হঠাৎ উত্থান: সক্রিয় হচ্ছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: আজ দিনের শুরুতে ঢিমেতালে বাজার চলতে থাকে। বেলা ১২টা পর্যন্ত লেনদেন যেমন সামান্য ছিলো,সূচকের উত্থানও তেমনটা ছিলো না। কিন্তু এর পর থেকেই শুরু হলো সূচকের উত্থান। বাড়তে থাকলো লেনদেন। বাজারের বিভিন্ন সিকিউরিটিজ হাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানান, এখন বাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের সক্রিয়তা বেড়েছে। সামনে বাজার আরো ভালো হবে সেই ইঙ্গিতও বিভিন্ন স্থান থেকে দেয়া হচ্ছে। যে কারণে সূচক বাড়ার পাশাপাশি লেনদেনও বেড়েছে।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উত্থানে শেষ হয়েছে লেনদেন। এদিন শুরুতে উত্থান-পতন থাকলেও দেড় ঘন্টা পর ক্রয় প্রেসারে টানা বাড়তে থাকে সূচক। বৃহস্পতিবার লেনদেন শেষে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। আলোচিত সময়ে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪২২ কোটি টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৬৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৮৭০ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৩৭২ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ২২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২১৬৮ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ২৫০টির, কমেছে ৫০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৪২২ কোটি ৩০ লাখ ৩৪ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ বুধবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫৮০৪ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১৩৬১ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ২১৪৬ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৩৮৯ কোটি ৫ লাখ ৪৯ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৩৩ কোটি ২৪ লাখ ৮৫ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ১০৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১০ হাজার ৯২৩ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২২৪টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৫০টির, কমেছে ৫৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২১টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি ৪২ লাখ ৩৭ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top