আজ: শনিবার, ২৫ মে ২০২৪ইং, ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৮ এপ্রিল ২০২৪, রবিবার |

kidarkar

এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে এমআরসিপি পরীক্ষা

নিজের প্রতিবেদকঃ দেশের প্রথম জেসিআই স্বীকৃত হাসপাতাল এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকায় গত ২৭ এপ্রিল, শনিবার থেকে শুরু হয়েছে এমআরসিপি পিএসিইএস (প্র্যাকটিক্যাল অ্যাসেসমেন্ট অব ক্লিনিক্যাল এক্সামিনেশন স্কিলস) ট্রায়াল পরীক্ষা। বাংলাদেশে এই পরীক্ষার আয়োজন দেশের মেডিকেল শিক্ষাব্যবস্থার জন্য এক যুগান্তকারী অধ্যায়। বাংলাদেশে এর আয়োজক হিসেবে এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকা’ই প্রথম প্রতিষ্ঠান, যারা মিনিস্ট্রি অব হেলথ থেকে অনুমোদন লাভ করে। এই উপলক্ষ্যে, এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকা ও রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস, ইউকে-এর যৌথ উদ্যোগে একটি সংবাদ সম্মেলন করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

উক্ত আয়োজনের লক্ষ্য বাংলাদেশে এমআরসিপি পরীক্ষার চালুর তাৎপর্য তুলে ধরা এবং দেশে মেডিকেল শিক্ষাব্যবস্থা ও স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নতকরনে এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকা’র প্রচেষ্টাকে তুলে ধরা। বাংলাদেশের মেডিকেল প্রফেশনালদের জন্য আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত এই পরীক্ষা আয়োজনে সহযোগিতা করছে রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মেম্বারশিপ অব রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ান্স (এমআরসিপি) অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ পরীক্ষা। ২০১২ সাল থেকে স্থানীয় চিকিৎসকরা দেশেই লিখিত পরীক্ষা দিয়ে আসছেন। কিন্তু ব্যবহারিক পরীক্ষা দেওয়ার কোনো উপযুক্ত কেন্দ্র না থাকায় এমআরসিপির ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য তাদের ভারত, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা বা যুক্তরাজ্যে যেতে হতো।

এক্সপার্ট প্যানেলে মেডিকেল ও একাডেমিক কমিউনিটি থেকে ছিলেন ফেডারেশন অব দ্য রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস, ইউকে-এর ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল ডিরেক্টর এমআরসিপি (ইউকে) পিএসিইএস ডা. তানজিন রাজা; জয়েন্ট রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস ট্রেনিং বোর্ডের মেডিকেল ডিরেক্টর ডা. প্রফেসর ডেভিড ব্ল্যাক; ফেডারেশন অব দ্য রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস, ইউকে-এর মেডিকেল ডিরেক্টর ফর অ্যাসেসমেন্ট [এমআরসিপি, ইউকে] ডা. স্টুয়ার্ট হুড; রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অব এডিনবার্গ এর ডীন অব এক্সামিনেশন ও ফ্যাকাল্টি অব মেডিসিন ডা. ম্যাথিউ টমাস; রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অব লন্ডন এর রিজনাল অ্যাডভাইজর ডা. মাশকুর খান; রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অব ইক-এর ফেডারেশন লিড অব বাংলাদেশ-এর প্রফেসর ডা. কাজী তারিকুল ইসলাম।

এছাড়াও, সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন এভারকেয়ার হসপিটালস, বাংলাদেশ-এর সিইও ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডা. রত্নদীপ চাস্কার; এবং ডিরেক্টর অব মেডিকেল সার্ভিসেস-এর ডা. আরিফ মাহমুদ প্রমুখ।

ফেডারেশন অব দ্য রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস, ইউকে-এর ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল ডিরেক্টর এমআরসিপি (ইউকে) পিএসিইএস ডা. তানজিন রাজা বলেন, “পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যুক্তরাজ্যের মান বজায় রেখে এমারসিপি পিএসিইএস পরীক্ষার আয়োজন করা হয়ে থাকে। আমি অত্যন্ত খুশি যে এখন থেকে মান বজায় রেখে বাংলাদেশে এভারকেয়ার হসপিটালে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ভবিষ্যতে উপযুক্ত হসপিটাল পাওয়া গেলে কেন্দ্র বারানো হবে। আজ শনিবার ও আগামীকাল রবিবার বাংলাদেশের ১৪ জন অধ্যাপককে ব্যবহারিক পরীক্ষার বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেবেন যুক্তরাজ্য থেকে আসা বিশেষজ্ঞরা।”

রয়্যাল কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অব ইক-এর ফেডারেশন লিড অব বাংলাদেশ প্রফেসর ডা. কাজী তারিকুল ইসলাম বলেন, “আমাদের দেশের পরীক্ষার্থীদের বিদেশে গিয়ে পরীক্ষা দিতে কয়েক লাখ টাকা খরচ হতো। যাওয়া–আসা, থাকা–খাওয়ার নানা খরচ। বিশেষ করে নারী পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে স্বামী বা কোনো অভিভাবক যাওয়ার দরকার পড়ত। এসব কারণে অনেকে পরীক্ষায় অংশ নিতেন না। দেশে কেন্দ্র হওয়ার মধ্য দিয়ে এই সমস্যার অবসান ঘটবে।“

এভারকেয়ার হসপিটাল, বাংলাদেশ-এর সিইও ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডা. রত্নদীপ চাস্কার বলেন, “এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকায় এমআরসিপি পরীক্ষা আয়োজনের সিদ্ধান্ত দেশের মেডিকেল শিক্ষাব্যবস্থার জন্য যুগান্তকারী একটি পদক্ষেপ। এটি স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহে শ্রেষ্ঠত্ব এবং উদ্ভাবনের প্রতি আমাদের প্রচেষ্টার অংশস্বরূপ।”

এভারকেয়ার হসপিটাল, বাংলাদেশ-এর ডিরেক্টর অব মেডিকেল সার্ভিসেস ডা. আরিফ মাহমুদ বলেন, “আমাদের দেশের চিকিৎসকদের এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য বিদেশ যেতে হতো। এখন দেশেই এই কেন্দ্র এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকায় স্থাপনের মাধ্যমে দেশের চিকিৎসকরা দেশে এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে যা কিনা দেশেই মেডিকেল শিক্ষা ব্যবস্থা উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।” তিনি এভারকেয়ারকে এই পরীক্ষার প্রথম কেন্দ্র হিসেবে অনুমোদন দেয়ায় মিনিস্ট্রি অফ হেলথ, ডাইরেক্টর জেনারেল মেডিকেল এডুকেশন, বিসিপিএস, বিএমএ, বিএমডিসি এবং সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.