আজ: রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, মঙ্গলবার |

kidarkar

ন্যাশনাল টি’র ১২-১৩ শতাংশ শেয়ার এখনও ডিমেট হয়নি

teaশেয়ারবাজার রিপোর্ট : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক খাতের সরকারী মালিকানাধীন ন্যাশনাল টি কোম্পানির মোট শেয়ারের ১২ থেকে ১৩ শতাংশ এখনও কাগুজে অর্থাৎ ইলেক্ট্রনিক শেয়ারে রুপান্তর (ডিমেট) করা হয়নি।

যদিও সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে কাগুজে শেয়ার ডিমেট করা সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির যেসব শেয়ারহোল্ডারদের কাছে থাকা শেয়ার এখনও ডিমেট হয়নি তাদের আগামী দুই মাস অর্থাৎ মার্চের মধ্যে আবেদন করতে হবে। আর যেসব শেয়ারহোল্ডারদের কাছে কাগুজে শেয়ার রয়েছে কিন্তু বিও অ্যাকাউন্ট নেই তাদেরকে অতিসত্ত্বর বিও অ্যাকাউন্ট করে শেয়ার ডিমেটের জন্য আবেদন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আবেদন না করা হলে পরবর্তীতে কাগুজে শেয়ার নিয়ে কোন জটিলতা তৈরী হলে এর দায়দায়িত্ব কোম্পানি নিবে না।

এ প্রসঙ্গে ন্যাশনাল টি এর শেয়ার বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা আজাদ চৌধুরী শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, আমাদের কোম্পানির মোট শেয়ারের ১২ থেকে ১৩ শতাংশ এখনও ডিমেট করা হয়নি। তাই এ শেয়ারগুলোকে ইলেক্ট্রনিক শেয়ারে রুপান্তর করার জন্য সংশ্লিষ্ট শেয়ারহোল্ডারদের আবেদন করার জন্য আহবান জানানো হয়েছে।

ডিএসই সূত্রে জানা যায়, ৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনের এ কোম্পানির মোট ৬৬ লাখ শেয়ার রয়েছে। এর মধ্যে প্রায় সাড়ে ৮ লাখ শেয়ার ডিমেট করা হয়নি।

উল্লেখ্য, কোম্পানিটির ৪.৩৩ শতাংশ শেয়ার সরকারের কাছে, ৬৯.২ শতদাংশ শেয়ার প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে এবং ২৬.৪৭ শতাংশ শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এক নির্দেশনায় তালিকাভুক্ত সকল কোম্পানিকে শেয়ার ডিমেট করার নির্দেশ দিয়েছিল। তবে সর্বনিম্ন ৫৫ শতাংশ শেয়ার ডিমেট সম্পন্ন হলেই সংশ্লিষ্ট কোম্পানির শেয়ার স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন করার সুযোগ দেয়া হয়েছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/অ/মু

 

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.