আজ: বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪ইং, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৫ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১১ জুন ২০২৪, মঙ্গলবার |

kidarkar

আইসিসিকে নাসের- তামিম- সঞ্জয়ের পরামর্শ

স্পোর্টস ডেস্ক: দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে রান তাড়া করার ১৭তম ওভারে প্যাডে অটনিয়েল বার্টম্যানের দ্বিতীয় বলটি মারেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। আম্পায়ারও সেই অনুরোধে সাড়া দেন। মাহমুদউল্লাহ অবশ্য সঙ্গে সঙ্গে রিভিউ থেকে বেঁচে যান।

বলটি স্টাম্পের লাইন মিস করে। কিন্তু প্যাডে আঘাত করার পর বলটি সবকিছু মিস করে বাউন্ডারি লাইন অতিক্রম করে। আম্পায়ার আউট না দিলে লেগ বাই হিসেবে বাংলাদেশের ৪ রান পাওয়া উচিত ছিল।

আইসিসির নিয়ম বলছে, আম্পায়ার আউটের জন্য আঙুল তুললে বল ডেড হয়ে যায়। তখন যেমন বল সীমানা পেরিয়ে গেলেও বাউন্ডারি হবে না, তেমনি রান আউটও হবে না কেউ।

আর এই আইন নিয়েই আপত্তি ইংলিশ সাবেক অধিনায়ক নাসের হুসেইন, বাংলাদেশি সাবেক অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও ভারতীয় সাবেক ক্রিকেটার সঞ্জয় মাঞ্জরেকারের।

স্কাই স্পোর্টসের ধারাভাষ্যের কাজে থাকা নাসের হুসেইন বলছিলেন, ‘এই আইনটার সংস্কার হওয়া উচিত। বল বাউন্ডারি লাইন পেরিয়ে গেল আর আপনি ৪ রান দিবেন না। এটা কেন?’

একই সুরে কথা বলেছেন তামিম ইকবাল ও সঞ্জয় মাঞ্চরেকার। ক্রিকইনফোর ‘টাইম আউট’ অনুষ্ঠানে এই নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন এই দুই ক্রিকেটার।

সঞ্জয় মাঞ্জরেকার দুর্ভাগাই বললেন বাংলাদেশকে। সেই সঙ্গে ফুটবলের ভিএআরের মত ক্রিকেট আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের জন্য দিলেন অপেক্ষা করার পরামর্শ, ‘ফুটবলে হয় কি, কেউ যদি অফসাইডে থাকে আর বক্সে খেলা চলমান থাকে, তখন অপেক্ষা করেন রেফারি। বল গোল না হলে আর খেলা বন্ধ করা হয় না। তাহলে ক্রিকেটে কেন তাড়াহুড়ো করতে হবে আপনাকে। আঙুল তুললে কেন সব বন্ধ হয়ে যাবে। অপেক্ষা করুন। বল যদি বাউন্ডারিতে যায় তাহলে বাউন্ডারি দিন। এমন আইন থাকলে বাংলাদেশ আজ ৪ রানে হারত না।’’

তামিম ইকবাল সেই অনুষ্ঠানে বললেন একই কথা। তিনি বলেন, ‘আমি ধারাভাষ্য শুনছিলাম। সেখানে নাসের হুসেইনসহ অন্য ধারাভাষ্যকাররাও একই কথা বলেছেন। আমার আইসিসির কাছে পরামর্শ হচ্ছে যদি দেখা যায় বল ব্যাটে লেগে বা প্যাডে লাগার পর উইকেটরক্ষক বা কোনও ফিল্ডারের আটকানোর মত অবস্থা না থাকে, তাহলে রান দিন। আর অপেক্ষা করুন আউট দেওয়ার আগে। এত দ্রুত করার কি আছে?’

এরপর সঞ্জয় যোগ করেন, ‘আমাদের এই আলোচনার ভিডিও আইসিসির কাছে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হোক। ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে সুপার ওভার নিয়ে সমালোচনার পর আইন বদলেছে আইসিসি। তাহলে এই আইন কেন বদলাবে না। আজ বাংলাদেশ হারল ভুল এই আইনের জন্য। অন্যদিন একই কারণে দুর্ভাগা হতে পারে যে কোনো দল।’

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.