প্রতিদিনই যোগ হচ্ছে নতুন ক্যাপিটাল; ৬ হাজার পয়েন্টের দিকে হাঁটছে সূচক

bazarশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন শুরুতে উত্থান-পতন থাকলেও ৩০ মিনিট পর ক্রয় প্রেসারে টানা বাড়তে থাকে সূচক ও লেনদেন। বুধবার সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার দর। আগের দিনের তুলনায় টাকার অংকেও বেড়েছে লেনদেন। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭০৪ কোটি টাকা।

তথ্যানুসান্ধানে জানা যায়, এর আগে ২০১১ সালে, ১১ জুলাই ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিলো ১ হাজার ৮০৪ কোটি ৭৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। এরপর টানা সাড়ে ৫ বছরেও লেনদেন  ১৭‘শ কোটি অতিক্রম করতে পারেনি। সেই হিসেবে বিগত সাড়ে পাঁচ বছরের রেকর্ড ভেঙ্গেছে পুঁজিবাজার।

বর্তমান বাজার পরিস্থিতি নিয়ে একাধিক মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারেজ হাউজের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, নানামুখী খবরে বিদায়ী বছরের মাঝামাঝি থেকে পুঁজিবাজার গতিশীল রয়েছে। এটা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে। ধারাবাহিক উত্থানের কারণে দেশের শেয়ারবাজার অনেকটাই বিনিয়োগ উপযোগী হয়ে উঠেছে। বর্তমান বাজার পরিস্থিতি স্থিতিশীলতা থাকায় দেশের পাশাপাশি বিদেশী বিনিয়োগকারীরাও বিনিয়োগে আগ্রহী হয়ে উঠছে। ফলে প্রতিদিনই বাজারে যোগ হচ্ছে নতুন ক্যাপিটাল।  বাজারে দৈনিক লেনদেন, বাজার মূলধন ধারাবাহিক বৃদ্ধির ফলে সূচকেও পড়ছে ইতিবাচক প্রভাব। সরকার যখন বাজার উন্নয়নে মনোযোগী হয়েছে তখন প্রচন্ড সেল প্রেসারও বাজারকে দমাতে পারছেনা। দিরে পর দিন সূচক এগিয়ে যাচ্ছে সামনের দিকে। আজ বাজারে সেল প্রেসার থাকা সত্তেও সূচক বেড়েছে। বাজারে এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে খুব শিগগিরই সূচক ৬ হাজার পয়েন্ট অতিক্রম করবে। পাশাপাশি লেনদেনও দেড় থেকে দুই হাজারের ঘরে থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারা।

দিনশেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৫৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৩৩৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১২৪৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই সূচক ১৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৯০৮ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩২৬ কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১১৯টির, কমেছে ১১৭ টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫ টির। এদিন মোট ৫৭ কোটি ৯৪ লাখ ৭১ হাজার ৬৭৩টি শেয়ার ২ লাখ ৫৮ হাজার ১৫৮ বার হাতবদল হয়। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭০৪ কোটি ৫৫ লাখ ৮৫ হাজার  টাকা।

এর আগে মঙ্গলবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ৬২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫২৭৭ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১২৪০ পয়েন্টে এবং ডিএসই সূচক ১৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১৮৯৪ পয়েন্টে। ওই দিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৯৬ কোটি ৯৪ লাখ ২৯ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৭ কোটি ৬১ লাখ ৫৬ হাজার টাকা।

দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ সূচক ৯৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৯৯৩০ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৭১টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৮টির, কমেছে ৯৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৭টির। আজ সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৯৬ কোটি ৯৪ লাখ ৬৬ হাজার ৩৯২ টাকা। এদিন মোট ৩ কোটি ৮৩ লাখ ৭৪ হাজার ৫১১টি শেয়ার ৩১ হাজার ৫২৩ বার হাতবদল হয়।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

*

*

Top