আজ: বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪ইং, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০১ অগাস্ট ২০১৬, সোমবার |

kidarkar

ঝুঁকি মোকাবেলার প্রস্তুতি ও গবেষণা অব্যাহত রাখতে হবে: গভর্ণর

Financial stabilityশেয়ারবাজার ডেস্ক: আজ (সোমবার, ১ আগস্ট) সকাল ১১টায় বাংলাদেশ ব্যাংকে ফাইন্যান্সিয়াল স্ট্যাবিলিটি রিপোর্ট ২০১৫ বা আর্থিক স্থিতিশীলতা প্রতিবেদন মোড়ক উন্মোচিত হয়েছে। এই প্রতিবেদনের মোড়ক উন্মোচন করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণর ফজলে কবির। উক্ত অনুষ্ঠানে গভর্নর বলেন, যদিও আমাদের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো এখনো কোন সিস্টেমিক ঝুঁকির সম্মুখীন হয়নি তবুও ক্রমাগত উদারিকরন ও উন্মুক্ততার সাথে আমাদের আর্থিক খাতে নতুন ঝুঁকি মোকাবেলায় সামর্থ অর্জনের প্রস্তুতি ও গবেষণা অব্যাহত রাখতে হবে।

তিনি বলেন, আর্থিক স্থিতিশীলতা প্রতিবেদন দেশের সামগ্রিক আর্থিক খাতের স্থিতিশীলতা ও সক্ষমতার চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের কার্যক্রম মূল্যায়ন করে থাকে। এ প্রতিবেদনে মূলতা আর্থিক খাতের গতি প্রকৃতি, আর্থিক স্থিতিশীলতায় তার প্রভাব এবং এর মোকাবেলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গৃহীত পদক্ষেপ সমূহ,  ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান সমূহের মূলধন পর্যাপ্ততা, সম্পদের গুনগত মান, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা ও তারল্যের নির্দেশকগুলো বিশ্লেষণ করা হয়েছে। এছাড়া, অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ খাত যেমন মূলধন বাজারের সূচকগুলোর গতিধারা তুলে ধরার পাশাপাশি ক্ষুদ্রঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যক্রম সম্পর্কে একটি মূল্যায়নও এতে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।

Financial stability1গভর্ণর আরো বলেন, আর্থিক খাতের ঝুঁকি ও দুর্বলতা নিরুপণ এবং ঝুঁকিভিত্তিক তদারকি ব্যবস্থায় বাংলাদেশ ব্যাংক অঙ্গীকারাবদ্ধ। এটা উৎসাহব্যঞ্জক যে, সদ্য সমাপ্ত অর্থবছর ২০১৬তে সামষ্টিক স্থিতিশীলতার পাশাপাশি বাংলাদেশের আর্থিক ব্যবস্থায় সার্বিকভাবে ও অভিঘাত সহনক্ষমতা বজায় ছিল। ২০১৫ সাল হতে ব্যাংকিং খাতে ব্যাসেল-৩ মূলধন কাঠামো প্রবর্তনের সূচনা হয়েছে, যার সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন এ খাতের ভিত্তিকে আরো সুসংহত করবে।

এর পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যা কবলিতদের পুনর্বাসনের জন্য তাদের পাশে সকলকে দাড়ানোর জন্য তিনি আহ্বান জানান। এ বিষয়ে তিনি বলেন, দেশের উত্তর অঞ্চলের বেশ কিছু জেলার মানুষ এখন বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। এর সাথে যুক্ত হয়েছে দক্ষিণ অঞ্চলেরও কয়েকটি জেলা। বন্যার পর পরই তাদের পুনর্বাসন জরুরি। তিনি কর্পোরেট ও ব্যাংক বিমার মতো আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে সিএসআর এর আওতায় এই বন্যা দুর্গত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ জানান।

এসময় ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরী বলেন, আপনার শীতের সময়ে সিএসআর এর মাধ্যমে দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ান। তেমনিভাবে এখন বন্যা কবলিত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ান। ওই অঞ্চলের কৃষি ও পল্লীঋণ গ্রহণকারীদের পুনরায় ঋণ প্রদান করার বিষয়টি চলমান রাখতে ব্যাংক ব্যবস্থাপকদের অনুরোধ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহাম্মদ রাজি হাসান, এসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ লিমিটেড (এবিবি) এর সভাপতি আনিস এ. খান, বাংলাদেশ লিজিং এন্ড ফাইন্যান্স কোম্পানিজ এসোসিয়েশন এর সভাপতি মফিজু্দ্দিন সরকার সহ বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ারবাজারনিউজ/রু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.