আজ: বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪ইং, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৯ জুন ২০১৬, রবিবার |

kidarkar

‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত যুবক অভিজিৎ হত্যার আসামি

Avijitশেয়ারবাজার ডেস্ক: রাজধানীর খিলগাঁও থানা এলাকায় পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত যুবক ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যার প্রধান আসামি বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত ওই যুবকের নাম শরিফ ওরফে হাদি। তাঁর লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে খিলগাঁও থানার মেরাদিয়া বাঁশপট্টি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর আগে শরিফকে ধরে দিতে পাঁচ লক্ষ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছিল পুলিশ।

ডিবির পরিদর্শক বাহাউদ্দিন জানান, শনিবার দিবাগত রাতে খিলগাঁও থানার মেরাদিয়া বাঁশপট্টি এলাকায় মোটরসাইকেলের আরোহী তিন যুবক পুলিশের তল্লাশিচৌকি পার হচ্ছিল। এ সময় পুলিশ সিগন্যাল দিলে তাঁরা মোটরসাইকেল না থামিয়ে গতি বাড়িয়ে দেন। পরে যুবকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি করে।

ওই সময় ঘটনাস্থলে একজন গুলিবিদ্ধ হন। পরে অপর দুজন মোটরসাইকেল রেখে পালিয়ে যান। বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল ও দুটি গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত বছর ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে অমর একুশে গ্রন্থমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় খুন হন বিজ্ঞানমনস্ক লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়। এ সময় তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাও আহত হন।

এঘটনায় তাঁর বাবা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক অজয় রায় বাদি হয়ে ২৭ ফেব্রুয়ারী সকাল সোয়া ৯টার দিকে শাহবাগ থানায় এই মামলা দায়ের করা হয়। হত্যাকাণ্ড তদন্তে পুলিশকে সহায়তা কতে ঢাকায় আসে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই।

হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে আটজনকে গ্রেপ্তারের করা হয়। তারা সবাই আনসারুল্লাহ বাংলাটিমের সদস্য বলে দাবি পুলিশের। গ্রেপ্তারদের মধ্যে ইন্টারনেটে উগ্রবাদের প্রচারক ব্লগার শফিউর রহমান ফারাবী এবং সিলেটে ব্লগার অনন্ত বিজয় দাস খুনের আসামি মান্নান ইয়াহিয়া ওরফে মান্নান রাহীকে অভিজিৎ হত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

গ্রেপ্তার অন্য ছয়জন ব্রিটিশ নাগরিক তৌহিদুর রহমান, সাদেক আলী, আমিনুল মল্লিক, জুলহাস বিশ্বাস, আবুল বাশার ও জাফরান হাসানের মধ্যে কেউ সরাসরি অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়েছিল বলে সন্দেহ পুলিশের।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.