আজ: বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১ইং, ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩০শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৪ মার্চ ২০১৫, মঙ্গলবার |


তসরিফার প্রিমিয়াম বাদ দিতে বিএসইসিতে চিঠি

Bangladesh Pujibazar copy_1শেয়ারবাজার রিপোর্ট : সদ্য তালিকাভুক্তির অনুমোদন পাওয়া বস্ত্রখাতের তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডের প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) আবেদনে প্রিমিয়াম বাদ দিতে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) চিঠি দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি বিএসইসির চেয়ারম্যান বরাবর পাঠানো হয়েছে। ঐক্য পরিষদের সভাপতি মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী শেয়ারবাজার নিউজ ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, পুঁজিবাজারে বিগত চার বছর ধরে অস্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করছে। বিনিয়োগকারীরা ক্রমান্বয়ে পুঁজি হারাচ্ছেন। ইতিমধ্যে প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে বেশকিছু কোম্পানিকে  তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। কিন্তু অধিকাংশ কোম্পানিতে বিনিয়োগকারীরা আশানুরুপ ফল পায়নি। যার নেপথ্যে রয়েছে অতিরিক্ত প্রিমিয়াম। দীর্ঘদিনের ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা এই দু:সময়ে প্রিমিয়াম ছাড়া কোম্পানির তালিকাভুক্তিতে কিছুটা ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারেন। সম্প্রতি বস্ত্রখাতের তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজকে শেয়ার প্রতি ১৬ টাকা প্রিমিয়ামযুক্ত করে ২৬ টাকা ইস্যুমূল্যে তালিকাভুক্তির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। দেশের বস্ত্রখাতের মন্দাবস্থা ও তালিকাভুক্ত অন্যান্য বস্ত্রখাতের কোম্পানির শেয়ার মূল্যের চিত্রানুযায়ী বলা যায়, এ কোম্পানিকে কিছুতেই প্রিমিয়াম দেয়া যায় না। এছাড়া কোম্পানির আর্থিক ভীত অত্যন্ত দুর্বল। প্রিমিয়াম দিয়ে এ কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগ করা হলে বিনিয়োগকারীরা অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হবেন।  উদাহরণস্বরুপ : হামিদ ফেবিক্স ৩৫ টাকা ইস্যুমূল্যে তালিকাভুক্তির অনুমোদন পেয়েছে। অথচ বর্তমানে এর দর ইস্যুমূল্যের অনেক নিচে মাত্র ২৫ টাকা। ফারইষ্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং ইন্ডাষ্ট্রিজ ২৭ টাকায় এসেছে। অথচ বর্তমানে এর শেয়ার দর ২১ টাকা। যদিও স্টক ডিভিডেন্ড দিয়ে থিউরিটিক্যাল অ্যাডজাস্টমেন্টে দর নেমে এসেছে। তবুও হিসেব মতে এগুলোতে বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। অন্যদিকে মতিন স্পিনিং এসেছে ৩৭ টাকায় অথচ এর বর্তমান দর ৩৮ টাকা। শাশা ডেনিমস শেয়ার প্রতি ৩৫ টাকা করে বাজারে এসেছে। অথচ বর্তমানে এর দর ৩৭ টাকা। অর্থাৎ বিনিয়োগকারীরা বস্ত্রখাতের কোম্পানিগুলোতে অতিরিক্ত প্রিমিয়াম দিয়ে কোনো মুনাফা করতে পারছেন না। বরং দিনের পর দিন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাই বিনিয়োগকারীদের বাঁচাতে আইপিও অনুমোদন বন্ধ রাখা অথবা প্রিমিয়াম ছাড়া কোম্পানির তালিকাভুক্তির অনুমোদন দেয়া জরুরি হয়ে পড়েছে।
অতএব উপরোক্ত আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে মহোদয়ের নিকট বিনীত নিবেদন, পুনরায় কারেকশন করে তসরিফা ইন্ডাষ্ট্রিজের প্রিমিয়াম বাদ দিয়ে অভিহিত মূল্যে তালিকাভুক্তির অনুমোদন দেয়া হোক।

 

শেয়ারবাজার/রু/সা

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.