আজ: শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১ইং, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৮ মে ২০২১, মঙ্গলবার |


kidarkar

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বর্জন সচিবালয় রিপোর্টারদের

শেয়ারবাজার ডেস্ক: সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের জামিন না হওয়া পর্যন্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সব ব্রিফিং ও উন্নয়নমূলক সংবাদ বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে সচিবালয় বিটে কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ)।

সচিবালয়ে মঙ্গলবার (১৮ মে) সংগঠনটির কার্যালয়ে এক জরুরি বৈঠকে রোজিনা ইসলামের মুক্তিও দাবি করা হয়। বৈঠক শেষে সংগঠনের সভাপতি তপন বিশ্বাস কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

সভাপতি বলেন, রোজিনা ইসলামের মুক্তি, তার বিরুদ্ধে আনা মামলা প্রত্যাহার ও তাকে নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার দাবিতে বুধবার বেলা ১১টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করা হবে।

তপন বলেন, ‘মানববন্ধন শেষে সাংবাদিকদের অন্য সংগঠনগুলোর নেতাদের সাথে বসে দাবি আদায়ে পরবর্তী কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। এ ছাড়াও সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের জামিন না হওয়া পর্যন্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সব ব্রিফিং ও উন্নয়নমূলক সংবাদ বর্জন করা হবে।’

তবে জাতীয় স্বার্থ বিবেচনা করে করোনা সংক্রান্ত তথ্য প্রচার বর্জনের আওতামুক্ত থাকবে বলেও জানান বিএসআরএফ সভাপতি।

এর আগে সকালে দৈনিক প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক ও বিএসআরএফ সদস্য রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং বয়কট করা হয়।

বিএসআরএফ, বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামসহ (বিএইচআরএফ) কয়েকটি সংগঠন এ বয়কটে অংশ নেয়।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার কিছু পরে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনটি শুরু হয়। এ সময় মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেছা বেগমসহ জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা উপস্থিত হন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে বিএসআরএফের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ ঘোষণা দেন বর্জনের।

তিনি বলেন, ‘রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করার অভিযোগে এ সংবাদ সম্মেলন বর্জন করা হলো।’

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় গোপন নথি চুরির অভিযোগ এনে মামলা করার পর তাকে মঙ্গলবার আদালতে নেয় শাহবাগ থানা পুলিশ। আদালত রিমান্ড আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়।

মন্ত্রণালয়ে অবরুদ্ধ করার প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর শাহবাগ থানায় এনে রাষ্ট্রীয় গোপন নথি চুরির অভিযোগ তুলে সোমবার রাতে রোজিনার বিরুদ্ধে মামলা করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। মামলাটি দায়ের হয়েছে অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট-১৯২৩ এর ধারা ৩ ও ৫ এর আওতায়। এছাড়াও দণ্ডবিধির ৩৮৯ ও ৪১১ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (১৮ মে) শাহবাগ থানা থেকে তাকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে নেওয়া হয়। এ সময় মামলার যথাযথ তদন্তের প্রয়োজনে রোজিনা ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে ৫ দিনের হেফাজতে পেতে আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সরদার আরিফুর রহমান।

শুনানিতে রোজিনা ইসলামের জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (১৮ মে) শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিম এর আদালত তার রিমান্ড ও জামিনের আবেদন না মঞ্জুরের আদেশ দেন। একই সাথে আগামী ২০ মে (বৃহস্পতিবার) জামিন বিষয়ে শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.