লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ডিভিডেন্ড ঘোষণা

শেয়ারবাজার ডেস্ক: ২০১৭ সালের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ৭.৫০% নগদ ও ৭.৫০% বোনাস শেয়ার দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স
লিমিটেডের (এলবিএফএল) পরিচালনা পর্ষদ। ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরে ব্যাংক-বহিভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির সম্মিলিত কর
পরবর্তী মুনাফা ১৪২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ১৯২.৬৩ কোটি টাকা, যা আগের বছর ছিল ৭৯.৫৬ কোটি টাকা।

বিগত বছরের সমন্বিত শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ২.৫০ টাকার বিপরীতে এ বছর সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) দাঁড়িয়েছে ৫.৯৭ টাকা। ২০১৭ সালের ৩১শে ডিসেম্বর-এ এলবিএফএল এর শেয়ার প্রতি সমন্বিত নেট স¤পত্তির পরিমাণ ছিল ২৬.১৬ টাকা যা ২০১৬ সালের একই সময়ের ২১.০১ টাকার তুলনায় ২৫ শতাংশ বেশি। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬:৩০ ঘটিকায় পরিচালনা পর্ষদের ১০৯তম সভায় লংকাবাংলা ফাইন্যান্স-এর সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুমোদন হয়। সভা শেষে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ২০১৭ সালে দেশের আর্থিক খাত নানা প্রতিক‚লতার মধ্য দিয়ে গেলেও দক্ষ কর্মীবাহিনীর সর্বোত্তম গ্রাহকসেবার কারণে লংকাবাংলা তাদের ব্যবসার প্রতিটি খাতেই উলেøখযোগ্য উন্নতি সাধন করেছে। পুঁজিবাজারে ঋণাত্বক ইকুইটির ধাক্কা কাটিয়ে এ সময়ে মুনাফা দেখিয়েছে তাদের মার্চেন্ট ব্যাংকিং সাবসিডিয়ারি লংকাবাংলা ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড। ব্রোকারেজ সেবার বাজারে এক নম্বর অবস্থান ধরে রেখেছে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড। সম্পদ ব্যবস্থাপনার ব্যবসায় এগিয়ে যাচ্ছে লংকাবাংলা অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। ৩১ শে ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত এলবিএফএল এর মোট আমানতের পরিমান দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ১৫৫ কোটি টাকা যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২৯ শতাংশ বেশি। ২০১৭ সালে আর্থিক খাতের আমানতের প্রবৃদ্ধির হার ছিল ২০ শতাংশ; সেই তুলনায় এলবিএফএল এর আমানতের প্রবৃদ্ধি আর্থিক খাতের গড় প্রবৃদ্ধির চেয়ে ৯ শতাংশ বেশি। এ সময়ে এলবিএফএল এর আমানত হিসাবের সংখ্যা দাড়ায় ২৩,৬৬৯ টি যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় (১৪,২৮২ টি) ৬৬ শতাংশ বেশি। ৩১ শে ডিসেম্বর ২০১৭ পযন্ত এলবিএফএল এর মোট ঋণের পরিমান ৬ হাজার ১৯১ কোটিতে উত্তীর্ণ হয় এবং ৩২ শতাংশ বাৎসরিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করে। এ সময়ে আর্থিক খাতে ঋণের গড় প্রবৃদ্ধি ছিল মাত্র ২০ শতাংশ। ২০১৭ সালের শেষে লংকাবাংলার পরিচালনার অধীনে সমন্বিত মোট তহবিলের (ফান্ড আন্ডার ম্যানেজমেন্ট) পরিমাণ দাড়ায় ১৫,২১৬ কোটি টাকা যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩৬ শতাংশ বেশি। ২০১৭ সালে লংকাবাংলার রিটেইল এবং এসএমই খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধির হার ছিল যথাক্রমে ৫৩ ও ৯১ শতাংশ। এ সময়ে লংকাবাংলার মোট ঋণ হিসাবের সংখ্যা ১৫,৪২৬ টি তে উন্নীত হয় যা বিগত বছরের (৮,৮০১ টি) চেয়ে ৭৫ শতাংশ বেশি। ২০১৭ সালের ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত লংকাবাংলার ইস্যুকৃত সচল ক্রেডিট কার্ডের সংখ্যা ছিল ৭৭,৯৪১ টি যা বিগত বছর শেষে ছিল ৬৪,১৫৭ টি। বার্ষিক ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা শাহরিয়ার বলেন, “ লংকাবাংলার ২০১৭ সালের আর্থিক সূচকগুলো বিগত কয়েক বছরের কৌশলগত পদক্ষেপ সমূহ এবং অবকাঠামোগত পুনর্গঠনের প্রতিফলন। আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো একটি দক্ষ রূপ লাভ করেছে। বরাবরের মতোই আমরা সবচেয়ে মেধাবী কর্মীদের কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছি। সর্বোপরি প্রতিটি টিম-ই তাদের ব্যবসায়িক অগ্রাধিকারে অটুট থেকেছে। দক্ষতা, সততা, নিষ্ঠা ও সর্বোত্তম গ্রাহকসেবাই এবছর কোম্পানির ব্যবসায়ে উচ্চ প্রবৃদ্ধির নেপথ্য শক্তি হিসেবে কাজ করেছে। আগামী ২৯ মার্চ তারিখ বেলা ১০:০০টায় রাজধানীর মাইডাস মিলনায়তনে ২১তম বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আয়োজন করবে লংকাবাংলা। এজন্য রেকর্ড তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ৮ই মার্চ ২০১৮।

শেয়ারবাজার/সা

আপনার মন্তব্য

Top