আজ: শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ইং, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৪ ডিসেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

বড় কোনো শক্তি শেয়ারবাজারকে আর ফেলতে পারবে না- বিএসইসি চেয়ারম্যান

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ারবাজারে দুষ্ট কোনো শক্তি যেন বিনিয়োগকারীদের নিঃস্ব করে যেতে না পারে সে বিষয়ে কাজ করছে কমিশন বলে জানিয়েছেন নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম।

আজ বৃহস্পতিবার “রোল অফ ক্যাপিটাল মার্কেট ইন কিপিং ইকোনমি ভাইব্রেন্ট ডিউরিং কোভিড-১৯ পেন্ডেমিক” সেমিনার ও বানিজ্য প্রতিদিনের অনলাইন ভার্সনের অফিসিয়াল উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, কেউ যেন বিনিয়োগকারীদের নিঃস্ব করতে না পারে সে বিষয়ে সরকার সতর্ক রয়েছে ও সে সাথে কমিশনও সতর্ক রয়েছে। সেই সাথে বাজারকে স্থিতিশীল করার বিষয়ে কাজ চলছে। তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে সেটা বাস্তবায়ন দেখা যাবে। এতে বড় বড় কোনো শক্তি বাজারকে আর ফেলতে পারবে না।

আরো আইপিও দেওয়ার বিষয় উল্লেখ করে চেয়ারম্যান বলেন, আমরা আরো আইপিও দিব। আইপিওর মাধ্যমে দেশের বড় বড় ব্যবসায়ীরা তাদের দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নের জন্য ক্যাপিটাল মার্কেট থেকে অর্থ সংগ্রহ করে ব্যবসা সাশ্রয়ী করবে।

এছাড়া তিনি আজকে টেলিকম কোম্পানি রবির লেনদেনে বাজারে প্রভাবের বিষয়ে জানিয়েছেন যে, রবির লেনদেনের কারণে আজকে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে ব্যপক ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। এবং লেনদেনের দিক থেকে সর্বোচ্চ রেকর্ড হতে পারে।

চেয়ারম্যান বলেন, মানুষ কোনদিন বেশি কিনবে, কোনদিন বেশি বিক্রি করবে। ডিমান্ড এবং সাপ্লাইয়ের উপর বাজার উঠা-নামা করবে। এই উঠা-নামা যেন সুস্থভাবে হয়।

শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, শেয়ারবাজারের ভাল অবস্থান এবং উন্নয়ন ধরে রাখার পিছন আস্থা, বিশ্বাস এবং সবার সাহায্য ও সহযোগীতা থাকতে হবে। আইসিবিসহ অন্যান্য সহযোগী প্রতিষ্ঠান ঠিকভাবে রোল প্লে করতে পারে, সেদিকেও আমরা খেয়াল করছি। আরেকটু সময়ের ব্যাপার। তারপর আপনারও বুঝতে পারবেন এই বাজারের সাসটেইনেবিলিটি নিয়ে আর কোন ভয় নাই। সময়টা খুব বেশি লাগবে না। আশা করি তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যেই আপনারা ফিল করবেন।

আইপিও আমরা অনেক দিয়েছি উল্লেখ করে বিএসইসির চেয়ারম্যান বলেন, তারপরও বাজারে কোনো বড় রিঅ্যাকশন দেখতে পাচ্ছি না। আশা করছি এর মাধ্যমে ব্যবসায়ী ও ইন্ডাস্ট্রিজ সবাই বেনিফিটেড হচ্ছে, মার্কেট বেনিফিটেড হচ্ছে এবং যারা বিনিয়োগ করছেন তারাও ভালো করছেন। সব মিলিয়ে আমরা একটা ভালো অবস্থান দেখতে পাচ্ছি।

শিবলী রুবাইয়াত বলেন, কেউ যদি ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে কোভিডের আগে ব্যবসা খুলতেন এবং ব্যাংকের ঋণ পরিশোধ করতে না পারতেন তবে ওই ব্যবসায়ী এবং ব্যাংক উভয়ই বিপদে পড়ে যেত। এই ব্যবসায়ী যদি লংটার্ম নিয়ে শুরু করতেন, ক্যাপিটাল মার্কেট থেকে অর্থ নিয়ে শুরু করতেন। দুই মাস, তিন মাস, পাঁচ মাস, ছয় মাস পারেননি। কোভিডের পর ভালো ব্যবসা করলেন ১০ শতাংশ বা ২০ শতাংশ দিতে পারেননি। তবে ২ শতাংশ বা ৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিতেন। এর ফলে ব্যবসায়ী বাঁচল, প্রতিষ্ঠান বাঁচল এবং প্রতিষ্ঠানের কর্মীরাও বাঁচল। কাজেই প্রত্যেক জায়গার যে রোল থাকে সেটাই করতে হয়।

লংটার্ম ব্যবসার জন্য ক্যাপিটাল মার্কেট থেকে পুঁজি নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে হবে উল্লেখ করে অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত বলেন, ব্যাংক থেকে কেউ যদি ঋণ নিয়ে ব্যবসা শুরু করে সেতো বিপদে পড়ে যাবে। আর ব্যাংক থেকে যার শর্টটার্ম লোন নেয়া দরকার সেতো ক্যাপিটাল মার্কেটে আসলে বিপদে পড়ে যাবে। কাজেই যার যেখানে যাওয়া দরকার, তার সেখানেই যেতে হবে। আর আমার কাছে আসার পর আমি যদি বলি আইপিও দিবো না, তাহলে সে কোথায় যাবে।

বিএসইসির চেয়ারম্যান বলেন, একটা উদীয়মান অর্থনীতিতে ভালো ভালো কোম্পানি আছে। আমাদের অডিটর অ্যাকাউটেন্টসরা যদি সঠিক ভালো তথ্য দিতে পারে এবং সেখানে বিচার বিশ্লেষনের উপর ব্যবসায়ীরা ক্যাপিটাল মার্কেট থেকে পুঁজির সংস্থান পান, আমাদের দেশের জনগণ সেখান থেকে ভালো রিটার্ন পান এবং সেখানে যদি ২০০ বা ৫০০ বা হাজার লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়, তাহলে খারাপ কি। আমরা সেদিকেই যাচ্ছি। আপনার দোয়া করবেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএসইসির কমিশনার ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ, বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক ডা মোঃ মিজানুর রহমান। মূল্য প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মোঃ রেজাউল করিম।

প্যানেল বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আনোয়ার গ্রুপের গ্রুপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মানোয়ার হোসেইন, বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএমবিএ) সভাপতি মোঃ সাইদুর রহমান এবং ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্ট ফোরাম (সিএমজেএফ) সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিএমজেএফের সাধারণ সম্পাদক মুনির হোসেন। এছাড়া অনুষ্ঠানে বিএসইসির কর্মকর্তা ও কর্মচারী সহ সাংবাদিক প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.