আজ: শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১ইং, ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, রবিবার |



kidarkar

শেয়ারবাজারে বিদেশী ও স্পন্সর-ডিরেক্টর মালিকানা বৃদ্ধিতে মুনাফার প্রবণতা কমে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: বাংলাদেশে শেয়ারবাজারের কোম্পানিসমূহে বিদেশী ও স্পন্সর-ডিরেক্টর মালিকানার অনুপাত বৃদ্ধি পেলে প্রকৃত মুনাফা গোপনের প্রবণতা হ্রাস পায়। অন্যদিকে, প্রাতিষ্ঠানিক মালিকানা বৃদ্ধি পেলে প্রকৃত মুনাফা গোপনের প্রবণতা বৃদ্ধি পায় বিষয়ে এক গবেষণায় দেখা গেছে।

আজ রবিবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ক্যাপিটাল মার্কেট (বিআইসিএম) এর মাল্টিপারপাস হলে “বিআইসিএম রিসার্চ সেমিনার-০২” অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেছেন ড. নিতাই চন্দ্র দেবনাথ, অধ্যাপক, বিআইসিএম এবং প্রবন্ধটির শিরোনাম “Ownership Structure and Real Earnings Management: An Empirical Study on Emerging Economy”। ইনস্টিটিউটের নির্বাহী প্রেসিডেন্ট ড. মাহমুদা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানের আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড. স্বপন কুমার বালা, অধ্যাপক, একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ড. মোহাম্মদ আবু ইউছুফ, যুগ্মসচিব, অর্থ মন্ত্রণালয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।বিআইসিএম এর ডিরেক্টর স্টাডিজ ওয়াজিদ হাসান শাহ সেমিনারে সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন।

গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই স্বল্প মেয়াদে তালিকাভুক্ত কোম্পানীসমূহে বিনিয়োগ করে থাকেন। ফলে, দীর্ঘমেয়াদে কোম্পানীর সুশাসন নিশ্চিত করার চাইতে, স্বল্পমেয়াদে লেনদেনের মাধ্যমে শেয়ার বিক্রি করে উচ্চ মুনাফা অর্জন তাদের মূল উদ্দেশ্যে পরিণত হয়।

গবেষণার আরো দেখা যায় যে, বাংলাদেশে কর্পোরেট গভর্নেন্স কোড প্রকৃত মুনাফা ব্যবস্থাপনা বা real earnings management সীমাবদ্ধ করতে উপকারী ভূমিকা পালন করতে পারেনি।

আলোচনায় ড. স্বপন কুমার বালা গবেষণায় প্রাপ্ত ফলাফলের সাথে একমত পোষণ করে বলেন প্রকৃত মুনাফা ব্যবস্থাপনা মানেই সব সময় খারাপ নয় বরং তার দীর্ঘমেয়াদের প্রভাব কেমন তার উপর ভিত্তি করে আমাদের মন্তব্য উচিত।

অন্যদিকে, যুগ্মসচিব ড. মোহাম্মদ আবু ইউছুফ বলেন শেয়ারবাজার শক্তিশালী করার জন্য নতুন নতুন যেই আইন বা নীতিমালা প্রণয়ন করা হচ্ছে তার প্রভাব কেমন সেটাও আমাদের বিবেচনায় আনা দরকার।

এছাড়াও, ইনস্টিটিউটের নির্বাহী প্রেসিডেন্ট ড. মাহমুদা আক্তার যোগ করেন যে, বাংলাদেশের এই এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হওয়ার প্রাক্কালে গুড গভর্নেন্স খুবই জরুরী এবং আর্থিক তথ্যের সঠিক বিবরণী এক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে।

অনুষ্ঠানে বিআইসিএম এর অনুষদ শিক্ষকবৃন্দ, কর্মকর্তা এবং অন্যান্য আমন্ত্রিত অতিথিগণ উপস্থিত ছিলেন যারা সকলেই আগামী দিনগুলোতে শেয়ারবাজারের আরো শক্তিশালী ভূমিকার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করে উক্ত সেমিনারটি শেষ করেন।

 

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.