পুঁজিবাজারের উন্নয়ন ও স্থিতিশীলতায় অংশীদার কেন্দ্রীয় ব্যাংক

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: আজ ২০১৭-২০১৮ হিসাব বছরের দ্বিতীয় ভাগের (৬ মাস) মুদ্রানীতি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মুদ্রনীতি প্রতিবেদনে কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানায় পুঁজিবাজারের উন্নয়ন ও স্থিতিশীলতার জন্য বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় ব্যাংক কাজ করছে।

মুদ্রানীতি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে বাজারের তত্বাবধানে কাজ করছে। পাশাপাশি পুঁজিবাজারে ব্যাংক এবং তাদের সহযোগী প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ কার্যক্রম জোরালো পর্যবেক্ষণ করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। যাতে পুঁজিবাজারে মূল ব্যাংকের বিনিয়োগ আইনি সীমা (এক্সপোজার লিমিট) অতিক্রম না করে। এতে পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ আইনি সীমার মধ্যে রয়েছে। তাই পুঁজিবাজার স্থিতিশীল রয়েছে।

এছাড়া প্রবাসি বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি বাজারের জন্য সুফল বয়ে এনেছে। তাছাড়া দেশের ম্যাক্রোইকনোমিক আউটলুক ভাল থাকায় বাজারের প্রতি আস্থা বেড়েছে।

এদিকে দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নে পুঁজিবাজারের অবদান বেড়েছে। অনেক নন-ফাইন্যান্সিয়াল প্রতিষ্ঠান ব্যাংক ঋণ এড়িয়ে বন্ডের মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করছে। যা বন্ড মার্কেটের উন্নয়নের পাশাপাশি ফাইন্যান্সিয়াল সিস্টেমের উন্নয়নে ভারসাম্য রাখছে।

মুদ্রনীতি প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, শেয়ারবাজারের মূল্য সূচক ডিএসইএক্স জুন, ২০১৭ থেকে ১০ শতাংশ এবং ডিসেম্বর, ২০১৬ থেকে ২৪ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৭ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে পুঁজিবাজারের মূল্য সূচকে এমন ঊর্ধ্বমূখী ভাব দেখা গেছে। দেশের পুঁজিবাজারে বিদেশিদের বিনিয়োগ ৩গুণ বেড়ে যাওয়ায় এমন ভাব লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া ২০১০-২০১১ এর মহাধসের পর ২০১৭ সালে ডিএসই সূচক সর্বোচ্চ অবস্থানে এবং টার্নওভার ২০১৬ সালের তুলনায় দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top