সূচক বৃদ্ধির আড়ালে শতাধিক কোম্পানির দর সংশোধন

bazarশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে আজ সূচক বৃদ্ধির আড়ালে শতাধিক কোম্পানির দর সংশোধন হয়েছে। তবে গতকাল পতনের পর আজও সূচকের উত্থান অব্যাহত রয়েছে। যদিও সেল প্রেসারের কারণে বীমা খাতে বড় ধরণের দর পতন ঘটেছে। তারপরও সূচকে ১০ পয়েন্ট বেড়েছে। যা বিনিয়োগকারীদের কিছুটা হলেও স্বস্তি দিয়েছে।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন শুরুতে উত্থান-পতন থাকলেও তিন ঘন্টা পর ক্রয় চাপে টানা বাড়তে থাকে সূচক। এরই ধারাবাহিকতায় সূচক ও লেনদেন বেড়েছে। যদিও শেষ ভাগে আর্থিক, খাদ্য, প্রকৌশল এবং বস্ত্র খাতের উপর ভর করে উত্থানে ফেরে সূচক। বৃহস্পতিবার লেনদেন শেষে সূচক বাড়লেও কমেছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। তবে টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। আলোচিত সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬২ কোটি টাকা।

দিনশেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ১০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৫৯০ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৩০৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২০২৭ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩২৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১১৮টির, কমেছে ১৫৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬২ কোটি ৭৬ লাখ ২২ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ বুধবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ১৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৫৫৮০ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৩০৪ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২০২৫ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৫৩ কোটি ৬১ লাখ ২০ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৯ কোটি ১৫ লাখ ২ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক ৩৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১০ হাজার ৫০৫ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৫৬টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১১৭টির, কমেছে ১০৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৬৩ কোটি ৫০ লাখ ২৭ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

*

*

Top