আজ: রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪ইং, ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১০ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, শনিবার |

kidarkar

১৩ বছর পর পানি শূণ্য হবে সৌদি!

soidi-aribiaশেয়ারবাজার ডেস্ক: সৌদি আরবে আগামী ১৩ বছরের মধ্যে ভূগর্ভস্থ পানির মজুদ শেষ হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। খবর দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের।

বাদশা ফয়সাল বিশ্ববিদ্যালয়ের একজজন অনুষদ সদস্য মোহম্মদ আল-ঘামদি সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, বিশ্বব্যাংক এক প্রতিবেদনে বিশ্ব জুড়ে পানির সংকটের তথ্য তুলে ধরার পর থেকে ভূগর্ভস্থ পানি কমে যাচ্ছে।

সৌদি পত্রিকা আল-ওয়াতানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উপসাগরীয় দেশগুলোতে জনপ্রতি পানি ব্যবহারের হার অনেক বেশি হওয়ায় পানি দ্রুত কমে যাচ্ছে। সৌদি আরবে জনপ্রতি প্রতিদিন ২৬৫ লিটার পানি ব্যবহৃত হয়। ইউরোপের তুলনায় যা দ্বিগুণ।

আল-গামদি বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশিত হিসাবে দেখা গেছে, কৃষি এলাকায় পানির স্তর মারাত্মকভাবে নেমে গেছে।

দ্য নিউ আরব জানিয়েছে, দেশের মধ্যাঞ্চলের পানি ও লেকগুলো শুকিয়ে বালির গর্তে পরিণত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সৌদি আরবে ২টি উপায়ে পানি ব্যবহার করা হয়। ভূগর্ভস্থ পানি ও পরিশোধনের মাধ্যমে সাগরের পানি ব্যবহার করা হয়। কিন্তু সাগরের পানি পরিশোধনে প্রচুর জ্বালানি খরচ হয়। ভূগর্ভস্থ পানির মাধ্যমেই সৌদি আরবের ৯৮ শতাংশ চাহিদা পূরণ হয়।

সৌদি জলবায়ু অধ্যাপকদের বিশ্বাস, ১৯৮৩ সাল থেকে সৌদি আরব গম উৎপাদন শুরু করার পর থেকে দেশটিতে পানির সংকট সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে সৌদিতে গম উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। কিন্তু খড়, খেজুর ও জলপাই চাষ অব্যাহত আছে। এতে অনেক পানি খরচ হচ্ছে।

উল্লেখ্য, আরব উপসাগরীয় এলাকার দেশগুলো সবেচেয়ে বেশি পানির সংকটে রয়েছে। বিশ্বব্যাংকের তথ্য মতে, পানি সংকট বর্তমানে এক নম্বর সমস্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। ২০৩০ সাল নাগাদ ৪০ শতাংশ পানির সংকট দেখা যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/অ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.