আজ: রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪ইং, ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০২ এপ্রিল ২০১৬, শনিবার |

kidarkar

‘১৮৯৮ সালের ফৌজদারি আইনে তনু হত্যার বিচার সম্ভব নয়’

sk sinhaশেয়ারবাজার রিপোর্ট : প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, তনু হত্যার ঘটনা একটি আধুনিক অপরাধ। পুরনো মানসিকতায় তদন্ত করে এর সুষ্ঠু বিচার সম্ভব নয়। বর্তমান সমাজ ব্যবস্থার সঙ্গে প্রচলিত ফৌজদারি আইনের মিল নেই। একে ঢেলে সাজাতে হবে। ১৮৯৮ সালের ফৌজদারি আইন দিয়ে তনু হত্যার বিচার করা যাবে না।

শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে ‘বাংলাদেশে আইনের সংস্কার ও আইন কমিশন’ এবং ‘সিলেক্টেড রাইটিংস অন ইন্টারন্যাশনাল ল’: কনস্টিটিউশনাল ল অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস’ শীর্ষক দু’টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। বই দু’টির রচয়িতা আইন কমিশনের সদস্য ড. এম শাহ আলম।

সংসদ সদস্যদের সমালোচনা করে প্রধান বিচারপতি বলেন, আইনপ্রণেতাদের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা হলো আইন বিষয়ে অজ্ঞতা। জাতীয় সংসদে প্রচলিত আইন কিংবা আইনের সংস্কার বিষয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা না হওয়ায় সংসদে আইনের দুর্বল চর্চা হচ্ছে। ফলে প্রতিটি আইনই ত্রুটিপূর্ণ ও অসম্পূর্ণ রয়ে যাচ্ছে।

বিচার ব্যবস্থার প্রতিবন্ধকতা সম্পর্কে সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেন, তিনটি বিষয়ে পরিবর্তন আনা জরুরি। এগুলো প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করছে। এর মধ্যে বিচার ব্যবস্থা বাণিজ্যিক হয়ে যাওয়াটা প্রধান। এছাড়া বর্তমান সমাজ ব্যবস্থার সঙ্গে প্রচলিত আইনের মিল নেই। একে ঢেলে সাজাতে হবে। সেই সঙ্গে অধিকার সচেতন হওয়া সত্ত্বেও আমাদের দায়িত্ব ভুলে যাওয়াটাও অন্যতম প্রতিবন্ধকতা।

মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

আরো উপস্থিত ছিলেন অর্থনীতিবিদ ড. আবুল বারাকাত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চেয়ারম্যান ড. বোরহান উদ্দিন খান জাহাঙ্গীর ও জগন্নাথ বিশ্বাবদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুম বিল্লাহ।

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.