আজ: রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৮ নভেম্বর ২০১৫, রবিবার |

kidarkar

রাজন হত্যায় ৪ ও রাকিব হত্যায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

rajon-rakibশেয়ারবাজার ডেস্ক: সিলেটে শেখ সামিউল আলম রাজন (১৪) হত্যা মামলার প্রধান আসামি কামরুল ইসলামসহ চারজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত অন্যরা হলেন- জাকির হোসেন পাভেল, রাজীব আহমেদ ময়না ও তাজউদ্দিন বাঁধন।

এদিকে খুলনায় শিশু রাকিব হত্যা মামলায় ওমর শরীফ ও মিন্টুকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। মামলার অন্য আসামি বিউটি বেগমকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

রোববার সিলেট মহানগর দায়রা জজ আকবর হোসেন মৃধা এবং খুলনা মহানগর দায়রা জজ দিলরুবা সুলতানা এ রায় রায় ঘোষণা করেন।

গত ৮ জুলাই চুরির অপবাদে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের কুমারগাঁও বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন শেখপাড়ায় নির্যাতন করে হত্যা করা হয় সিলেটের জালালাবাদ থানা এলাকার বাদেয়ালি গ্রামের সবজি বিক্রেতা রাজনকে। লাশ গুম করার সময় ধরা পড়েন একজন। পরে পুলিশ বাদী হয়ে জালালাবাদ থানায় মামলা করে। ফেসবুকে প্রচারের উদ্দেশ্যে নির্যাতনের ভিডিও চিত্র ধারণ করেন নির্যাতনকারীরা। ১২ জুলাই এই ভিডিও চিত্র সংবাদমাধ্যমে ‘নির্মম পৈশাচিক!’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন ছাপা হয়।

ঘটনার পরপরই পালিয়ে সৌদি আরব চলে গিয়েছিলেন মামলার প্রধান আসামি কামরুল ইসলাম। ইন্টারপোলের মাধ্যমে গত ১৫ অক্টোবর তাকে ফিরিয়ে আনা হয়। তার উপস্থিতিতে মামলার গুরুত্বপূর্ণ ১১ সাক্ষীর পুনরায় সাক্ষ্যগ্রহণের পর একটানা তিন দিন যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদালত রায়ের তারিখ ধার্য করেন।

এদিকে খুলনায় শিশু রাকিব হত্যা মামলায় অভিযোগপত্র থেকে জানা যায়,  রাকিব ‘মিন্টু মটরস’ নামে একটি গ্যারেজে কাজ করত। এরপর এটা ছেড়ে অন্য গ্যারেজে কাজ নেয় সে। ৩ আগস্ট রাকিব পুরনো কর্মস্থলের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় গ্যারেজ মালিক মিন্টু তাকে জোর করে ধরে মোটর টায়ারের পাম্প দেওয়া মেশিনের সাহায্যে মলদারে হাওয়া দেয়। এতে রাকিবের পেট ফুলে উঠলে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তখন স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

৪ আগস্ট রাকিবের বাবা মো. নুরুল আলম বাদী হয়ে মোটরসাইকেল গ্যারেজ মালিক ওমর শরীফ, তার চাচা মিন্টু খান ও শরীফের মা বিউটি বেগমকে অভিযুক্ত করে খুলনা সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/অ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.