চাঙ্গাবাজারে কারসাজি রোধে কঠোর বিএসইসি

BSECশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের শেয়ারবাজারে গত কয়েক মাস যাবৎ বইছে সু-বাতাস। যার সুফল ভোগ করছেন দীর্ঘদিন মুনাফার আশায় বিনিয়োগ ফেলে রাখা বিনিয়োগকারীরা। পাশাপাশি বাজার পরিস্থিতি বিবেচনায় সব ধরনের বিনিয়োগকারাই সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ফলে সূচক ও লেনদেনে পড়েছে ইতিবাচক প্রভাব।

বাজার পরিস্থিতি গতিশীল থাকায় ভাল কোম্পানির প্রতি বিনিয়োকারীদের আগ্রহ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তবে সেই সুযোগে দুর্বল কোম্পানিগুলো নিয়ে আবারও কোন মহল যেন কারসাজি করে ফায়দা লুটতে না পারে তার জন্য আরও কঠোর হচ্ছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

বর্তমান বাজার পরিস্থিতিকে স্থিতিশীল রাখতে যথেষ্ট আন্তরিক বিএসইসি। আবার যেন বিনিয়োগকারীরা কোন ধরনের গুজব কিংবা কারসাজির কবলে পড়ে ক্ষতিগ্রস্থ না হন তার জন্য মনিটরিং বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা। বুধবার (১১ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত এক নিয়মিত সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, গত সপ্তাহে তিন কার্যদিবসে মূল্যসূচকের বড় উল্লম্ফন এবং কিছু দূর্বল মৌলভিত্তি সম্পন্ন কোম্পানির শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি বিএসইসি’র নজরে আসে। বাজারের চাঙা ভাবের সুযোগ নিয়ে কারসাজি কিংবা মার্জিন ঋণে অনিয়ম ইত্যাদি বিষয় খতিয়ে দেখতে সংশ্লিষ্ট বিভাগকে সভায় নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় বাজার মৌলের ভিত্তিতে সূচক বাড়লে সেটি নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই বলেও মত দেওয়া হয়।

বিএসইসি বলছে, বাজারে লেনদেন বৃদ্ধি নিয়ে আমাদের কোনো উদ্বেগ নেই। কোনো নীতিমালায়ও কোনো পরিবর্তন আনা হচ্ছে না। বাজারে দৈনিক ৩শ কোটি টাকার লেনদেনের সময় সংশ্লিষ্টদেরকে যে সহযোগিতা করা হয়েছে, তার ধারাবাহিকতা এখনও বজায় থাকবে। আমরা শুধু সতর্ক থাকতে চাই, বাজারের গতিশীলতার সুযোগে যাতে কোনো অনিয়ম বা আইন বহির্ভূত কর্মকাণ্ড না হয়। তাই মনিটরিং বাড়ানো এবং কোনো অনিয়ম চিহ্নিত হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/রু

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top