই জাপান সফরে দেশটির ক্লাব ভিসেল কোবের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে বদলি হিসেবে মেসি মাঠে নামায়। সেখানে ৩০ মিনিটেরও বেশি সময় তিনি মাঠে ছিলেন মেসি। তাতে হংকংয়ের দর্শকদের ক্ষোভ বাড়ে আরও। সবমিলিয়ে চীন ও হংকংয়ের ফুটবল ভক্তরা ক্ষেপে আছেন মেসির ওপর। তাই স্বাভাবিকভাবেই সেখানে এলএমটেন কিংবা আর্জেন্টিনার ম্যাচ আয়োজন করা ঝুঁকিপূর্ণ ছিল।

এদিকে, আসন্ন দুটি প্রীতি ম্যাচ ছাড়াও কোপা আমেরিকার আগে আরও দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ রয়েছে মেসি-ডি মারিয়াদের। কোপার ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা আগামী ৯ জুন শিকাগোর সোলজার ফিল্ডে ইকুয়েডরের বিপক্ষে এবং ১৪ জুন ল্যান্ডওভারের ফেডেক্স ফিল্ডে গুয়াতেমালার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলবে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.