আজ: শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১২ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৭ নভেম্বর ২০১৫, শনিবার |

kidarkar

এক্সপোজার লিমিট সময় বাড়াতে ২০ প্রতিষ্ঠানের চিঠি

BSECশেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারের চলমান পতন ঠেকাতে ব্যাংকের বিনিয়োগ ক্যাপিটালের ২৫ শতাংশে নামিয়ে আনার সময়সীমা ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ পর্যন্ত বাড়াতে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনক (বিএসইসি), ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই)-কে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য চিঠি দিয়েছে ব্যাংক ও নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সহযোগী প্রতিষ্ঠানসহ ২০টি প্রতিষ্ঠান।

গত ৪ নভেম্বর এ ২০ প্রতিষ্ঠান বিএসইসি, ডিএসই এবং সিএসই’র কাছে চিঠি দেয়।

বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এ ২০ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, লঙ্কা-বাংলা সিকিউরিটিজ, ঢাকা ব্যাংক সিকিউরিটিজ, এনসিসি ব্যাংক সিকিউরিটিজ এন্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস, এনবিএল সিকিউরিটিজ, ইবিএল সিকিউরিটিজ, ইউসিবিএল সিকিউরিটিজ, ব্যাংক এশিয়া সিকিউরিটিজ এবং পূবালী ব্যাংক সিকিউরিটিজ।

ব্যাংক কোম্পানি অ্যাক্ট, ২০১৩ এর সংশোধনীতে বলা হয়েছে, ২১ জুলাই, ২০১৬ এর মধ্যে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ ক্যাপিটালের ২৫ শতাংশে নামিয়ে আনতে হবে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, নির্ধারিত সময়ে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ ক্যাপিটালের ২৫ শতাংশে নামিয়ে আনতে হলে ব্যাংকগুলোকে ৬-৭ হাজার কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি করতে হবে। যা বাজারের বর্তমান মন্দা পরিস্থিতিকে আরও খারাপের দিকে নিয়ে যাবে। আর এমন অবস্থায় বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে এবং পুঁজিবাজারকে স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের একান্ত সহযোগীতা প্রয়োজন। তাই এ মন্দাবস্থা থেকে বেরোতে হলে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের এক্সপোজার লিমিটের সময়সীমা ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ সাল পর্যন্ত বাড়াতে হবে।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, এক্সপোজার লিমিটের সময়সীমা না বাড়ানো হলে আগামী কয়েক মাসে পুঁজিবাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের সেল প্রেশার অনেক বেড়ে যাবে। আর সময়সীমা ২০২০ পর্যন্ত বাড়ানো হলে এ সময়ের মধ্যে ব্যাংকের মূলধন বাড়ার পাশাপাশি বিনিয়োগসীমাও সমন্বয় করা সম্ভব হবে। আর এ সিদ্ধান্ত বাজারের স্থিতিশীলতা ফেরাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, চীন, যুক্তরাষ্ট্রসহ উন্নত দেশগুলোর পুঁজিবাজারে ধস নামলে সেখানকার সরকার, কেন্দ্রীয় ব্যাংক ধস ঠেকাতে বড় বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করে। বর্তমান আমাদের পুঁজিবাজারে বড় ধরণের ধস চলছে। আর এ ধস ঠেকাতে আমাদের নিয়ন্ত্রক সংস্থাদেরও যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরি।

এ বিষয়ে ঢাকা ব্যাংক সিকিউরিটিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, পুঁজিবাজারে চলমান মন্দাবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য আমরা বেশকিছু প্রস্তাব দিয়েছি। এর মধ্যে ব্যাংকের এক্সপোজার লিমিটের সময়সীমা ২০২০ পর্যন্ত বাড়ানোর প্রস্তাবে জোর দেয়া হয়েছে। এ প্রস্তাব মেনে নেয়া হলে পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ফিরবে বলে আমরা আসা করি।

এর আগে গত ৩১ অক্টোবর পুঁজিবাজারে ব্যাংক এক্সপোজার লিমিটের সময়সীমা বাড়াতে ডিএসই ব্রোকার্স এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের কাছে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। বাণিজ্য মন্ত্রী এ বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নিবেন বলে আশ্বাসও দিয়েছিলেন।

শেয়ারবাজারনিউজ/অ/মু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.