ডিভিডেন্ড ঘোষণা করা ১৩ কোম্পানির হাল-চাল

Divident_sb news_ডিভিডেন্ডশেয়ারবাজার রিপোর্ট: ডিভিডেন্ড ঘোষণা করছে দেশের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক, বীমা, নন ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং বহুজাতিক কোম্পানি। ইতিমধ্যে ১৩ কোম্পানি সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য বিভিন্ন শতাংশে ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। ডিভিডেন্ড ঘোষনার পর থেকে এগুলোর শেয়ার দরে পরিবর্তন এসেছে। ডিভিডেন্ড ঘোষণা করা কোম্পানিগুলো হলো: ডাচ বাংলা ব্যাংক, আরএন স্পিনিং, ইউনাইটেড ফাইন্যান্স, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স, প্রাইম ইন্স্যুরেন্স, আইডিএলসি ফাইন্যান্স, এসআইবিএল, আইপিডিসি, লংকা বাংলা ফাইন্যান্স, গ্রীণ ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স, গ্রামীণ ফোন, আরএকে সিরামিক এবং প্রাইম ফাইন্যান্স।

এক বিশ্লেষণে দেখা গেছে- ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ডিভিডেন্ড ঘোষণার পর কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর বেড়ে চলেছে। বিশ্লেষকরা বলছেন- সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিগুলোর পারফরমেন্স ভাল এবং ডিভিডেন্ড ভাল দেয়ায় কোম্পানির শেয়ারে আগ্রহ বাড়ছে। আবার যারা বিনিয়োগকারীদের হতাশ করেছে তাদের শেয়ার থেকে বিনিয়োগকারীরা মুখ ফিরিয়েও নিচ্ছে।

ডাচ বাংলা ব্যাংকের ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ৩০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮.৮১ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ৮৮.৩০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২৪.৫৭ টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ১৫.১০ টাকা, ৮৩.৭৭ টাকা এবং ২৯.৫০ টাকা।

ডাচ বাংলা ব্যাংকের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২২ ফেব্রুয়ারি সন্ধা ৭টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভার ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার সম্ভাবনায় অর্থ বছরের শেষ দিক থেকেই কোম্পানির শেয়ারের দর বাড়তে থাকে। এ সময় কোম্পানির শেয়ার দর প্রায় ৯ টাকা বা ৮.৩০ শতাংশের মত বাড়ে। পর ১৯ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত শেয়ারদর ওই অবস্থায় ওঠানামা করে ৩ কার্যদিবসে (২০,২২ ও ২৩ ফেব্রুয়ারি) এর দর কমে ১০.২০ টাকা বা ৮.৫১ শতাংশ। এরপর ২২ ফেব্রুয়ারি আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশের পর শুধু ২৩ ফেব্রুয়ারি কোম্পানির শেয়ারদর কমেছে ৯ টাকা বা ৭.৫৬ শতাংশ।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সমাপ্ত অর্থ বছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী আগের বছরের তুলনায় কোম্পানির ইপিএস কমেছে ৬.২৯ টাকা বা ৪১.৬৬ শতাংশ। আর কোম্পানির ইপিএসে এ প্রবৃদ্ধি কমার কারণেই বিনিয়োগকারীরা শেয়ারটি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন।

আরএন স্পিনিং ৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত ১৮ মাসের আর্থিক সময়ের জন্য ২০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। একই সাথে কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪, ২০১৩ এবং ২০১২ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ‘নো ডিভিডেন্ড’ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ মার্চ ২০১৭।

কোম্পানিটির শেয়ারদর গত বছরের (২০১৬) নভেম্বরের মধ্যভাগ থেকে বাড়তে থাকে। যা চলতি বছরের মধ্য ভাগ পর্যন্ত বাড়ে প্রায় ১৫.৫০ টাকা বা ৮৮ শতাংশ। আরএন স্পিনিংয়ের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২২ ফেব্রুয়ারি। ডিভিডেন্ড ঘোষণার পর এক কার্য দিবসে (২৩ ফেব্রুয়ারি) এর দর কমেছে ২.৪০ টাকা বা ৮.০৮ শতাংশ।

বিশ্লেষকদের মতে কোম্পানিটি ১৮ মাসের ডিভিডেন্ড ঘোষণা করলেও বহুল প্রতিক্ষীত ৩টি অর্থ বছরের জন্য (২০১৪, ২০১৩ এবং ২০১২) ‘নো ডিভিডেন্ড’ এর ঘোষণা দেয় হয়েছে। যার কারণে কোম্পানির শেয়ারে আগ্রহ কমে যাচ্ছে।

ইউনাইটেড ফাইন্যান্স লিমিটেড ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ৫ শতাংশ স্টক এবং ১০ শতাংশ ক্যাশ (মোট ১৫ শতাংশ) ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২৭ এপ্রিল সকাল ১০টায় রাজধানীর লেডিস ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ মার্চ ২০১৭।

ইউনাইটেড ফাইন্যান্স সমাপ্ত অর্থবছরে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ১.৮৪ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭.২৯ টাকা। এছাড়া আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি নিট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২.৮৬ (নেগেটিভ)

ইউনাইটেড ফাইন্যান্সের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২৩ ফেব্রুয়ারি। কোম্পানিটির শেয়ার দর গত বছরের (২০১৬) নভেম্বর থেকে সর্বশেষ তথ্য পর্যন্ত শেয়ার দর বেড়েছে ৫.৮০ টাকা বা ৩০ শতাংশ।

রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্সের একই অর্থ বছরের জন্য ১৫ শতাংশ ক্যাশ ও ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ডসহ মোট ২৫ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ৩০ এপ্রিল সকাল ১১টায় রাজধানীর লেকশো’র হোটেল, গুলশানে অনুষ্ঠিত হবে। এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.৫৩ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪.০১ টাকা। শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৫৬ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ২.৫১ টাকা। এছাড়া শেয়ার প্রতি নেট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ৫৫.৮১ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৫২.৬০ টাকা।

রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্সের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২৩ ফেব্রুয়ারি। গত বছরের (২০১৬) মে মাস থেকে কোম্পানিটির শেয়ার দর টানা বেড়ে চলেছে। ওই সময় থেকে সর্বশেষ তথ্যমতে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ১৭.৫০ টাকা বা ৪৭.৪৩ শতাংশ।

প্রাইম ইন্স্যুরেন্স ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ১৩ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৮২ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ১৬.৩৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৩৬ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ২.১১ টাকা, ১৫.৮৩ টাকা এবং ১.৭৩ টাকা (নেগেটিভ)।

প্রাইম ইন্স্যুরেন্সের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২০ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৪টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভার ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার সম্ভাবনায় ৩ কার্য দিবসে (১৬,১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি) কোম্পানির শেয়ার দর কমে ০.৯০ টাকা বা ৪.২৭ শতাংশ। পর এক কার্যদিবসে (২২ ফেব্রুয়ারি) এর দর বেড়েছে ০.২০ টাকা বা ০.৯৯ শতাংশ।

আইডিএলসি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ৩০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭.০৮ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ৩৫.৫৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৪.৭৬ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৫.৮১ টাকা, ৩০.৯৭ টাকা এবং ২০.৯৬ টাকা।

আইডিএলসি’র ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২০ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৪টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভার ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার সম্ভাবনায় ১৩ কার্য দিবসের মধ্যে ৪ কার্য দিবস এর দর কমে এবং ৭ কার্য দিবস বাড়ে। ডিভিডেন্ড ঘোষণার পর কোম্পানির শেয়ার দর ১.৬০ টাকা বা ২.২৮ শতাংশ বাড়ে।

এসআইবিএল’র ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ২০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.১০ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ১৯.২২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.০২ টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ২.৭৭ টাকা, ১৮.৪২ টাকা এবং ৬.৫৯ টাকা।

এসআইবিএল’র ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২০ ফেব্রুয়ারি দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে। এ কোম্পানির বোর্ড সভার ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার সম্ভাবনায় ৪ কার্য দিবসে কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে ১.২০ টাকা বা ৫.৭৭ শতাংশ। এছাড়া গত বছর (২০১৬) নভেম্বরের মধ্যভাগ থেকে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ধারাবাহিক ভাবে। এ সময়ে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ৫.৩০ টাকা বা ৩১.৭৪ শতাংশ।

আইপিডিসি’র ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ২০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২ মে ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৩ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ১৮.৩২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৭.৪৮ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ১.৫৯ টাকা, ১৬.৩৩ টাকা এবং ২.১৩ টাকা।

আইপিডিসি’র ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকাল সাড়ে ৩টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভার ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার সম্ভাবনায় ৪ কার্য দিবসে কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে ৩.৪০ টাকা বা ৭.৫৭ শতাংশ। এছাড়া গত বছর (২০১৬) অক্টোবরের শেষভাগ থেকে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ধারাবাহিক ভাবে। এ সময়ে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ১৩.৪০ টাকা বা ৩৮.৪০ শতাংশ।

লংকা বাংলা ফাইন্যান্স ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ১৫ শতাংশ ক্যাশ এবং শতাংশ স্টক (মোট ৩০ শতাংশ) ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ৯ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৮৭ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ২৪.১৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৯.০২ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ১.৫৩ টাকা, ২২.৬৩ টাকা এবং ১০.৭২ টাকা।

লংকা বাংলা ফাইন্যান্সের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ১৩ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৩টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভার ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার পর ৬ কার্য দিবসে কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে ৮.২০ টাকা বা ১৫.৮৯ শতাংশ। এছাড়া গত বছর (২০১৬) অক্টোবরের শেষভাগ থেকে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ধারাবাহিক ভাবে। এ সময়ে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ৩৩.২০ টাকা বা ১২৪.৮১ শতাংশ।

গ্রীণ ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ২০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.০৮ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ৬৯.৯৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.১৬ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ২.৮৫ টাকা, ৭০.৫৪ টাকা এবং ০.৪৬ টাকা।

গ্রীণ ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ১১ ফেব্রুয়ারি দুপুর দেড়টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভায় ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার পর ৮ কার্য দিবসের মধ্যে সর্বশেষ কার্য দিবসে কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে। বাকি কার্য দিবসগুলোতে এর দর কমেছে। এছাড়া গত বছর (২০১৬) ডিসেম্বরের শেষভাগ থেকে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ধারাবাহিক ভাবে। এ সময়ে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ১১.৯০ টাকা বা ২৪.৫৯ শতাংশ।

গ্রামীণ ফোন ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ৯০ শতাংশ চূড়ান্ত ক্যাশ (৮৫ শতাংশ অন্তর্বর্তীকালীন সহ মোট ১৭৫ শতাংশ ক্যাশ) ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ এপ্রিল ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৬.৬৮ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ২৪.৮৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৩৪.১৮ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ১৪.৫৯ টাকা, ২২.৬৮ টাকা এবং ২৮.৭৩ টাকা (নেগেটিভ)।

গ্রামীণ ফোনের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ৩১ জানুয়ারি দুপুর সাড়ে ৩টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভায় ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার পর ১৫ কার্য দিবসে এ কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে ১২ টাকা বা ৪.২৪ শতাংশ। এছাড়া গত বছর (২০১৬) সেপ্টেম্বরের শেষভাগ থেকে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ধারাবাহিক ভাবে। এ সময়ে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ৫৭ টাকা বা ২১.৭৩ শতাংশ।

আরএকে সিরামিক ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ২০ শতাংশ ক্যাশ এবং ৫ শতাংশ স্টক (মোট ২৫ শতাংশ) ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৯ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট ছিল ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৭২ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ১৮.১৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৩.২৭ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৩.২৫ টাকা, ১৭.৯৩ টাকা এবং ২.৭৩ টাকা।

আরএকে সিরামিকের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২৩ জানুয়ারি দুপুর সাড়ে ৭টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভায় ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার পর ১৪ কার্য দিবসে এ কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে ৬.৬০ টাকা বা ৯.৯৫ শতাংশ। এরপর ৭ কার্য দিবসে এর দর কমেছে ৬.৭০ টাকা বা ৯.১৯ শতাংশ। এছাড়া গত বছর (২০১৬) নভেম্বরের শুরু থেকে এ কোম্পানির শেয়ারদর বাড়ছে ধারাবাহিক ভাবে।

প্রাইম ফাইন্যান্স ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত অর্থ বছরের জন্য ‘নো ডিভিডেন্ড’ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মার্চ ২০১৭ এবং রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪ মার্চ ২০১৭।

সমাপ্ত অর্থ বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৩.৪৮ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ১০.২১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৩.৩৪ টাকা (নেগেটিভ)। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল যথাক্রমে লোকসান ১.৫৩ টাকা, ১৩.৬৯ টাকা এবং ৩.৬২ টাকা।

প্রাইম ফাইন্যান্সের ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত বোর্ড সভা ছিল ২০ ফেব্রুয়ারি বিকাল সাড়ে ৩টায়। এ কোম্পানির বোর্ড সভার ডিভিডেন্ডের ঘোষনা আসার সম্ভাবনায় ১ কার্য দিবস কোম্পানির শেয়ার দর বাড়ার পর আবার পরের কার্যদিবসে এর দর আবার কমে যায়। অনেকে বলছে কোম্পানিটি ডিভিডেন্ডে বিনিয়োগকারীদের হতাশ করায় এর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে বিনিয়োগকারীরা।

শেয়ারবাজারনিউজ/রু

আপনার মন্তব্য

Top