আজ: বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১ইং, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

শেয়ারবাজারের জন্য আরো দুই হাজার কোটি টাকা দেবে এডিবি

1404141592শেয়ারবাজার রিপোর্ট : শেয়ারবাজার উন্নয়নে আরো ২৫০ মিলিয়ন বা ২৫ কোটি মার্কিন ডলার অর্থাৎ প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা ঋণ সহায়তা দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো শেয়ারবাজার উন্নয়নে এডিবি ঋণ সহায়তা প্রদান করছে।

চলতি বছরে এডিবির যেকোনো বোর্ড সভায় এ ঋণ অনুমোদন করা হবে। এডিবির সাউথ এশিয়া বিভাগ,পাবলিক ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ট্রেড ডিভিশন,ফিন্যান্সিয়াল সেক্টরের সিনিয়র ফিন্যান্সিয়াল সেক্টর বিশেষজ্ঞ সৈয়দ আলী মুনতাজ এইচ শাহ শেয়ারবাজার নিউজ ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে ইতিমধ্যে এডিবির দ্বিতীয় মেয়াদের (সিএমপিডিপি-২) ৩০ কোটি ডলার বা আড়াই হাজার কোটি টাকা প্রদান করা হয়েছে।

এই প্রক্রিয়ায় পুঁজিবাজার উন্নয়ন কর্মসূচি (সিএমপিডিপি-৩) বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশের অর্থ ও পুঁজিবাজার উন্নয়নে তৃতীয় মেয়াদে এডিবি ২৫ কোটি মার্কিন ডলার সহায়তা করবে।

এ সংক্রান্ত বিষয়ে দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা হলেন-এডিবির দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের সৈয়দ আলী মুমতাজ এইচ.শাহ।

সূত্র মতে, প্রস্তাবিত এডিবির তৃতীয় পুঁজি বাজার উন্নয়ন কর্মসূচি যার প্রকল্প নং: ৪৫২৫৩-০০২। প্রস্তাবিত পুঁজিবাজার উন্নয়ন কর্মসূচি -৩ এর সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য হলো একটি শক্তিশালী আইনী ও নিয়ন্ত্রণী পরিকাঠামোর ওপর ভিত্তি করে পুঁজিবাজারের সামর্থ্য উন্নয়ন ও এর আয়তন বৃদ্ধি করা।

চলমান ৩০০ মিলিয়ন বা ৩০ কোটি মার্কিন ডলার সমমূল্যের সিএমডিপি-২ কর্মসূচির দ্বিতীয় ও সর্বশেষ কিস্তি ছাড়করণের পরেই বোর্ড কর্তৃক সিএমডিপি-৩ অনুমোদনের সময়সূচি নির্ধারিত রয়েছে।

ইতিমধ্যেই এ অর্থ ছাড় করা হয়েছে। তাই তৃতীয় মেয়াদের দুই হাজার কোটি টাকা এডিবির বোর্ড সভায় অনুমোদনের পরপরই ছাড় করা হবে।

জানা যায়,এডিবি’র পূর্বতন আর্থিক খাতের কর্মসূচিসমূহ এবং অন্যান্য উন্নয়ন সহযোগীদের সাথে সমন্বয়ের ভিত্তিতে বাংলাদেশে ষষ্ঠ পঞ্চ-বার্ষিক পরিকল্পনা হিসেবে আর্থিক খাত কর্মকৌশল প্রণীত হয়েছে। এই কর্মকৌশল জাতীয় অংশীদারিত্ব কর্মকৌশল ও নিউ কান্ট্রি অপারেশনস বিজনেস প্লানের অন্তর্ভুক্ত। ষষ্ট পঞ্চ-বার্ষিক পরিকল্পনা এবং এডিবি’র অগ্রাধিকার কর্মকৌশল ২০২০- এর সাথে সঙ্গতি রেখে বাংলাদেশের সরকারী খাতের পরিচালনা বিষয়ে এডিবির মূল লক্ষ্য হলো পুঁজিবাজার ও বন্ড বাজার উন্নয়নের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদি পরিকাঠামো বিনির্মাণে সহায়তা দেয়া।

এডিবির মূল পরিচালনা অগ্রাধিকার হিসাবে কর্মকৌশল ২০২০-এ পুঁজিবাজারের জন্য সহায়তার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। এর মাধ্যমে ব্যক্তি মালিকানাধীন খাতের উন্নয়ন ও পরিকাঠামোগত উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে যা টেকসই আর্থিক পরিকাঠামো বিনির্মাণের জন্য দেশীয় মুদ্রা তহবিলের দীর্ঘমেয়াদি সহজ লভ্যতার ওপর নির্ভর করে।

প্রস্তাবিত এই কর্মসূচি সরকারের ষষ্ঠ পঞ্চ-বার্ষিক পরিকল্পনা,এডিবির কর্মকৌশল ২০২০ এবং বাংলাদেশের সাথে এডিবির দেশীয় অংশিদারিত্ব কর্মকৌশলের সাথে পুরোপুরিভাবে সঙ্গতিপূর্ণ। এই ক্ষেত্রে একটি নীতিমালা-ভিত্তিক ঋণের প্রস্তাব করা হয়েছে এবং এই মর্মে এর ন্যায্যতা পতিপাদন করা হয়েছে যে,একটি এমন একটি খাতের অন্তর্ভুক্ত যেখানে সরকার নিজেই এর সংস্কার সাধনে বদ্ধ পরিকর।

অন্যদিকে এই সংস্কার কার্যক্রমে গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক এবং সামাজিক ব্যয় সংশ্লিষ্ট রয়েছে এবং অতিরিক্ত সহায়তা ও নীতিমালা ভিত্তিক ঋণ দানের মাধ্যমে প্রণোদনা প্রদান ব্যতিরেখে এর সাবলিল ও সময়োপযোগী বাস্তবায়ন বাধাগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

এদিকে যেসব চুক্তির ভিত্তিতে এডিবির ঋণ সহায়তা প্রদান করছে সেগুলোর শ্রেণিবিভাগ হলো: নিরীক্ষিত হিসাবসমূহ,সুরক্ষা ব্যবস্থাসমূহ,সামাজি,খাত,আর্থিক,অর্থনৈতিক ও অন্যান্য। চুক্তির শর্তপালনের মাত্রা তিন শ্রেণিতে মূল্যায়ন করা হবে। প্রথমত;সন্তোষজনক-এই শ্রেণিতে অন্তর্ভুক্ত সকল চুক্তির সব শর্তপালন করেছে;যেখানে সর্বোচ্চ একটি ব্যতিক্রম গ্রহণযোগ্য হবে। দ্বিতীয়ত;আংশিক সন্তোষজনক-সর্বোচ্চ দুইটি শর্ত পালনে ব্যর্থ হয়েছে এমন সব চুক্তি এই শ্রেণিতে পড়বে। তৃতীয়ত;সন্তোষজনক নয়-যেসকল চুক্তি তিন বা তারও অধিক শর্ত পালনে ব্যর্থ হবে সেগুলো এই শ্রেণিতে পড়বে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালে ব্যাপক ধসে এক প্রকার গতিহীন হয়ে পড়ে পুঁজিবাজার। এ সেক্টরের গতি ফিরিয়ে আনতে ১৯৯৭ সালের নভেম্বর মাসে অর্থাৎ সে সময়ের সংকটাবস্থা কাটিয়ে উঠতে ৮ কোটি ডলার ঋণ সহায়তা দেয় এডিবি। পরবর্তীতে ২০১২ সালের ২৮ নভেম্বর ফিলিপাইনের ম্যানিলায় এডিবির প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বোর্ড সভায় বাংলাদেশের পুঁজিবাজার অবকাঠানো উন্নয়নে দ্বিতীয়বারের ঋণ সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এতে ২ হাজার ৫০০ কোটি টাকা বা ৩০ কোটি ডলার ঋণ হিসেবে দুই কিস্তিতে দেয়া হয়।

এখন পুঁজিবাজার উন্নয়নে তৃতীয় মেয়াদে এডিবির থার্ড ক্যাপিটাল মার্কেট ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম (সিএমডিপি-৩) শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় আরো ২৫ কোটি ডলার ঋণ সহায়ত দেয়া হবে।

 

শেয়ারবাজার/সা/অ/মু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.