আজ: রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪ইং, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৩ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার |

kidarkar

বস্ত্র ও পোশাক শিল্পের জন্য ৬,০০০ কোটি টাকার প্যাকেজ

textileশেয়ারবাজার ডেস্ক: তিন বছরে এক কোটি নতুন চাকরি। ১১০০ কোটি ডলারের (৭৩,৭০০ কোটি টাকা) নতুন বিনিয়োগ। তিন হাজার কোটি ডলারের (২,০১,০০০ কোটি টাকা) রফতানি।

এই লক্ষ্য নিয়েই আজ বস্ত্র ও পোশাক শিল্পের জন্য ৬ হাজার কোটি টাকার বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করল নরেন্দ্র মোদী সরকার। যার মধ্যে করছাড়, উৎপাদনে উৎসাহ ভাতা, শ্রম আইন শিথিলের মতো একগুচ্ছ ব্যবস্থা রয়েছে।

চিনের সঙ্গে পাল্লা দিতে বহু দিন ধরেই নতুন বস্ত্রনীতি নিয়ে সরকারের অন্দরমহলে চিন্তা -ভাবনা চলছিল। কারণ এই শিল্পে বিশ্ব বাজারের প্রায় পুরোটাই চিনের মতো দেশগুলিতে সরে গিয়েছে। সস্তায় উৎপাদনের সুযোগই তাদের সাফল্যের চাবিকাঠি। প্রতিবেশী বাংলাদেশও রফতানিতে ভারতকে টেক্কা দিয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি চিনেও শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে সস্তায় উৎপাদনের বাড়তি সুবিধা কমেছে। ভারত তার ফায়দা তুলতে পারে বলে মনে করছিল কেন্দ্র। সামগ্রিক ভাবে রফতানিকে চাঙ্গা করতে তাই বস্ত্রশিল্পকে হাতিয়ার করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়। কারণ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বস্ত্র ক্ষেত্রে গত দু’বছরে রফতানি না-বাড়লেও, তেমন কমেওনি। আজ কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এই বিশেষ প্যাকেজ অনুমোদনের পরে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেন, ‘‘এর ফলে বস্ত্র-পোশাক শিল্পে কর্মসংস্থান তৈরির যে-সুযোগ রয়েছে, তা পুরোপুরি কাজে লাগানো যাবে।’’ বস্ত্র মন্ত্রকের সচিব রশ্মি বর্মা বলেন, ‘‘এই প্যাকেজ ঠিক ভাবে রূপায়ণ করা গেলে তিন বছরের মধ্যে রফতানিতে বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামকে ছাপিয়ে যাব।’’

রাজ্যের করে ভর্তুকি ও উৎপাদন খরচে ভর্তুকির পাশাপাশি এই বিশেষ প্যাকেজের সব থেকে সাহসী সিদ্ধান্ত হল শ্রম আইন শিথিল করা। শিল্পমহল অনেক দিন ধরেই চাইছিল, সারা বছরের জন্য কর্মী নিয়োগ না-করে নির্দিষ্ট কয়েক মাসের জন্য তাদের কাজে নিতে। যুক্তি ছিল, অনেক বস্ত্রশিল্পেই মরসুম অনুযায়ী উৎপাদন হয়। আজ মন্ত্রিসভা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নিয়োগে ছাড়পত্র দিয়েছে। তাঁরা অবশ্য স্থায়ী কর্মীদের মতোই বেতন, ভাতা পাবেন। সপ্তাহে সর্বাধিক ৮ ঘণ্টার সময়সীমা বেঁধে দিয়ে ওভারটাইমের সময় বাড়ানোরও সুবিধা দেওয়া হয়েছে। কাঁচামালের বদলে উৎপাদনশীলতা ও কর্মসংস্থান তৈরির ভিত্তিতে ১৫ থেকে ২৫% পর্যন্ত ভর্তুকি দেওয়া হবে। সিংহভাগ কাজ মহিলারা পাবেন বলে কেন্দ্রের দাবি। কর্মী প্রভিডেন্ট ফান্ড প্রকল্পে সংস্থাগুলিকে বেতনের ১২% জমা করতে হয়। কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত, ১৫ হাজার টাকার কম বেতনের নতুন কর্মীদের জন্য প্রথম তিন বছর সেই দায় পুরোটাই সরকার বহন করবে।

রফতানিকারীদের সংগঠন ফিও-র সভাপতি এস সি রলহন বলেন, ‘‘শ্রম আইন শিথিল করে ন্যূনতম কাজের দিন ২৪০ থেকে কমিয়ে ১৫০ দিন করা হয়েছে। এতে রফতানিকারীরা বরাত সরবরাহের প্রয়োজন অনুযায়ী শ্রমিক নিয়োগ করতে পারবেন।’’ ওয়েলস্পান গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান বি কে গোয়েন্‌কা বলেন, ‘‘বস্ত্রশিল্প শ্রম ভিত্তিক। তাই শ্রম আইন শিথিলের সিদ্ধান্ত সহায়ক হবে।’’

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.