বিদেশি লেনদেনে মন্দাবাজারের প্রভাব

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: চলতি বছরের শুরুতে দেশের শেয়ারবাজারে আস্থার সংকট দেখা দিয়েছিলো। আর এতে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) চলতি মাসের প্রথম পক্ষে অর্থাৎ ১৫ দিনে (১-১৫ জানুয়ারী) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৮৭ পয়েন্ট কমেছে। সূচকের এমন নেতিবাচক পরিস্থিতিতে বিদেশীদের শেয়ার লেনদেনে কম অংশগ্রহন করতে দেখা গেছে। চলতি মাসের প্রথম পক্ষে শেয়ারবাজারে বিদেশিদের নিট বিনিয়োগ কমেছে ১৬.৬৩ শতাংশ।

এ বিষয়ে একাধিক মার্চেট ব্যাংকের কর্মকর্তার সাথে কথা বললে তারা বলেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা খুবই সচেতন। বিদেশিরা সব সময় ঝামেলা এড়িয়ে চলেন। বাজারে বিনিয়োগের আগে তারা অনেক দিক বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগ করেন। সুযোগের অপেক্ষায় থাকেন। আকর্ষণীয় মূল্যে তারা শেয়ার ক্রয় করেন। আবার বিক্রির ক্ষেত্রেও সতর্কতা অবলম্বন করেন। বর্তমানে তারা বাজার পর্যবেক্ষণ করছেন। এ অবস্থায় বিনিয়োগ কিছুটা কমেছে।

ডিএসইর তথ্যানুযায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারী মাসের প্রথম ১৫দিনে ১১ কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে। এ ১১দিনে বিদেশীরা মোট ৪২৩ কোটি ৪৯ লাখ ৭০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন করেছেন। এর আগের পক্ষে অর্থাৎ ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসের শেষ ১৫ দিনে বিদেশীরা মোট ৫০৭ কোটি ৯৭ লাখ ৭০ হাজার টাকার লেনদেন করেছিলেন। সে হিসেবে দেখা যাচ্ছে আগের পক্ষের তুলনায় চলতি পক্ষে বিদেশীদের লেনদেন ১৬.৬৩ শতাংশ কমেছে।

এদিকে চলতি পক্ষে লেনদেনে বিদেশিদের অংশগ্রহণ কমলেও সামগ্রিক বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ লেনদেন কিছুটা বেড়েছে। জানুয়ারী মাসের প্রথম পক্ষে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৫ হাজার ৪২ কোটি ২৭ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং দৈনিক গড় লেনদেন ৪৫৮ কোটি ৩৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা। যা এর আগের পক্ষে ছিল ৪ হাজার ৪৯ কোটি ৩৮ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং দৈনিক গড় লেনদেন ৪৪৯ কোটি ৯৩ লাখ ১০ হাজার টাকা। অর্থাৎ চলতি পক্ষে লেনদেন বেড়েছে ৯৯২ কোটি ৮৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/এমআর

আপনার মন্তব্য

Top