আজ: সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১ইং, ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৫ মার্চ ২০১৫, বুধবার |



kidarkar

জাহিন স্পিনিংয়ের তৃতীয় প্রান্তিক প্রকাশ: লেনদেন শুরু ২৫ টাকায়

zaheen-logoশেয়ারবাজার রিপোর্ট: তৃতীয় প্রান্তিক (জুলাই- সেপ্টেম্বর ২০১৪) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা বস্ত্র খাতের কোম্পানি জাহিন স্পিনিং মিলস লিমিটেড।  আজ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২৫ টাকা দরে শুরু হয় এ কোম্পানির শেয়ার লেনদেন। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার দুপর ১টা পর্যন্ত এ কোম্পানির  ৩১ লাখ ৪০ হাজার ১৬৯টি শেয়ার মোট ৬ হাজার ৯১৮ বার হাত বদল হয়। যা টাকার অংকে লেনদেন হয় ৭ কোটি ৯০ লাখ ১ হাজার টাকা। আর এ সময়ে এ কোম্পানির শেয়ার দর ২৪.৫০ টাকা থেকে ২৭ টাকা পর্যন্ত ওঠানামা করে।

এদিকে তৃতীয় প্রান্তিকে জাহিন স্পিনিংয়ের কর পরিশোধের পর মুনাফা করেছে ১ কোটি ১২ লাখ ৯০ হাজার টাকা। কোম্পানির বেসিক শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ১৬ লাখ ৩০ হাজার টাকা এবং বেসিক ইপিএস ছিল ০.৩ টাকা।

উল্লেখ্য, শেয়ারপ্রতি আয় ওয়েটেড এভারেজ আইপিও-পূর্ববর্তী পরিশোধিত শেয়ারের ওপর ভিত্তি করে হিসাব করা হয়েছে যা ২০১৩-২০১৪ উভয় সালে ছিল ৫ কোটি ২৮ লাখ শেয়ার। আর ২০১৪ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর তারিখে সমাপ্ত ৩ মাস সময়ের জন্য আইপিও-পরবর্তী ৬ কোটি ৪৮ লাখ শেয়ারের ওপর ভিত্তি ধরে হিসাব করলে বেসিক ইপিএস হয় ০.১৭ টাকা।

গত নয় ৯ মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ১৪ ) এ কোম্পানির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ৬ কোটি ৪৪ লাখ টাকা এবং বেসিক ইপিএস ১.২২ টাকা। যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৬৮ লাখ ৪০ হাজার টাকা এবং বেসিক ইপিএস ০.১৩ টাকা। তবে এ সময়ে আইপিও-পরবর্তী ইপিএস হবে ০.৯৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হবে ১২.৩০ টাকা।

এদিকে আজ সকাল সাড়ে ১০টায় দেশের উভয় শেয়ারবাজারে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় এ কোম্পানির লেনদেন।  ‘এন’ ক্যাটাগরির আওতায় লেনদেন শুরু করা জাহিন স্পিনিংয়ের ট্রেডিং কোড-ZAHEENSPIN এবং ডিএসইতে কোম্পানি কোড-১৭৪৬৭ । আর সিএসইর কোম্পানি কোড-১২০৫৫। এর আগে দেশের উভয় শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত হয় কোম্পানিটি।

জানা যায়, গত ২ ফ্রেব্রুয়ারি আইপিও লটারির ড্র সম্পন্ন করে জাহিন স্পিনিং। এ কোম্পানির আইপিও আবেদনে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৮৮৭ কোটি ১৬ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা উত্তোলনকৃত অর্থের চেয়ে ৭৩.৯৩ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৫৫৬ কোটি ৯৫ লাখ ২০ হাজার টাকার, ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ৬৩ কোটি ৭১ লাখ ১৫ হাজার টাকার, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে ২৪৫ কোটি ৭৫ লাখ ৬৫ হাজার টাকার এবং প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ২০ কোটি ৭৪ লাখ ৭০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে।

কোম্পানিটির আইপিওতে ২৮ ডিসেম্বর থেকে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিলো ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ১২ কোটি টাকা উত্তোলনের জন্য ১ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছাড়ে। এ জন্য প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। আর মার্কেট লট নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০০ টি শেয়ারে ।

এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫৩০তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিল এমটিবি ক্যাপিটাল লিমিটেড।

উল্লেখ্য, ৩০ জুন ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১২.৫৯ টাকা।

শেয়ারবাজার/অ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.