নেতিবাচক প্রবণতায় চলছে লেনদেন

price-up-downশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবসে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ইতিবাচক ধারায় শুরু হয়েছিল লেনদেন এবং শুরুর প্রথম ঘন্টায় ইতিবাচক অবস্থানে ছিল ডিএসইএক্স সূচক। এ সময়ের মধ্যে সূচক প্রায় ২২ পয়েন্ট ঊর্ধ্বমুখী ছিল। এরপরই হঠাৎ বিক্রির চাপ শুরু হলে নামতে থাকে সূচক। দুপুর ১২টা পর্যন্ত বিক্রির চাপ ক্রমেই বাড়তে থাকে এবং সূচক পতনে চলে যায়। যদিও পরবর্তীতে আবার ঘুরে দাঁড়ানোয় চেষ্টা অব্যাহত থাকে। বাজারের সার্বিক পরিস্থিতি থাকলেও মাঝে মাঝে সূচকের গতিবিধিকে নড়বড়ে মনে হয়। কারণ সূচকের গতিতে ধারাবাহিকতার অভাব ছিল। প্রথমার্ধে এমন উত্থানের পর হঠাৎ করে এত বেশী বিক্রয় চাপ কিছুটা শঙ্কায় ফেলে বিনিয়োগকারীদের। এতে একটি শ্রেণি শেয়ারের দাম বাড়িয়ে মুনাফা বের করে নিতে পারে। তাই স্বল্প মেয়াদের বিনিয়োগকারীদের বাজারের ট্রেন্ড বুঝে মুনাফা হলেই শেয়ার বিক্রি করে বেরিয়ে যেতে হবে। আর যারা দীর্ঘ মেয়াদের বিনিয়োগকারী তাদের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। দীর্ঘ সময়ের জন্য বিনিয়োগ করলে বছরের একটি সময় অবশ্যই মুনাফা পাওয়া যাবে। সে সময় পর্যন্ত ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করতে হবে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

আজকের দুপুরের বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, বুধবার লেনদেন শুরুর প্রথম দুই ঘন্টায় সূচক কিছুটা কমলেও বেড়েছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকে লেনদেনে রয়েছে স্বাভাবিক গতি। আজ দুপুর সাড়ে ১২টায় ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫৭৯৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৩১২ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২১১৯ পয়েন্টে। এ সময় লেনদেন হওয়া ৩১৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৪টির, দর কমেছে ১২৬টির এবং দর অপরিবর্তীত রয়েছে ৪৮টির। এ সময় টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২৬৩ কোটি ১ লাখ ৬৯ হাজার টাকা।

অথচ এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ১৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫৮১৫ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১৩১৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ২১৩০পয়েন্টে। এ সময় টাকার অংকে লেনদেন হয় ২৪৩ কোটি ৮১ লাখ ৭৮ হাজার টাকা।

অন্যদিকে দুপুর সাড়ে ১২টায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক আগের দিনের চেয়ে ৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৭ হাজার ৯৯৪ পয়েন্টে। এ সময় লেনদেন হওয়া ২০৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৩টির, দর কমেছে ৭৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার দর। আলোচিত সময়ে টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১৪ কোটি ৯১ লাখ ১ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top