৪ কোম্পানিকে জরিমানা

BSECশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সিকিউরিটিজ আইন পরিপালন না করায় ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেটের চার কোম্পানির আর্থিক জরিমানা করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। কোম্পানিগুলো হলো: রোজ হ্যাভেন বলপেন, আমাম সী ফুড, বায়োনীক সী ফুড এক্সপোর্টস লিমিটেড এবং রাসপিট ইঙ্ক (বিডি) লিমিটেড। বিএসইসির এনফোর্সমেন্ট বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, রোজ হ্যাভেন বলপেন ৩০ জুন,২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ১৩৪ দিনের মধ্যে স্টক এক্সচেঞ্জ ও শেয়ারহোল্ডারদের দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। এছাড়া ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ অর্থবছরের তৃতীয় প্রান্তিক আর্থিক প্রতিবেদন ৪৫ দিনের মধ্যে দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। বিএসইসির পক্ষ থেকে এর কারণ দর্শানোর জন্য রোজ হ্যাভেন বলপেনকে শোকজ নোটিশ দেয়া হলেও কোম্পানিটি শুনানীতে আসেনি। এ সংক্রান্ত সিকিউরিটিজ আইন ভঙ্গের কারণে কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সফিকুর রহমান চৌধুরীকে এক লাখ জরিমানা করেছে কমিশন যা ১৫ দিনের মধ্যে কমিশনের অনুকূলে ব্যাংক ড্রাফট বা পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে। যদি এই জরিমানা প্রদানে ব্যর্থ হয় তাহলে কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালককে প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা অতিরিক্ত জরিমানা গুনতে হবে।

 আমান সী ফুড ৩০ জুন,২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ১৩৪ দিনের মধ্যে স্টক এক্সচেঞ্জ ও শেয়ারহোল্ডারদের দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। এছাড়া ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ অর্থবছরের তৃতীয় প্রান্তিক আর্থিক প্রতিবেদন ৪৫ দিনের মধ্যে দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। বিএসইসির পক্ষ থেকে এর কারণ দর্শানোর জন্য কোম্পানিকে শোকজ নোটিশ দেয়া হলেও কোম্পানিটি শুনানীতে আসেনি। এ সংক্রান্ত সিকিউরিটিজ আইন ভঙ্গের কারণে কোম্পানিটির চেয়ারম্যান মো: মাহবুবুর রহমানকে এক লাখ জরিমানা করেছে কমিশন যা ১৫ দিনের মধ্যে কমিশনের অনুকূলে ব্যাংক ড্রাফট বা পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে। যদি এই জরিমানা প্রদানে ব্যর্থ হয় তাহলে কোম্পানির চেয়ারম্যানকে প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা অতিরিক্ত জরিমানা গুনতে হবে।

 বায়োনীক সী ফুড এক্সপোর্টস লিমিটেড ৩১ ডিসেম্বর,২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ১৩৪ দিনের মধ্যে স্টক এক্সচেঞ্জ ও শেয়ারহোল্ডারদের দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। এছাড়া ৩১ মার্চ ২০১৫ অর্থবছরের তৃতীয় প্রান্তিক আর্থিক প্রতিবেদন ৪৫ দিনের মধ্যে দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। এ সংক্রান্ত সিকিউরিটিজ আইন ভঙ্গের কারণে কোম্পানিটির চেয়ারম্যান মো: আতিয়ার রহমানকে এক লাখ জরিমানা করেছে কমিশন যা ১৫ দিনের মধ্যে কমিশনের অনুকূলে ব্যাংক ড্রাফট বা পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে। যদি এই জরিমানা প্রদানে ব্যর্থ হয় তাহলে কোম্পানির চেয়ারম্যানকে প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা অতিরিক্ত জরিমানা গুনতে হবে।

রাসপিট ইঙ্ক (বিডি) লিমিটেড ৩০ জুন,২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ১৩৪ দিনের মধ্যে স্টক এক্সচেঞ্জ ও শেয়ারহোল্ডারদের দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। এছাড়া ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ অর্থবছরের তৃতীয় প্রান্তিক আর্থিক প্রতিবেদন ৪৫ দিনের মধ্যে দাখিল করতে বাধ্য থাকলেও কোম্পানিটি তা করেনি। বিএসইসির পক্ষ থেকে এর কারণ দর্শনোর জন্য রাসপিট ইঙ্ককে শোকজ নোটিশ দেয়া হলেও কোম্পানিটি শুনানীতে আসেনি। এ সংক্রান্ত সিকিউরিটিজ আইন ভঙ্গের কারণে কোম্পানিটির চেয়ারম্যান মো: আব্দুর রাজ্জাককে এক লাখ জরিমানা করেছে কমিশন যা ১৫ দিনের মধ্যে কমিশনের অনুকূলে ব্যাংক ড্রাফট বা পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে। যদি এই জরিমানা প্রদানে ব্যর্থ হয় তাহলে কোম্পানির চেয়ারম্যানকে প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা অতিরিক্ত জরিমানা গুনতে হবে।

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

Top