ক্রয় প্রেসারে গড় লেনদেন বেড়েছে ৩২ শতাংশ

bazarশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহের ৪ কার্যদিবসের মধ্যে ৩ দিনই বেড়েছে সূচক। তবে ১ কার্যদিবস সূচক কমলেও এর মাত্রা ছিলো খুবই সামান্য। দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) একই অবস্থা। এরই ধারাবহিকতায় সূচকের পাশাপাশি ডিএসইতে গড় লেনদেনের পরিমান বেড়েছে ৩২.২১ শতাংশ। এদিকে সূচকের বাড়লেও সপ্তাহজুড়ে বেশির ভাগ কোম্পানিগুলো দর কমেছে। আর সপ্তাহ শেষে ডিএসইতে গড় লেনদেন হয়েছে ৭১০ কোটি ৪৬ লাখ ৭০ হাজার ৯১৪ টাকা। আর সপ্তাহজুড়ে ডিএসইর লেনদেন কমেছে ১.৪৩ শতাংশ।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সপ্তাহিক ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬.২৯ পয়েন্ট বা ০.১১ শতাংশ বেড়েছে। আর ডিএসইএক্স শরিয়াহ সূচক বেড়েছে ১.১৪ পয়েন্ট বা ০.০৯ শতাংশ ও ডিএসই ৩০ সূচক কমেছে ১.০০ পয়েন্ট বা ০.০৫ শতাংশ। আর সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে ৩৩৩টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩১টি, কমেছে ১৮৩টি, অপরিবর্তিত রয়েছে ১৭টি  এবং লেনদেন হয়নি ২টি কোম্পানির। এগুলোর উপর ভর করে মোট ২ হাজার ৮৪১ কোটি ৮৬ লাখ ৮৩ হাজার ৬৫৬ টাকা লেনদেন হয়েছে। দৈনিক গড় হিসাবে এ লেনদেন হয়েছে ৭১০ কোটি ৪৬ লাখ ৭০ হাজার ৯১৪ টাকা। যা আগের সপ্তাহে ২ হাজার ৮৮৩ কোটি ১৯ লাখ ৮২ হাজার ১৩৪ টাকা লেনদেন হয়েছিল। এবং দৈনিক গড় হিসাবে এ লেনদেন হয়েছিলো ৫৭৬ কোটি ৬৩ লাখ ৯৬ হাজার ৪২৬ টাকা। সে হিসেবে আগের সপ্তাহের তুলনায় ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেনের পরিমান বেড়েছে ১৩৩ কোটি ৮২ লাখ ৭৪ হাজার ৪৮৮ টাকা।

মোট লেনদেনের ৯৩.৫৮ শতাংশ এ ক্যাটাগরিভুক্ত, ৪.১৯ শতাংশ বি ক্যাটাগরিভুক্ত, ১.০৪ শতাংশ এন ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ১.১৯ শতাংশ জেড ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে হয়েছে।

এদিকে, দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসইএক্স কমেছে ৮.৬৫ পয়েন্ট ০.০৮ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ২৭৬টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৮টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ১৪০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টির। আর সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয়েছে ১৮৪ কোটি ৬৬ লাখ ১৭ হাজার ২২৬ টাকার শেয়ার।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top