৭ ক্যাটাগরিতে সেরা স্থপতিদের পুরস্কার দিল বার্জার পেইন্টস

photoশেয়ারবাজার রিপোর্ট: ২৩ নভেম্বর ২০১৭ তারিখে ৮ম বার্জার অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সেলেন্স ইন আর্কিটেকচার (বি.এ.ই.এ)-এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আয়োজিত হলো ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। বার্জার পেইন্টস্ বাংলাদেশ লিমিটেড ২০০৩ সাল থেকে ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্টস্ বাংলাদেশ (আইএবি)-এর সহযোগিতায় দুই বছর পরপর এই প্রতিযোগিতা আয়োজন করে আসছে, যা অসংখ্য মেধাবী স্থপতিদের উৎসাহ এবং অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে।

অনুষ্ঠানে বার্জার পেইন্টস্ বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরী দেশের স্বনামধন্য স্থপতিদের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং বিজয়ীদেরকে অভিনন্দন জানান। ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্টস্ বাংলাদেশ (আইএবি)-এর প্রেসিডেন্ট- কাজী গোলাম নাসির তার বক্তব্যে এই অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রামের সাফল্যের কথা তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন এবারের প্রতিযোগিতার অ্যাওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটর শাহনেওয়াজ মাসুদ।

অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীদের মাঝে সার্টিফিকেট প্রদান করেন বার্জার পেইন্টসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরী এবং ক্রেস্ট তুলে দেন আইএবি-এর প্রেসিডেন্ট কাজী গোলাম নাসির। এ বছর অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রামের বিভিন্ন ক্যাটাগরিগুলো হলো: ১. সিঙ্গেল ফ্যামিলি রেসিডেন্স, ২. মাল্টি-ফ্যামিলি রেসিডেন্স, ৩. ইন্ডাস্ট্রিয়াল, ৪. কমার্শিয়াল / মার্কেন্টাইল / কমার্শিয়াল আউটলেটস, ৫. কালচার, কনজারভেশন ও ইনস্টিটিউশন, ৬. আরবান ল্যান্ডস্কেপ, রেনোভেশন ও আদারস এবং ৭. বার্জার ইয়াং আর্কিটেক্টস্ অ্যাওয়ার্ড।

সিঙ্গেল ফ্যামিলি রেসিডেন্স ক্যাটাগরিতে কুলাউড়াতে অবস্থিত গেস্ট বাংলো, এলএইচটিবি-এর জন্য পুরস্কৃত হয়েছেন স্থপতি নাহাস আহমেদ খলিল, স্থপতি রাজিব হাসান চৌধুরী এবং স্থপতি মুমতাহিনা রিফাত রুবামা। এই ক্যাটাগরিতে কমেন্ডেশন অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন স্থপতি মোহাম্মদ জাকিউল ইসলাম, স্থপতি নিতি মাহবুব এবং স্থপতি ওয়ারিস উল আম্বিয়া, কোনাবাড়িতে অবস্থিত তাদের ভ্যাকেশন হাউস প্রকল্পের জন্য এবং স্থপতি রফিক আজম, তার ‘নিকুঞ্জ রেসিডেন্স’ প্রকল্পের জন্য।

মাল্টি-ফ্যামিলি রেসিডেন্স ক্যাটাগরিতে ঝিনাইদহতে অবস্থিত ‘সিটি-ওয়াইড কমিউনিটি আপগ্রেড’ প্রকল্পের জন্য পুরস্কার লাভ করেন- স্থপতি সুহেলী ফারজানা, স্থপতি খন্দকার হাসিবুল কবির, স্থপতি মাহমুদা আলম, স্থপতি এমারেল্ড উপমা বৈদ্য, স্থপতি রুবাইয়া নাসরিন এবং কক্সবাজারে অবস্থিত ‘রিজিয়া পরম্পরা’ প্রকল্পের জন্য পুরস্কার গ্রহণ করেছেন স্থপতি আসিফ মোহাম্মদ আহসানুল হক এবং স্থপতি আরিফা আক্তার।

কালচার/কনজারভেশন/ইনস্টিটিউশন ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হয়েছেন স্থপতি রফিক আজম, নোয়াখালীতে তার ‘এসএ ফ্যামিলি গ্রেভইয়ার্ড’ প্রকল্পের জন্য এবং স্থপতি খন্দকার মাহফুজ আলম যশোরে ‘এগারো শিব মন্দির, অভয়নগর’ প্রকল্পের জন্য। কর্মাশিয়াল/মার্কেন্টাইল ক্যাটাগরিতে স্থপতি রাশেদ হাসান চৌধুরী, স্থপতি সায়েদিল আশরাফিন এবং স্থপতি ইমন মাহবুব চৌধুরী, উত্তরাতে ‘আজো আইডিয়া স্পেস’-এর জন্য পুরস্কৃত হয়েছেন। ইন্ডাস্ট্রিয়াল ক্যাটাগরিতে ইফাদ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক প্রকল্পের জন্য পুরস্কার গ্রহণ করেছেন স্থপতি নিশাত আফরোজ, স্থপতি সাকলাইন বুলবুল, স্থপতি সাকিব আহসান চৌধুরী এবং স্থপতি নাওয়াশ আক্তার।

ইয়াং আর্কিটেক্টস্ ক্যাটাগরিতে গাজীপুরে অবস্থিত ‘আম্বার ডেনিম মসজিদ’ প্রকল্পের জন্য পুরস্কৃত হয়েছেন স্থপতি লুৎফুল্লাহিল মাজিদ।

এবারের আয়োজনে আজীবন সম্মাননায় ভূষিত করা হয় প্রখ্যাত স্থপতি বশিরুল হক-কে। এ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বার্জার পেইন্টস্ বাংলাদেশ লিমিটেড-এর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, আইএবি সদস্য, বিশিষ্ট স্থপতি এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম ব্যক্তিবর্গ। অ্যাওয়ার্ড প্রদান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। নৈশভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top