বুক বিল্ডিং আইন প্রণয়নে কঠোর হবে বিএসইসি

expoশেয়ারবাজার রিপোর্ট: বুক বিল্ডিং প্রক্রিয়ায় শেয়ারের দাম নির্ধারণে কোন অনিয়ম হলে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) চুপ করে থাকবে না, প্রয়োজনে আইন প্রণয়নে কঠোর হবেন বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর শিল্পকলা মিলনায়তেনে ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপো ২০১৭ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএসইসির চেয়ারম্যান এ কথা বলেন। উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন বানিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। অনুষ্ঠানটির উদ্ভোধন করেন অর্থমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. আব্দুর রাজ্জাক।

অনুষ্ঠানে বিএসইসির চেয়ারম্যান বলেন, বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে আমরা কোম্পানির শেয়ারের মূল্য নির্ধারণে ৪টি পদ্ধতি নির্ধারণ করে দিয়েছি। কিছু প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী সেই পদ্ধতি অনুসরণ না করে তাদের মনগড়া বা কাল্পনিক দর দিয়ে বিডিং করছে। যা অনিয়ম। হতে পারে এমন অনিয়ম ক্ষেত্রে সাময়িক সময়ের জন্য ইস্যুয়ার শেয়ারের ভাল দর পায়। কিন্তু এটা ভবিয্যতে খারাপ রুপ দেখা যায়। কারন পরবতিতে এগুলো দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।  তাই শেয়ারবাজারের উন্নয়ন স্বার্থে আমরা এ অনিয়মে চুপ করে থাকবো না। প্রয়োজনে আইন প্রণয়ন আরো কঠোর করা হবে।

ড. এম খায়রুল হোসেন বলেন,  নানামুখী সংস্কারের মধ্যে দিয়ে শেয়ারবাজার শক্তিশালী অবস্থানে এসেছে। অতীতের  শেয়ারবাজার থেকে বর্মান অনেক শক্তিশালী। শেয়ারবাজারে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে। বিনিয়োগ নির্ভর বাজার গড়ে না উঠলে তা কখনো স্থিতিশীল হবে না।

শেয়ারবাজারে  বিনিয়োগকারী সংখ্যা বৃদ্ধির বিষয়ে তিনি বলেন, বর্তমানে অনেকে মনে করেন আমরা বিভিন্ন সভা সেমিনারের মাধ্যমে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগকারীদের আসতে আমন্ত্রন জানাচ্ছি। আসলে বাস্তবে আমরা এমনটি করছি না। আমরা শুধু বিনিয়োগকারীদের সচেতন করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে কাজ করছি। যার মাধ্যমে সচেতন বিনিয়োগকারীরা শেয়ারবাজারে আসবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিএসইসির কমিশনার ড. স্বপন কুমার বালা, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান ড. এ কে মোমেন।

অনুষ্ঠানে বিএসইসির কমিশনার ড. স্বপন কুমার বালা বলেন, নতুন নতুন প্রডাক্ট-যেমন এটিএফ ফান্ড, স্মল ক্যাপ মার্কেট, ওটিসি মার্কেট বোর্ড গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে বিএসইসি  ব্যপক কাজ করছে। যাতে ভবিষ্যতে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগকারীরা আর কোন প্রকার আর ক্ষতি  সম্মুখীন না হয়।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান ড. এ কে মোমেন বলেন, শেয়ারবাজারের উন্নয়নের জন্য সুপরিকল্পিত রোডম্যাপ তৈরি করতে হবে। আগামীতে শেয়ারবাজারকে আমরা কোথায় দেখতে চাচ্ছি তার একটি পরিকল্পনা থাকা খুবই জরুরী।

উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ  (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কে এ এম মাজেদুর রহমান, ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তাক আহমেদ ও বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংক অ্যাসোসিয়েশনের ছায়দুর রহমান। এতে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক প্রতিষ্ঠান অর্থসূচকের সম্পাদক জিয়াউর রহমান।

শেয়ারবাজারনিউজ/এমআর

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top