মূলধন সংরক্ষণে ব্যর্থ ৫ ব্যাংক

Bangladesh_Bank_Logo.svgশেয়ারবাজার রিপোর্ট : ব্যাসেল-৩ নীতিমালা অনুযায়ী অতিরিক্ত মূলধন রাখতে ব্যর্থ হয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৫ ব্যাংক।

ব্যাংকগুলো হলো: ঢাকা ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক, আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক, আইএফআইসি ও প্রিমিয়ার ব্যাংক।

 ব্যাসেল-৩ নীতিমালা অনুযায়ী, ব্যাংকগুলোকে চলতি বছর থেকে ঝুঁকিভিত্তিক মোট সম্পদের ১০ শতাংশ হারে মূলধন সংরক্ষণ করতে হয়। চলতি বছর থেকে ওই ১০ শতাংশের পাশাপাশি অতিরিক্ত আরও দশমিক ৬২৫ শতাংশ হারে মূলধন সংরক্ষণের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। কিন্তু চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিক অর্থাৎ জানুয়ারি-মার্চ সময়ে ৫ ব্যাংক উল্লেখিত পরিমাণ মূলধন সংরক্ষণ করতে পারেনি। নীতিমালা অনুযায়ী, ঝুঁকিভিত্তিক সম্পদ বলতে ব্যাংকের যেসব ঋণ ও সম্পদ মান খারাপ হয়ে গেছে, সেগুলোকে বোঝানো হয়েছে।

এদিকে, যে ব্যাংকগুলো মূলধন সংরক্ষণে ব্যর্থ হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে কি না, এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি বাংলাদেশ ব্যাংক।

জানা গেছে, ২০১৫ সাল থেকে ব্যাংকগুলোর জন্য ব্যাসেল-৩ নীতিমালা কার্যকর হয়েছে। নীতিমালা অনুযায়ী ২০১৯ সাল পর্যন্ত প্রতিটি ব্যাংকের ঝুঁকিভিত্তিক সম্পদের মোট সাড়ে ১২ শতাংশ মূলধন সংরক্ষণ করতে হবে। ব্যাংকগুলোকে অতিরিক্ত মূলধন সংরক্ষণ করতে হবে কমন ইক্যুইটি টায়ার (মূলধন স্তর)-১ থেকে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছর থেকে অতিরিক্ত দশমিক ৬২৫ শতাংশ মূলধন সংরক্ষণ করার বাধ্যবাধকতা থাকলেও ঢাকা ব্যাংক দশমিক ২৭ শতাংশ, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক দশমিক ১১ শতাংশ, আইএফআইসি ব্যাংক দশমিক শূন্য ২ শতাংশ মূলধন সংরক্ষণ করেছে। আইসিবি ইসলামিক, প্রিমিয়ার কোনো অতিরিক্ত মূলধন সংরক্ষণ করতে পারেনি।

এর পাশাপাশি রাষ্ট্রমালিকানাধীন সোনালী, রূপালী, জনতা, অগ্রণী ও বেসিক, বিশেষায়িত বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক (বিকেবি), বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব) ব্যাসেল-৩ নীতিমালা অনুযায়ী অতিরিক্ত মূলধন রাখতে ব্যর্থ হয়েছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top