বাজারমুখী হচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: মুদ্রানীতিকে ইতিবাচক হিসেবে নিয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষও পুঁজিবাজার বান্ধব মুদ্রানীতি ঘোষণা করায় বাংলাদেশ ব্যাংককে ধন্যবাদ জানিয়েছে। ব্যক্তি থেকে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী যারাই মুদ্রানীতির জন্য সাইড লাইনে বসে ছিলেন তারা এখন ফিরতে শুরু করেছে। যে কারণে বাজারে ইতিবাচক প্রভাব পড়তে শুরু করেছে।

আজ সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উত্থানে শেষ হয়েছে লেনদেন। এদিন লেনদেনের শুরু থেকেই ক্রয় প্রেসারে টানা বাড়তে থাকে সূচক। আজ বুধবার সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকেও লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৭৪০ কোটি ৬২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৪৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৩৪৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১২৫৭ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ১২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৮৯৪ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩৬টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৯টির, কমেছে ১২৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৩টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৭৪০ কোটি ৬২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ৩৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫৩০২ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১২৫১ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১৮৮১ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৭৩২ কোটি ৪৭ লাখ ৬ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৮ কোটি ১৫ লাখ ৩৯ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ৮৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৯ হাজার ৯৫০ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৪৬টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১২৯টির, কমেছে ৯৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৩০ কোটি ৭০ লাখ ৪৯ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top