আজ: বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪ইং, ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০১ মার্চ ২০১৬, মঙ্গলবার |

kidarkar

সিদ্ধান্ত দেয়নি আদালত: মিউচ্যুয়াল ফান্ডের অবসায়নে বহাল থাকছে বিএসইসি’র নির্দেশনা

Mutualfunds_sharebazarnewsশেয়ারবাজার রিপোর্ট : মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের চলমান রূপান্তর-অবসায়ন প্রক্রিয়া স্থগিত করতে আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে বাদীপক্ষের করা আবেদন নথিভুক্ত করা হলেও এ প্রক্রিয়ার ওপরে কোনো সিদ্ধান্ত দেয়নি আদালত। এতে করে অবসায়ন সম্পর্কে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) দেয়া নির্দেশনা বহাল থাকছে।

আজ মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির পর আবেদনটি নথিভুক্ত করা হয়। মামলার আইনজীবী সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

বিএসইসি পক্ষভুক্ত পাঁচ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিন শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে জানান, বিষয়টি আজ আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি হয়েছে। আদালত রিটকারীর আবেদনটি নথিভুক্ত করতে বলেছেন। তবে বিএসইসির নির্দেশনার ওপরে কোনো সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়নি। তাই বিএসইসির কার্যক্রম চলমান থাকছে।

গতকাল সোমবার চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর আদালতে রিটকারী আলী জামানের পক্ষে এ আবেদন করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। ২৯ মার্চ এ বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ শুনানির কথা রয়েছে।

এদিকে, রূপান্তর-অবসায়নে বিএসইসির নির্দেশনার কারণে আজ স্টক এক্সচেঞ্জে শেষ লেনদেন হচ্ছে এইম ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচুয়াল ফান্ড ও গ্রামীণ ওয়ান স্কিম ওয়ান মিউচুয়াল ফান্ডের। বিএসইসির নির্দেশনা অনুযায়ী, আগামীকাল ফান্ডগুলোর রূপান্তর-অবসায়ন সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট। গত ১৭ ফেব্রুয়ারি এ দুই ফান্ডকে ১৪ দিনের মধ্যে অবসায়নের নির্দেশ দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি মিউচুয়াল ফান্ডের রূপান্তর-অবসায়ন ইস্যুতে নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রজ্ঞাপনকে অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া রায় স্থগিত করেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ২৯ মার্চ পূর্ণাঙ্গ শুনানির দিন ধার্য করা হয়। সেদিন মিউচুয়াল ফান্ডগুলোর রূপান্তর-অবসায়নে বাধা নেই বলে জানিয়েছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এর পর এ দুই ফান্ডের পাশাপাশি রাষ্ট্রায়ত্ত বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) পরিচালিত কয়েকটি ফান্ডেরও রূপান্তর-অবসায়নে নতুন নির্দেশনা দেয় বিএসইসি।

প্রসঙ্গত, সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (মিউচুয়াল ফান্ড) বিধিমালা ২০০১-এর ৫০(খ) ধারায় বলা আছে, কোনো মেয়াদি স্কিমের মেয়াদ এবং পরিমাণ স্কিম ঘোষণার সময়ই নির্ধারণ করতে হবে। তবে শর্ত থাকে যে, স্কিমের মেয়াদ শেষ হওয়ার কমপক্ষে এক বছর আগে ইউনিট মালিকদের বিশেষ সভায় উপস্থিত তিন-চতুর্থাংশ ইউনিটধারীর সম্মতিতে ফান্ডের মেয়াদ অনুরূপ একটি মেয়াদের জন্য বর্ধিত করা যাবে। তবে ২০১০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি কমিশন মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ ও অবলুপ্তি-সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করে, যাতে মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ ১০ বছর নির্ধারণ করার পাশাপাশি যেসব মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ এরই মধ্যে ১০ বছর অতিক্রম করেছিল, সেসব ফান্ডকে ২০১১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে অবলুপ্তির নির্দেশ দেয়া হয়। অবশ্য নানা কারণে এর বাস্তবায়ন বাধাগ্রস্ত হয়।

শেয়ারবাজারনিউজ/অ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.